ভোল্টি চালু করলো গ্রামীণফোন

গ্রামীণফোনের প্রধান কার্যালয় জিপি হাউজ। ছবি : টেকশহর
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর :  মোবাইলে কথা বলার সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ভয়েস ওভার এলটিই বা ভোল্টি চালু করেছে গ্রামীণফোন।

অপারেটরটির গ্রাহকরা শনিবার সন্ধ্যা হতেই এই সেবা নিতে পারছেন। অপারেটরটির নিয়মিত কলরেটেই এই ভোল্টি সেবা পাওয়া যাবে।

মূলত ফোরজি বা এলটিই নেটওয়ার্কে কথা বলার প্রযুক্তি হলো এই ভয়েস ওভার এলটিই, ভোল্টি, ভোল্টে বা ভোল্ট (VoLTE)।

ভোল্টিতে এইচডি ক্রিস্টাল ক্লিয়ার মানে কথা বলা যায়। যা উপভোগ করা যায় অডিও-ভিডিও দুটিতেই।

সাধারণ মোবাইল নেটওয়ার্কে কল করলে তা কানেক্ট হতে ৯ হতে ১১ সেকেন্ড সময় নেয়। ভোল্টিতে এটি দু-তিন বা চার সেকেন্ড লাগে। সাধারণ নেটওয়ার্কে মোবাইলে ভয়েসে আসা-যাওয়ার মাঝখানে যে ডিলে থাকে সেটি ভোল্টিতে থাকবে না। মানে ইন্সট্যান্ট একদম মুখোমুখি কথা বলার মতো এটি আদান-প্রদান হয়। কথা বলতে গিয়ে কেটে কেটে যাওয়ার বিষয়টি একদম থাকে না।

কলড্রপ কমে যায়। মোবাইলের ব্যাটারির চার্জ খরচ হয় অনেক কম। এছাড়া প্রচলিত সুইচ প্রযুক্তির বদলে এই প্রযুক্তিতে ভয়েস কল প্রতি অপারেটরগুলোর খরচও কম পড়ে।

তবে ভোল্টিতে যিনি কথা বলবেন তার ফোনকে ফোরজি সাপোর্ট তো করতেই হবে সঙ্গে ভোল্টিও সাপোর্ট করতে হবে।

দেশে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে এই সেবা গ্রাহকদের দেয়া শুরু করে রবি। এবার গ্রামীণফোন এই সেবা আনায় ব্যাপকভাবে গ্রাহকরা এই সুবিধা পাবেন।

কারণ এক অপারেটর হতে অন্য অপারেটরে ভোল্টিতে কথা বলতে হলে দুই অপারেটরেই ভোল্টি সুবিধা থাকতে হবে।

তবে গ্রামীণফোন বলছে আপাতত গ্রামীণফোন হতে গ্রামীণফোনে কলেই এই সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে।

এডি/২০২০/জুন২০/২১২০

*

*

আরও পড়ুন