করোনার বিরুদ্ধে লাইট থেরাপির পরীক্ষা চলছে

ছবি: ইন্টারনেট থেকে নেওয়া

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: করোনাভাইরাস চিকিৎসায় আলোর ব্যবহার নিয়ে কাজ করছেন গবেষকরা। বিশেষ কিছু অসুখের ক্ষেত্রে লাইট থেরাপির ব্যবহার চলে আসছে অনেক দিন ধরে। করোনার বিরুদ্ধে একই রকম থেরাপির কার্যকারিতা খতিয়ে দেখতে কয়েকটি গবেষণা চলছে।

করোনার বিরুদ্ধে লাইট থেরাপির বিষয়টি আলোচনায় আসে এপ্রিলের শেষের দিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একটি মন্তব্যের জের ধরে। তার মন্তব্যটি অনেক হাস্যরসের জন্ম দিলেও কিছু গবেষক মনে করেন বিষয়টি খতিয়ে দেখতে দোষের কিছু নেই। কারণ যক্ষ্মা ও জন্ডিসের চিকিৎসায় লাইট থেরাপির সাফল্য অজানা নয়।

মেসাচুসেটসের বিরগ্রাম অ্যান্ড উইমেন্স হসপিটালের কোভিড ইনোভেশান সেন্টারের সহ-ব্যবস্থাপক গিয়েরমো টিয়েরনি মতে, আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় কাজে আসতে পারে এমন যে কোনও উপায় খতিয়ে দেখতে ক্ষতির কিছু নেই।

Techshohor Youtube

তার মতে, এটি একটি নিরাপদ প্রযুক্তি এবং পরীক্ষা চালানোও সহজ। সুতরাং পদ্ধতিটি পরীক্ষা করে না দেখার কোনও কারণ নেই।

কানাডার নোভা স্কটিয়ার গবেষক ড. রয় টিংলি বিষয়টি পর্যবেক্ষনে একটি পরীক্ষা পরিকল্পনা করেছেন। ২৮০ জন কোভিড রোগীর ওপর এই পরীক্ষা চালানো হবে। এই পরীক্ষায় ভাইলাইট প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে যা নাক ও বুকের মাধ্যমে শরীরের ভেতরে রেড লাইট ও ইনফ্রারেড রে চালনা করে।

এসব রোগীর অর্ধেককে লাইট থেরাপি দেওয়া হবে, বাকী অর্থেককে প্রচলিত চিকিৎসা দেওয়া হবে। ফলাফল যদি আরোজ্ঞের সময়কে উল্লেখযোগ্যহারে কমিয়ে দিতে পারে তবে সেটি সাফল্য বলে বিবেচিত হবে।

তবে কিছু বৈজ্ঞানিকদের ধারনা এই ধরনের থেরাপি কোভিড আক্রান্ত হওয়ার পর রোগীর কমে যাওয়া রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে স্বাভাবিক পর্যায়ে আনতে সক্ষম হতে পারে।

উল্লেখ্য, কোনও প্রকার আলো থেরাপি করোনার বিরুদ্ধে কার্যকর হিসেবে প্রতীয়মান হয়নি। কিছু ধরনের অতিবেগুনী রশ্মি শরীরে মারাত্মক ক্ষতি বয়ে আনতে পারে। তাই এই ধরনের থেরাপি নেওয়া থেকে বিরত থাকতে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

এমআর/২০২০/অক্টোবর১২/০৯১৪

আরও পড়ুন –

মোবাইলের স্ক্রিনে করোনা ২৮ দিন পর্যন্ত থাকতে পারে

দেড় ঘণ্টায় করোনা টেস্ট, প্রযুক্তি নিয়ে আশাবাদী গবেষকরা 

বিল গেটস : করোনাভাইরাস আরও ১ বছর থাকবে

১ টি মতামত

*

*

আরও পড়ুন