কর বসবে ওটিটি প্লাটফর্মে : তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। ছবি : সৌজন্যে
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বিদেশি সামাজিক মাধ্যম ও ওভার দ্য টপ (ওটিটি) প্লাটফর্মে কনটেন্ট ও বিজ্ঞাপন প্রচারকে নিয়মনীতি ও করের আওতায় আনার কথা জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। 

রোববার সচিবালয়ে ভিডিও কনফারেন্সে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় তিনি এমন কথা জানান। 

সভায় তথ্যমন্ত্রী ছাড়াও অংশ নেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, তথ্য প্রতিমন্ত্রী মো. মুরাদ হাসান, ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব মো. নূর-উর-রহমান, বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ, বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হকসহ আরও কয়েকজন।

সাম্প্রতিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং ওভার দ্য টপ (ওটিটি) প্লাটফর্ম বা ইন্টারনেটের মাধ্যমে অডিও-ভিডিওসহ নানা কনটেন্ট প্রচার অনেক বেড়েছে বলে জানান তথ্যমন্ত্রী। 

মন্ত্রী বলেন, সমগ্র পৃথিবীতে এ ধরণের প্লাটফর্ম ব্যবহার করে বিনোদন থেকে শুরু করে নানা কনটেন্ট স্ট্রিমিং হচ্ছে, আমাদের দেশেও হচ্ছে। কিন্তু আমরা দেখতে পেয়েছি, এ নিয়ে নানা বিতর্ক হয়েছে, সেন্সরবিহীন কনটেন্ট প্রদর্শিত হয়েছে এবং এক্ষেত্রে সরকার ঠিকভাবে ট্যাক্স পাচ্ছে না।

সেন্সরবিহীন কনটেন্ট স্মার্টফোনের মাধ্যমে সবাই দেখার সুযোগ পাচ্ছে, তাই সমাজ অস্থিতিশীল করারও সুযোগ থাকে বলে মনে করেন তিনি। এমনকি এসব মাধ্যম ব্যবহার করে গুজব রটানো, সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা-হাঙ্গামা তৈরির চেষ্টা করা হয়েছে বলে জানান।

যারা সরকারের অনুমতি না নিয়ে এ ধরণের ব্যবসা করছে, তাদের বিষয়ে কী ব্যবস্থা, আর কেউ যদি অনুমতি নিয়ে ব্যবসারত কিন্তু অননুমোদিত কনটেন্ট প্রচার করে, তাদের ব্যাপারে কী ব্যবস্থা নেয়া যেতে পারে সেগুলোও ভেবে দেখার কথা বলেন তিনি।

এমনকি কনটেন্ট প্রচার নিয়ে গ্রামীণফোন এবং রবি’র কাছে ব্যাখ্যা চাওয়ার বিষয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, গ্রামীণফোন যে উত্তর দিয়েছে সেখানে ঠিকভাবে ব্যাখ্যা নেই, আর রবি উত্তর প্রস্তুত করছে বলে জানিয়েছে।

প্লাটফর্মগুলোকে একটি নীতির আওতায় আনতেই সভাটি করা হয়েছে। 

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ওটিটি প্লাটফর্ম একটি ক্রমবর্ধমান ক্ষেত্র এবং এখানে হাজার হাজার কোটি টাকার ব্যবসার সুযোগ রয়েছে, যা অবশ্যই করযোগ্য। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও অন্যান্য প্লাটফর্ম যেমন নেটফ্লিক্স, ইউটিউব প্রভৃতির কাছে দেশের অনেক অর্থ চলে যাচ্ছে, কিন্তু সেখান থেকে সরকার যেভাবে ট্যাক্স পাওয়ার কথা তা পাচ্ছে না।

যেকোনো দেশেই শুরুতে তারা এতে কর নেয়নি, কিন্তু পরে তা করের আওতায় এনেছে বলে জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ভারতে ওটিটি প্লাটফর্মে অন্য দেশের কন্টেন্ট দেখানোর ক্ষেত্রে নানা আইন-কানুন, নিয়ম-নীতি প্রবর্তন হয়েছে। ভারতে চালু থাকার জন্য ফেইসবুক ভারতীয় কোম্পানী হিসেবে রেজিস্টার্ড হয়েছে। আমাদের দেশে এখনও রেজিস্টার্ড হয়নি, তবে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের ক্রমাগত প্রচেষ্টায় তারা একজন এজেন্ট নিয়োগ করেছে।

ডাক ও টেলিযোগযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, আমাদের সামাজিক, সাংস্কৃতিক মূল্যবোধ, রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাসহ সকল বিষয়ে আমরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও ওটিটি প্লাটফর্ম পরিচালকদের দায়িত্ববোধ প্রত্যাশা করি। আমাদের দেশের আইন ও সংস্কৃতিকে সম্মান দিয়েই তাদেরকে ব্যবসা পরিচালনা করতে হবে।

কাজগুলো করার লক্ষ্যে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (সম্প্রচার)-কে আহ্বায়ক করে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। ‘

সেখানে রয়েছেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড, বিটিআরসি এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন করে প্রতিনিধি ও একজন আইন বিশেষজ্ঞ।

ইএইচ/জুলাই০৫/২০২০/১৯৩৩

আরও পড়ুন – 

‘অশ্লীল’ ভিডিও প্রচারের অভিযোগ, জিপি-রবিকে ব্যাখ্যা চেয়ে নোটিশ 

*

*

আরও পড়ুন