Techno Header Top and Before feature image

ঐতিহাসিক মুহূর্ত: স্পেস এক্সের রকেটে নাসার চার নভোচারী মহাকাশে

ছবি: ইন্টারনেট থেকে নেওয়া
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: ইলন মাস্কের জন্য আজ যে খুব আবেগঘণ একটি দিন তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কারণ, তার প্রতিষ্ঠিত স্পেস এক্সে আজ একটি পূর্ণাঙ্গ মহাকাশ মিশন উৎক্ষেপণ করলো। নাসার তিনজন ও জাপান স্পেস অ্যাজেন্সির একজন নভোচারীকে ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশানে পাঠাতে রকেট উৎক্ষেপণ করেছে কোম্পানিটি।

ইস্টার্ন স্ট্যান্ডার্ড সময় সময় রবিবার রাতে স্পেস এক্সের ক্রু ড্রাগনে চড়ে নাসার চারজন নভোচারী ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশানের দিকে রওয়ানা হন। কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে উৎক্ষেপিত ক্রু ড্রাগনটিকে আইএসএস পর্যন্ত পৌঁছে দিয়েছে স্পেস এক্সের সবচেয়ে সফল রকেট ফ্যালকন নাইন।

চারজন নভোচারীর মধ্যে তিনজন যুক্তরাষ্ট্রের এবং একজন জাপানের। তারা হচ্ছেন মাইকেল হপকিন্স, ভিক্টর গ্রোভার, শ্যানন ওয়াকার এবং সোইকি নগোচি। নভোচারীরা ২৭ ঘণ্টা পর গন্তব্যে অর্থাৎ ইন্টারন্যাশনাল স্পেস স্টেশানে পৌঁছাবেন। যা ইস্টার্ন স্ট্যান্ডার্ড সময়ে সোমবার রাত ১১টা।

শনিবার রকেটটি উৎক্ষেপনের কথা থাকলেও সেটি বাজে আবহাওয়ার জন্য আটঘণ্টা দেরি করতে হয়।

স্পেস এক্স এবং নাসা জন্য এই মিশনটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, এই মিশনটি স্পেস এক্সের প্রথম পরিপূর্ণ মহাকাশ মিশন। এর আগে দুইজন টেস্ট পাইলট নিয়ে একটি পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপন হয় মে মাসে।

নভোচারিরা স্পেস স্টেশানে ছয়মাস অবস্থান করবেন এবং বিভিন্ন বিষয়ে পরীক্ষা করবেন। এমনই একটি পরীক্ষায় নভোচারীরা স্পেস স্টেশানের পরিবেশে ‘মূলা’ উৎপাদন করার চেষ্টা করবেন। মহাকাশের আবদ্ধ পরিবেশে সবজি উৎপাদন করার বিভিন্ন দিক পর্যবেক্ষণ করতে এই প্রচেষ্টা।

২০১১ সালে নাসার স্পেস শাটল অবসরে গেলে এরপর থেকে নভোচারি পাঠানোর জন্য রাশিয়ার উপর ভর করতে হয় যুক্তরাষ্ট্রকে। স্পেস এক্স যুক্তরাষ্ট্রের এই নির্ভরতাকে দূর করে দিল।

সিএনএন অবলম্বনে এমআর/নভে ১৬/১০১৪

আরও পড়ুন

স্পেসএক্সের ইন্টারনেট পৌঁছে যাবে সামুদ্রিক জাহাজে

মিসাইল ট্র্যাকিং স্যাটেলাইট বানাবে স্পেসএক্স

শত বার মহাকাশ মিশন পরিচালনা স্পেসএক্সের

*

*

আরও পড়ুন