Samsung IM Campaign_Oct’20

করোনায় ফাইভজির লক্ষ্য পেছালেও আশাবাদী মন্ত্রী

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : করোনায় বিশ্বব্যাপীই উলটপালট হয়ে গেছে সব। এরমধ্যেই ধাক্কা কাটিয়ে বিভিন্ন খাতে অনেকের মতো ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশও।

করোনার আগে সরকারের পরিকল্পনা ছিল ২০২১ সালের শুরুতে অন্তত ঢাকায় ফাইভজি চালু করার। এরপর ধাপে ধাপে সারাদেশে। কিন্তু সে লক্ষ্যে আঘাত হেনেছে করোনা, ২০২১ সালে দেশে ফাইজি চালুর লক্ষ্যপূরণ অনেকটাই কঠিন করে দিয়েছে করোনা।

তবে আশাবাদী ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। লক্ষ্য পেছালেও ফাইভজি বাস্তবায়নের কার্যক্রমে গতি বাড়াতে চান তিনি, যেন বিশ্বের সমানতালে ফাইভজি চালুর প্রস্তুতিতে পিছিয়ে না পড়ে বাংলাদেশ।

বৃহস্পতিবার রবির গ্রাহক সংখ্যা ৫ কোটির মাইলফলক স্পর্শের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, করোনায় হানায় ফাইভজি চালুর যে লক্ষ্য ছিল তা হয়তো পেছাবে তবে প্রস্তুতি নেয়ার কার্যক্রমে গতি বাড়ানো হবে। 

মন্ত্রী বলেন, ফাইভজির জন্য শুধু অবকাঠামো উন্নয়নই নয় দেশের বাজার তৈরিও গুরুত্বপূর্ণ  বিষয়। অপারেটরগুলো অনেক অর্থ বিনিয়োগ করবে এ জন্য কিন্তু এর বিপরীতে যদি ফাইভজির ব্যবহার ও ব্যবহারকারী তৈরি না হয় তাহলে তাদের বিনিয়োগও তখন দুশ্চিন্তার কারণ হবে। মানুষের কাছে ফাইভজি ডিভাইস থাকতে হবে।

‘ফাইভজিতে প্রযুক্তিতে এগিয়ে থাকা দেশগুলোও যে বেশি কিছু এগিয়েছে তা কিন্তু নয়। চায়নায় শুধু একটি প্রভিন্সের শহরে ফাইভজি চালু হয়েছে। বিশ্বের কোথাও কোথাও তা এখনও পরীক্ষামূলক’ বলছিলেন তিনি।

দেশে এখন বিশ্বমানের ফাইভজি হ্যান্ডসেট তৈরি হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই অগ্রগতি ফাইভজির সার্বিক প্রস্তুতিরই অংশ।

ফাইভজিতে বিনিয়োগ ও সরকারের ডিজিটাল ভিশনের সঙ্গে থাকার কথা উল্লেখ করে রবির ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, এখনও অনেক কিছু সিদ্ধান্তের বিষয় রয়েছে।

‘আমরা জানি না কোন স্পেক্ট্রাম ফাইভজির জন্য বরাদ্দ হচ্ছে আর তা দামও কেমন হবে, কতোটুকু যৌক্তিক হবে’ বলছিলেন তিনি।

দেশে স্যামসাংয়ের কারখানা স্থাপনকারী ফেয়ার গ্র্রুপের সিএমও মেসবাহ উদ্দিন টেকশহরডটকমকে জানান, দেশে উৎপাদিত হয়েছে স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট-২০ ও নোট-২০ আল্ট্রা ফাইভজি ফোন। প্রাথমিকভাবে ৫ হাজার তৈরি করা হয়েছিল প্রি-বুকিংয়ের জন্য।

‘প্রি-বুকিংয়ে দারুণ সাড়া পেয়েছেন তারা। ৪ হাজারের বেশি ফোন ইতোমধ্যে বিক্রি হয়ে গেছে। বাকিগুলোও সপ্তাহখানেকের মধ্যে বিক্রি হয়ে যাবে। এরপর তারা কমার্শিয়ালি এই হ্যান্ডসেট বাজারে ছাড়বেন’ বলছিলেন তিনি।

