Header Top

সরকারি কার্যক্রম জানা যাবে ফেইসবুকেও

a2i-techshohor

জামান আশরাফ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সরকারি কার্যক্রমের অনেকটাই ফেইসবুকে নিয়ে যেতে চাইছে সরকার। এ জন্য সরকারি কর্মকর্তাদেরকে শীর্ষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটির একটি গ্রুপের মাধ্যমে একই প্লাটফর্মে নিয়ে আসার কাজ চলছে।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকে একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে সব মন্ত্রনালয় এবং বিভাগকে। এতে সকল কর্মকর্তাদের ফেইসবুক গ্রুপটির সঙ্গে যুক্ত হওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) থেকে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এটুআই দাবি করছে, সরকারি পর্যায়ে কর্মকর্তাদেরকে একটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমের প্লাটফর্মে নিয়ে আসার এ কার্যক্রম বিশ্বে প্রথম।

আরও পড়ুন:  সরকারি কর্মকর্তাদের ই-সেবায় প্রশিক্ষণ দিতে এটুআই ও বিপিএটিসি’র চুক্তি

a2i-techshohor

 

ফেইসবুকে গ্রুপটির ঠিকানা

https://www.facebook.com/groups/publicserviceinnovationblog/ 

এটুআই জানিয়েছে, এ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তারা লক্ষাধিক সরকারি কর্মকর্তাদেরকে একটি প্লাটফর্মে আনতে চান। যেখানে মূলত উন্নয়ন, উদ্ভাবন, নীতিমালা এবং সরকারি সেবা সংক্রান্ত আলোচনা হবে।

কোনো রকম রাজনৈতিক আলোচনা এ প্লাটফর্মে স্থান পাবে না বলে জানিয়েছেন, এটুআই-এর আইটি বিষয়ক পরামর্শক মানিক মাহমুদ।

মাহমুদ জানান, মূলত ২০১০ সাল থেকে তারা আইডিয়াটি নিয়ে কাজ করলেও চলতি বছরের শুরু থেকে এ কার্যক্রম শুরু করেছেন। আর এ জন্য গত ১০ জুলাই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব আবুল কালাম আজাদ স্বাক্ষরিত একটি চিঠি সব মন্ত্রনালয় এবং সব সরকারি দফতরে পাঠানো হয়েছে যাতে সকল কর্মকর্তাকে ফেইসবুকের সঙ্গে যুক্ত হতে বলা হয়েছে।

ওই কর্মকর্তা জানান, যখন চিঠি পাঠানো হয় তখন এ ব্লগে ছিলেন ৩ হাজার ১৪৭ জন। গত বুধবার পর্যন্ত সেখানে আরও দেড় হাজার কর্মকর্তা যুক্ত হয়েছেন। প্রতিদিন তারা ৫০ থেকে ১০০ রিকয়েস্ট পাচ্ছেন বলেও জানান তিনি।

মাহমুদ দাবি করেন, এটি বিশ্বের প্রথম সরকারি পর্যায়ে সামাজিক মাধ্যম কেন্দ্রিক যোগাযোগ। বর্তমানে এখানে ৪০ জনের বেশি সচিবও যুক্ত রয়েছেন। তবে সচিবদের জন্যে আলাদা একটি প্লাটফর্মও আছে, যেখানে কেবল সচিবরাই যুক্ত হতে পারেন। সেক্ষেত্রে এ প্লাটফর্ম থেকে কোনো সুপারিশ আসলে তা সচিবদের প্লাটফর্মে ট্যাগ করে দেওয়া হয় এবং দ্রুত এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

ওই পরামর্শ আরও জানান, ২৪ ঘন্টা এবং সপ্তাহে সাত দিনই এ ফেইসবুক গ্রুপটি মডারেট করা হয়। ফলে কেউ অবান্তর কোনো পোস্ট দিলেও তা বাদ দিয়ে দেওয়া হয় সঙ্গে সঙ্গেই।

bangladesh gov logo_techshohor

তবে এমন কার্যক্রমের সমালোচনাও আছে। সরকারের খোদ আইসিটি বিষয়ক সবিচ এ কার্যক্রমের বিপক্ষে।

এক সময় এটুআই প্রকল্পের পরিচালক এবং বর্তমানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সচিব নজরুল ইসলাম খান এ বিষয়ে বলেন, তথ্যগত নিরাপত্তার জন্য বরং সরকার ভিন্ন কোনো ব্লগ তৈরি করতে পারতো। ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ চাইলেই এ সকল তথ্য দেখতে এবং পর্যালোচনা করতে পারবে।

এদিকে অপর এক কর্মকর্তা বলছেন, যেহেতু সরকার যুক্ত হওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে তাই তারা যুক্ত হবেন। কিন্তু এ জন্য তাদেরকে নতুন অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। কারণ আগের অ্যাকাউন্টে অনেক ক্ষেত্রে অনেক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরাও রয়েছেন। তাদের পোস্ট সরকার দেখলে সরকারি কর্মকর্তাদেরকেও রাজনৈতিক রং দেওয়া সহজ হবে।

এর আগে এটুআই তাদের সামাজিক যোগযোগ কেন্দ্রিক যোগাযোগের জন্য একটি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং প্রতিষ্ঠান নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয়। যারা মূলত ফেইসবুক, টুইটার এবং অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ রক্ষা করবে।

আরও পড়ুন:

উন্মুক্ত হচ্ছে টিম ইঞ্জিনের বাংলা ওসিআর, এটুআই দেবে বিনামূল্যে

ডিজিটাল বাংলাদেশকে জানাতে কূটনীতিকদের জন্য এটুআই’য়ের কর্মশালা

গ্রামে ভার্চুয়াল শপ স্থাপনে ৮ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে এটুআইয়ের চুক্তি

*

*

আরও পড়ুন