টর হ্যাকের চেষ্টা : গোয়েন্দাদের ঠেকাচ্ছে গোয়েন্দারাই

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর :  ব্রিটিশ ও মার্কিন গোয়েন্দা এজেন্টরা ‘ডার্ক ওয়েব’ হ্যাক করার চেষ্টা করলেও সহকর্মীদের কারণে সফল হচ্ছেন না তারা। সংস্থার ভেতর থেকে আগে ভাগে টের পেয়ে তথ্য জানিয়ে ইন্টারনেটের লুকানো জগতকে টিকিয়ে রাখতে সাহায্য করছেন তারা।

এ ডার্ক ওয়েব ব্রাউজারটির নাম টর, গোপন বা নিষিদ্ধ ওয়েবসাইটে নাম ও পরিচয় লুকিয়ে ঢোকার জন্য এটি ব্যবহার করা হয়।

জানা গেছে, দুই দেশের দুটি গোয়েন্দা সংস্থার নির্দেশে যেসব গোয়েন্দা টরকে কাবু করতে বিভিন্ন উপায় খুঁজছেন তারা অন্য সহকর্মীদের তাচ্ছিল্যের শিকার হচ্ছেন।

টর নামের এ ব্রাউজার কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গোয়েন্দারা তাদের সিস্টেমে ত্রুটি খোঁজার চেষ্টা করলেও তাদেরই একটি অংশ সাহায্য করছেন। ত্রুটির খবর পৌঁছে দিচ্ছেন টর কর্তৃপক্ষের কাছে।

আরও পড়ুন : ফেইসবুক-ইউটিউবে নজরদারি করছে ব্রিটিশ গোয়েন্দারা

_77102710_f8eb1952-8927-4055-a7d0-bb6842a276f0

গোয়েন্দা সংস্থাগুলো অবশ্য এ ব্যাপারে সরাসরি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

ব্রিটিশ সংবাদ সংস্থা বিবিসির সঙ্গে এক সাক্ষাতকারে এসব তথ্য জানান টর প্রজেক্টের অপারেশনের দায়িত্বে থাকা অ্যান্ড্রু লিউম্যান। তিনি জানান, মার্কিন ও ব্রিটিশ গোয়েন্দা জিচিএইচকিউ ও এনএসএ’র ভেতর থেকে তারা সাহায্য পাচ্ছেন। ফলে ত্রুটি সংশোধন করে ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তা বজায় রাখতে পারছেন তারা।

টর প্রজেক্টের সফটওয়্যার প্রকৌশলী হিসেবে লিউম্যানদের কাজ হচ্ছে ব্যবহারকারীদের ইন্টারনেট অ্যাক্টিভিটি যাতে ট্র্যাক না করা যায় তার ব্যবস্থা করা। সাধারণভাবে যাওয়া যায় না, এমন অনেক নিষিদ্ধ ও অবৈধ ওয়েবসাইটে যেতেও এটি ব্যবহার করা হয়।

‘ডার্ক ওয়েব’ নামে পরিচিত এসব সাইটে শিশু পর্নোগ্রাফি, শিশুদের নির্যাতনের চিত্র, মাদক বেচাকেনা, অস্ত্র বেচাকেনা ইত্যাদি অবৈধ কাজ দেখা যায়।

লিউম্যান জানান, প্রতি মাসে তারা নিরাপত্তা সংস্থার সূত্র থেকে গুরুত্বপূর্ণ বাগ ও ত্রুটির কথা জানতে পারছেন। যেগুলো সংশোধন করতে না পারলে হয়ত টর চালিয়ে যেতে পারতেন না।

তিনি বলেন, উইলিয়াম বিনি নামের সাবেক এক এনএসএ কর্মকর্তা তাকে জানিয়েছিলেন নাগরিকদের উপর নজরজারি অনেক এনএসএ কর্মী পছন্দ করেন না। তাই তারা গোপনে টরের মতো প্রজেক্টগুলোকে সহায়তা করছেন।

এ ব্যাপারে এনএসএর এক কর্মকর্তার কাছে জানতে চাইলে এ বিষয়ে তাদের কিছু বলার নেই বলে উল্লেখ করেন।

এসব ব্যপারে কিছু বলা তাদের নীতিমালার পরিপন্থী বলে মন্তব্য করেন অপর গোয়েন্দা সংস্থা জিসিএইচকিউর এক মুখপাত্র।

এর আগে এনএসএর সাবেক কর্মী এডওয়ার্ড স্নোডেনের ফাঁস করা তথ্য থেকে জানা গিয়েছিল, সন্ত্রাস প্রতিরোধ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এ দুই এজেন্সি টর প্রজেক্ট বন্ধ করার জোর প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।

এ সংক্রান্ত এক নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ জানিয়েছেন, লিউম্যানের দেওয়া তথ্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো ব্যাপারটি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে নেবে।

-বিবিসি থেকে শাহারিয়ার হৃদয়

আরও পড়ুন

ইন্টারনেট জগৎদূষিত করছে গুগল

অ্যাপের মাধ্যমে তথ্য নিচ্ছে মার্কিন গোয়েন্দারা

মার্কিন টিভি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিলেন স্নোডেন

*

*

আরও পড়ুন