Techno Header Top and Before feature image

অনলাইনে এলো পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ১৬২ সেবা

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ১৬২টি সেবা ডিজিটাল প্লাটফর্মে এসেছে।

 সরকারের মাইগভ প্ল্যাটফর্মের আওতায় র‍্যাপিড ডিজিটাইজেশন কার্যক্রমের মাধ্যমে এসব সেবা অনলাইনে আনা হয়েছে।

রোববার পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক অনুষ্ঠানে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক, তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এবং পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম এর উদ্বোধন করেন।

এতে মাইগভের মাধ্যমে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ৩৩টি এবং এর আওতাধীন সংস্থাসমূহের ১২৯টি সেবাসহ মোট ১৬২টি সেবা ডিজিটাল প্লাটফর্মে চালু করা হয়।

ফলে এখন  হতে খুব সহজেই ডিজিটাল পদ্ধতিতে সেবার আবেদন, সেবা সংশ্লিষ্ট পেইমেন্ট, সেবার অগ্রগতি, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কার্যক্রম মাইগভ ওয়েব, মাইগভ অ্যাপ, ৩৩৩ কলসেন্টারে কল করে অথবা ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে করা যাবে।

এই প্ল্যাটফর্ম হতে সেবাগ্রহীতারা সকল সেবার সকল ধরনের তথ্য পাবেন এবং সেসব সেবার আবেদনের অগ্রগতিও ট্র্যাক করতে পারবেন। অপরদিকে সেবা প্রদানকারী কর্মকর্তাগণও একক জায়গা থেকে সকল সেবা প্রদান করতে পারবেন। এতে সেবাগ্রহীতা ও প্রদানকারী উভয়ের সময় ও অর্থের অপচয় কমে আসবে।

জাহিদ ফারুক বলেন, ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মগুলোতে কর্মপরিধি আরও বাড়ানো হবে। ইতোমধ্যে সরকারের বিভিন্ন সেবা ডিজিটাইজেশনের ফলে মানুষের ভোগান্তি অনেক কমেছে। এছাড়া মানুষের মধ্যে সচেতনতাও বৃদ্ধি পেয়েছে। এখন সেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে আরও আন্তরিক হতে হবে।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ২০০৮ সালে যখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনী ইশতেহারের আলোকে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের কাজ শুরু হয়, তখন বাংলাদেশের ওয়ার্ল্ড ই-গভর্নেন্স র‍্যাংকিং ছিল ১৬২। মাত্র হাতেগোনা কয়েকটি ওয়েবসাইট ছাড়া কোনো মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন বা ডাটাসেন্টার ছিল না, ঢাকার বাইরে কোন ব্রডব্যান্ড সংযোগ ছিল না।

‘বর্তমানে সেই অবস্থান থেকে ৪৩ ভাগ অগ্রগতি হয়েছে। ২০০৮ সালে বাংলাদেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ছিল মাত্র ৫৬ লাখ এখন সেটা ১১ কোটি ছাড়িয়ে গেছে। প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়-এর পরিকল্পনা ও নির্দেশনায় ২৮০০ সরকারি সেবার ডিজিটাইজেশনের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হচ্ছে। এরই মধ্যে আজকের ১৬২টি সেবার মধ্য দিয়ে সর্বমোট ১৪০৯টি সেবা ডিজিটাইজেশনে এসেছে। অচিরেই আরও ২০০০ সেবাকে ডিজিটাইজেশনের আওতায় নিয়ে আসা হবে’ বলছিলেন তিনি।

এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেন, নাগরিকদের জীবনযাত্রাকে আরও সহজ করতে এই অনলাইন সেবাগুলোর যাত্রা। এর মাধ্যমে একজন সেবাগ্রহীতা যেকোনো স্থানে, যেকোনো অবস্থাতেই তার প্রয়োজনীয় তথ্য ও সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

এটুআইয়ের চিফ টেকনোলজি কর্মকর্তা মোহাম্মদ আরফে এলাহী অনুষ্ঠানে ডিজিটাল সেবা বিষয়ক উপস্থাপনা দেন।

অনুষ্ঠানে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার,পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব মোঃ আজাদুর রহমান মল্লিক, এটুআইয়ের প্রকল্প পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) ড. মো. আব্দুল মান্নান, যুগ্ম-প্রকল্প পরিচালক ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্মসচিব (ই-গভর্নেন্স) ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর, যুগ্ম-প্রকল্প পরিচালক জনাব সেলিনা পারভেজ, পলিসি অ্যাডভাইজর আনীর চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

এডি/২০২০/১৯৩০/নভেম্বর০৮

*

*

আরও পড়ুন