তিনি বলেন, দেশে তৈরি হওয়ায় সাশ্রয়ী দামে বিশ্বমানের ফাইভজি হ্যান্ডসেট পাওয়া যাবে।

ফাইভজি পরীক্ষাকারী বিশ্বের প্রথম কয়েক দেশের মধ্যে বাংলাদেশ একটি । ২০১৮ সালের দিকে বাংলাদেশ যখন ওই পরীক্ষা চালায় তখন প্রযুক্তি বিশ্বে শক্তিশালী হাতেগোনা কিছু দেশ মাত্র ফাইভিজি পরীক্ষানিরীক্ষা করছিল।

সরকার পরিকল্পনা নিয়েছিল প্রথম দফায় ২০২১ সালের শুরুতে ঢাকায় ফাইভজি চালু করে ওই বছরেই সব বিভাগীয় শহরগুলোতে সেবা সম্প্রসারণ করার।

এরপর ২০২৩ সালের মধ্যে সব জেলা শহর এবং ২০২৬ সালের মধ্যে সব উপজেলা, গ্রোথ সেন্টার বা বড় হাটবাজার, বিশ্বরোড ও রেলে ফাইভজি সেবা দেয়া হবে।

ফাইভজি নিয়ে সরকারের খসড়া রোডম্যাপে দেশে ফাইভজি চালুর টাইমলাইনসহ বেশ কয়েকটি লক্ষ্য এমনই আছে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার টেকশহরডটকমকে জানান , ফাইজিতে যে স্পেকট্রামগুলো লাগবে তার কোনো কোনোটি ফ্রি দেয়া ছিল সেগুলো খালি করে ফেলা হয়েছে। এখন যদি ফাইভজি স্পেকট্রাম অকশন করতে চাওয়া হয় তাহলে সেই জায়গাটা মোটামুটিভাবে এগিয়েই আছে।

রোডম্যাপ তৈরিতে বিটিআরসি’র স্পেকট্রাম বিভাগের কমিশনার হাসান মোহাম্মদ আমিনুলকে আহবায়ক করে গঠন করা কমিটি ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে প্রথম বৈঠক করে। এরপর তারা আরও চারটি বৈঠক করেছে।

নীতিমালা প্রণয়ন করতে বিভিন্ন সময়ে মূল কমিটি খসড়া তৈরি করতে আরও আটটি উপ-কমিটি গঠন করে।

ইতিমধ্যে অবশ্য ফাইভজি বিষয়ে বড় দুটি প্রযুক্তি সরবরাহকারী কোম্পানি হুয়াওয়ে ও এরিকসনের কাছ থেকে তাদের প্রেজেন্টেশন নিয়েছে কমিটি।

জানা গেছে, বর্তমানে ২.৬ গিগাহার্জ, ৩.৫ গিগাহার্জ ইত্যাদি ব্যান্ডগুলো ফাইভজি সার্ভিসের জন্য জনপ্রিয় ব্যান্ড হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। সে জন্য বিটিআরসি’র কমিটি এই দুটি ব্যান্ডে ফাইভ জি চালুর বিষয়ে আলোচনা করছেন।

তবে আইটিইউ হতে ২৫০০-২৬৯০ মেগাহার্জ, ৩৩০০-৪২০০ মেগাহার্জ, ২৬-২৮ গিগাহার্জ, ৩২ গিগাহার্জ, ৩৮ গিগাহার্জ, ৪০ গিগাহার্জ এবং ৪৩ গিগাহার্জ ব্যান্ডসমূহে ফাইভজি প্রযুক্তির জন্য তরঙ্গ বরাদ্দ প্রদানের পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলে জানায় নিয়ন্ত্রণ সংস্থাটি।

এডি/২০২০/অক্টোবর১৫/১৬৩৫

আরও পড়ুন –

ফাইভজি নিয়ে শক্তিধর রাষ্ট্রগুলোর লড়াই, নিরাপদ পথ খুঁজছে বাংলাদেশ

ইনফোগ্রাফে ফাইভজি ও আইওটির ভবিষ্যৎ

ফাইভজির জন্য তৈরি হচ্ছে বিটিসিএল

ফাইভজি চালু হবে বিশ্বের সমানতালে : জয়

*

*

আরও পড়ুন