অনলাইনে বিদেশি পত্রিকা বই পড়তেও ১৫% ভ্যাট

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অনলাইনে বিদেশি কোনো পত্রিকা, বই বা জার্নাল পড়তে গেলেও ১৫ শতাংশ ভ্যাট দিতে হবে।

নতুন বাজেটের পর অনলাইন সেবায় ভ্যাট আদায়ে পরিধি ও তৎপরতা বাড়িয়েছে এনবিআর। এরপর ব্যাংকগুলো যে অনলাইন সেবার তালিকা করেছে সেখানে লন্ডন জার্নালস, গার্ডিয়ান নিউজ অ্যান্ড মিডিয়া, নিউইয়র্ক টাইমস, ওয়ালস্ট্রিট জার্নাল, হার্ভার্ড বিজনেস রিভিউ, ইউএসনিউজ, ফ্রেশবুকস, ই-বুকের মতো সেবাগুলো রাখা হয়েছে। 

গ্রাহকদের পাঠানো ব্র্যাক ব্যাংকের একটি তালিকায় দেখা যায়, এসব পত্রিকা-সংবাদমাধ্যম ও বই পড়ার মতো সেবাগুলোসহ জুম, টিকটক, স্কাইপে, লিঙ্কইন, হইচই, অ্যামাজন প্রাইম, নেটফ্লিক্স, হইচই, এইচবিও নাউ, শোটাইম, জি৫, টুইটার এডস, জয়েনমিসহ ৭৬ টি সেবায় ভ্যাট আদায়ের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

ব্র্যাক ব্যাংকের চিঠিতে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালের জুন হতে অনলাইনে নেয়া এসব সেবার বিপরীতে ভ্যাট কাটা হতে পারে যদি এনবিআর নির্দেশনা দেয়।

যদিও ২০১৯-২০২০ বাজেটের আগেই গুগল, ফেইসবুক ও ইউটিউবের ভ্যাট কাটছিলো ব্যাংকগুলো।শুধু গুগল, ফেইসবুক, ইউটিউবের ক্ষেত্রে ভ্যাট আদায়ে বেশি চেষ্টা করতো ব্যাংকগুলো। কিন্তু এগুলোসহ অন্যসব সেবায় ঠিকঠাক রাজস্ব মিলছে না দেখে নতুন করে বাংলাদেশ ব্যাংককে সব ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা দেয়ার অনুরোধ করেছে এনবিআর।

নতুন  বাজেট ঘোষণার দিন ১১ জুন এনবিআরের গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর (মূসক) বাংলাদেশ ব্যাংককে ওই চিঠি দেয়।

আর এর এক সপ্তাহ আগে ব্যাংকগুলোর কাছে নেটফ্লিক্সসহ এসব অনলাইন সেবার বিপরীতে ভ্যাট কাটা হয়েছে কিনা তার বছরভিত্তিক হিসাব প্রমাণসহ চেয়ে সব ব্যাংককে চিঠি দেয় এনবিআর।

এনবিআরের উপ-কমিশনার ও বিভাগী কর্মকর্তা (বিভাগ-২) উপল চাকমা স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়, ব্যাংকগুলো যদি এখনও ভ্যাট না কাটে তাহলে এই ভ্যাট কাটা ও আদায়ের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে এনবিআরকে জানাবে।

এনবিআর হতে ভ্যাট কাটার প্রমাণ চেয়ে চিঠি পাওয়ার পরই ব্যাংকগুলো তাদের গ্রাহককে চিঠি দিতে শুরু করে।

যেখানে কোনো কোনো ব্যাংক সেবার তালিকা উল্লেখ করে আবার কোনো কোনো ব্যাংক কয়েকটি সেবার নাম দিয়ে এমন সব সেবার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হিসেবে উল্লেখ করেছে।

এডি/২০২০/জুন১৮/১৫৩৫

*

*

আরও পড়ুন