Techno Header Top and Before feature image

নির্বাচন কাছে আসছে, ভুয়া খবরও বাড়ছে

মার্কিন নির্বাচনে গুজবের ছড়াছড়ি। ছবি : বিবিসি
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : মার্কিন নির্বাচনকে ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়া খবরের সংখ্যা। কোনটা সত্যি আর কোনটা মিথ্যা তা শনাক্ত করা খুবই কঠিন হয়ে পড়ছে। ভেরিফাইড অ্যাকাউন্ট থেকে এসব খবর পোস্ট করায় মুহূর্তের মধ্যে সেগুলো ভাইরাল হচ্ছে।

এখন পর্যন্ত যেসব ভুয়া খবর ছড়িয়েছে সেগুলোর বিস্তারিত তুলে ধরা হলো।

পোস্টাল ভোটস

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটে দাবি করেছেন, ৫০ হাজার মানুষ ওহাইওতে ব্যালট পাননি। এটাই পাতানো নির্বাচনের প্রমাণ।

এ ব্যাপারে ফেইসবুক তার পোস্টে ফ্ল্যাগ বসিয়েছে। সেখানে বাইপারটিসান পলিসি সেন্টারের বরাত দিয়ে জানানো হয়, মেইলে ভোট পাঠানোর প্রক্রিয়াটি বহুদিন ধরে চলে আসছে। এর প্রতি আস্থা রয়েছে মার্কিন জনগণের। ভুয়া ভোট প্রদানের ঘটনা এদেশে খুবই বিরল।

ওহাইও অঙ্গরাজ্যের ইলেকশন বোর্ড জানিয়েছে, স্ক্যানারের কারিগরি সমস্যার কারণে ২ লাখ ৫০ হাজার মানুষের ভোট গণনা হয়নি। ইতোমধ্যে প্রত্যেক ভোটারের কাছে স্লিপ পাঠানো হয়েছে। কারও ভোটই দুবার গণনা করা হবে না।

ভুয়া ছবি ভাইরাল

ব্যালটের শুধু খামের ছবি গত সেপ্টেম্বরেও ভাইরাল হয়েছিলো। ফেইসবুকে তা কয়েক হাজার বার শেয়ার করা হয়। এ বিষয়ে সনোমা কাউন্টির ফেইসবুক পেইজ থেকে দাবি করা হয়, ছবিগুলো ২০১৮ সালের নির্বাচনের। আইন মেনে এগুলো ফেলে দেওয়া হয়েছে। এবারের ব্যালট ভোটারদের কাছে এখনও পাঠানোই হয়নি।

এডিটেড ভিডিও

ভুয়া খবর ছড়ানোর পাশাপাশি এডিটেড ভিডিও ছেড়ে বা ভিডিও চিত্রের খণ্ডাংশ প্রকাশ করেও মূল বক্তব্য পাল্টে দেওয়া হচ্ছে।

যেমন সম্প্রতি ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র, ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বী জোবাইডেনের একটি ভিডিও পোস্ট করেন। ক্যাপশনে তিনি দাবি করেন, আত্মরক্ষার জন্য মার্কিনীদের অস্ত্র রাখার অধিকার কেড়ে নিতে চান জো বাইডেন। ওই ভিডিওতে জো বাইডেন অস্ত্র বিক্রিতে নয় বরং সেমি-অটোমেটিক অস্ত্রের উপর নিষেধাজ্ঞার আরোপের বিষয়ে কথা বলেছিলেন।

ডেমোক্রেটিক পার্টির ছড়ানো অন্য একটি ভিডিওতে দেখা যায়, অস্ত্র নিয়ে কোর্টে যাওয়ার কথা বলছেন ট্রাম্প। ভিডিওটি এডিট করে ভুল বক্তব্য প্রচার করা হয়। ট্রাম্প আসলে বিপদজনক লোকদের হাত থেকে অস্ত্র কেড়ে নেওয়ার বিষয়ে কথা বলছিলেন।

ষড়যন্ত্র তত্ত্ব

নির্বাচনকে ঘিরে নতুন একটি ষড়যন্ত্র তত্ত্ব তথ্য সামনে এসেছে। সেটা হলো, ওসামা বিন লাদেনকে মারা হয়নি। লোক দেখানোর জন্য, তার মতো দেখতে অন্য এক ব্যক্তিকে মেরে ফেলা হয়েছিলো। খবরটি ডোনাল্ড ট্রাম্পও শেয়ার করেন।

মজার ব্যাপার হলো, ট্রাম্পকে ঘিরেও একই গুজব ছড়িয়েছে। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর নাকি ট্রাম্প হাসপাতালই ছাড়েননি। যাকে জনসম্মুখে দেখা যাচ্ছে সে ট্রাম্পের মতোই দেখতে আরেক ব্যক্তি। তথ্যটি অনেকেই মজার ছলে শেয়ার করেছেন। তবে এতে বিশ্বাস করেছেন এমন লোকের সংখ্যাও কম নয়।

আগামী ৩ নভেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

বিবিসি অবলম্বনে এজেড/ অক্টোবর ১৯/২০২০/১৪১০

আরও পড়ুন –

নতুন বিভাগ খুলে করোনাভাইরাসের ভুয়া তথ্য ছড়ানো বন্ধ করবে ফেইসবুক

ভুয়া খবর রোধে হিমসিম খাচ্ছে ফেইসবুক

ছয় মাসে বন্ধ ৩২০ কোটি ভুয়া ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট

*

*

আরও পড়ুন