Techno Header Top and Before feature image

লাগাতার আন্দোলনে জিপি কর্মীরা, আল্টিমেটাম

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সহকর্মীর চাকরিচ্যুতির প্রতিবাদে লাগাতার আন্দোলন করে যাচ্ছেন জিপি কর্মীরা।

শনিবার রাজধানীর প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন শেষে কর্মীরা সংবাদ সম্মেলন করে রোববার পর্যন্ত সময় দিয়ে আল্টিমেটাম দেয় জিপি কর্তৃপক্ষকে।

এর মধ্যে  সহকর্মী গ্রামীণফোন অ্যামপ্লয়িজ ইউনিয়ন (জিপিইইউ) এর সাধারণ সম্পাদক মিয়া মো. শফিকুর রহমান মাসুদকে চাকরিতে ফিরিয়ে না নিলে সোমবার হতে বৃহত্তর কর্মসূচি দেয়া ঘোষণা দেয় তারা।

এরআগে বৃহস্পতিবার শ্রম ভবনের সামনে মানবন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করে কর্মীরা।

মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) মিয়া মো. শফিকুর রহমান মাসুদকে চাকরিচ্যুত করার পর ওইদিনই সারাদেশের কর্মীরা ঢাকায় জড়ো হয়। পরদিন বুধবার গ্রামীণফোনের প্রধান কার্যালয়ের সামনে ও ভেতরে দুই শতাধিক কর্মী সমাবেশ ও বিক্ষোভ করেন। 

গ্রামীণফোন কর্মীদের নিবন্ধিত সংগঠন গ্রামীণফোন অ্যামপ্লয়িজ ইউনিয়ন (জিপিইইউ) এর শীর্ষ নেতারা বলছেন, ‘কর্মীদের চাকরি অধিকার নিশ্চিতে কার্যক্রম চালানো’ ইস্যুতে গ্রামীণফোন অ্যামপ্লয়িজ ইউনিয়ন (জিপিইইউ) এর সাধারণ সম্পাদক মিয়া মো. শফিকুর রহমান মাসুদকে চাকরিচ্যুত করেছে গ্রামীণফোন।

মিয়া মো. শফিকুর রহমান মাসুদ গ্রামীণফোনের বিজনেস ডিভিশনের বিজনেস গভর্নেন্স অ্যান্ড ইন্টারনাল কমপ্লায়েন্স বিভাগের সিনিয়র স্পেশালিস্ট ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে জিপিইইউ এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফজলুল হক বলেন, কর্মীদের চাকরিচ্যুত করার ক্ষেত্রে মিয়া মো. শফিকুর রহমান মাসুদকে প্রধান বাধা মনে করে গ্রামীণফোন। তাই তাকেই চাকরিচ্যুত করা হয়েছে যেন অন্য কেউ আর প্রতিবাদের সাহস না পায়।

‘রোববারের মধ্যে যদি গ্রামীণফোন চাকরি ফিরিয়ে না দেয় তাহলে সোমবার হতে সারাদেশে বৃহত্তর আন্দোলন কর্মসূচি দেয়া হবে’ সংবাদ সম্মেলনে বলছিলেন তিনি।

মিয়া মো. শফিকুর রহমান মাসুদ টেকশহরডটকমকে জানান, গ্রামীণফোন কাস্টমার সার্ভিসের ৫৪ জন কর্মীকে এখনও প্লেসমেন্ট দেয়া হয়নি। এছাড়া আউটসোর্স করার মাধ্যমে টেকনোলজি ফিল্ড ফোর্স মানে রিজিওনাল অপারেশনের ১৩০ জন কর্মীকে চাকরিচ্যুত করার পরিস্থিতি তৈরি করা হচ্ছিল।

‘এসবের প্রতিবাদে প্রধানমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, বিটিআরসিসহ বিভিন্ন দপ্তরে বিস্তারিত জানিয়ে চিঠি দিয়েছিলাম আমরা। এসব না করতে কর্তৃপক্ষকে নানাভাবে চাপও দেয়া হচ্ছিল। মূলত এই কারণেই আমাকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে’ বলছিলেন তিনি।

জিপিইইউ এর সাধারণ সম্পাদক বলেন, টেকনোলজি ফিল্ড ফোর্সের কাজ আউটসোর্স প্রতিষ্ঠান মেটাল প্লাস, ঢালি কনস্ট্রাকশনকে দিয়ে করাতে চায় জিপি। কিন্তু বিটিএস রং করা, ওয়াস করা, তেল ঢালার মতো কিছু কাজ ছাড়া আইন অনুযায়ী অন্য প্রযুক্তিগত কাজ আউটসোর্স করে করা যাবে না। এর জন্য আলাদা লাইসেন্স লাগে। তারা টেলিকম আইন ভেঙ্গে এটা করছে। যেখানে ৩০০ কোটি টাকা জরিমানা হতে পারে। এসব বিষয়ে সরকারকে বিস্তারিত জানানো হয়েছে যেনো এটা তদন্ত করে কর্মীদের চাকরি নিরাপত্তা ও গ্রাহক সেবা নিশ্চিত হয়।

‘প্রযুক্তিগত কাজ আউটসোর্স করে করা যায় না। এতে তথ্য লিক হয়, সিকিউরিটি থাকে না, ৮-১০ হাজার টাকার বেতনের কর্মী দিয়ে সেবা ভাল হয় না’ বলছিলেন তিনি।

এডি/২০২০/অক্টোবর৩১/১৬৪০

*

*

আরও পড়ুন