Techno Header Top

মাছ শিকারি ও কৃষকের ত্রাতা ই-কমার্স

মাছ ব্যবসায়ীদেরকে স্বস্তি দিয়েছে ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম। ছবি : ইন্টারনেট
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : লকডাউনে অনেক দেশেই কাঁচাবাজার বন্ধ রয়েছে। কিন্তু গৃহবন্দী মানুষের চাহিদা থেমে নেই। তাই ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকা স্বত্বেও অনলাইনে চলছে বেচাকেনা।

ই-কমার্স খাতের কল্যাণেই এ সেতুবন্ধন সম্ভব হয়েছে। ফলে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মাছ ব্যবসায়ী বা কৃষকদেরকে ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে না। সরকারি নির্দেশে কাঁচা বাজার বন্ধ থাকলেও অনলাইনে চলছে বেচাকেনা।

মালয়েশিয়ায় দেশজুড়ে যখন লকডাউন শুরু হয় তখন ক্যামেরন হাইল্যান্ডস এলাকার কৃষকরা কয়েক টন শাক সবজি ফেলে দিতে বাধ্য হয়েছিলেন। পরে ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে তারা ক্রেতাদের কাছে পণ্য পৌঁছাতে সক্ষম হন।

স্টিভ টিওহ ভুট্টা ও ফুল চাল করেন। তিনি জানান, লকডাউন শুরু হওয়ার পর সব ফুলের দোকান বন্ধ হয়ে যাওয়ায় রাতারাতি চাহিদা কমে যায়।

এরপর সিঙ্গাপুরের ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম লাজাদা অনলাইনে ফুল বিক্রিকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তার যোগাযোগ করিয়ে দেয়। এতে করে তিনি নতুন ক্রেতা পেয়ে যান। তাই ফুল নষ্ট হওয়ার ভয়ে সেগুলো তাকে ফেলে দিতে হয়নি।

আরেক মাছ ব্যবসায়ী অড্রে অনলাইনে আসার আগে কাঁচা বাজারে সামুদ্রিক মাছ বিক্রি করতে পারছিলেন না। তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে ব্যবসার তো ক্ষতি হয়েছেই। এখন আর রেঁস্তোরায়, কফি শপে, পাইকারি মাছের বাজারে ও খুচরা বাজারে মাছ সরবরাহ করা যাচ্ছে না। অনলাইনে বিক্রি হচ্ছে বলেই আমরা টিকে আছি।

তাদের মতো আরও অনেক কৃষককে সাহায্য করে লাজাদা। ফলে লকডাউনের প্রথম সপ্তাহ শেষে প্ল্যাটফর্মটির মাধ্যমে দেড় টন সবজি বিক্রি হয়।

লাজাদা জানায়, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া অঞ্চলে জানুয়ারি থেকে মের মাঝামাঝি পর্যন্ত কাঁচা শাক সবজির চাহিদা দ্বিগুণ বেড়েছে।

কৃষকদেরকে নতুন ক্রেতার সন্ধান দিতে থাইল্যান্ড সরকারও লাজাদার সঙ্গে কাজ করছে। এছাড়াও, চীনের ই-কমার্স জায়ান্ট আলিবাবা শপিং সাইট তাওবাওয়ের লাইভ প্ল্যাটফর্ম কৃষকদের জন্য ফ্রি ঘোষণা করেছে। প্ল্যাটফর্মটির মাধ্যমে কৃষকরা ৪ কোটি ১০ লাখ ফলোয়ারের কাছে লাইভে পণ্য দেখাতে পারছেন।

বিবিসি অবলম্বনে এজেড/ জুন ০৭/২০২০/১২৪০

আরও পড়ুন –

অনলাইনে গ্রোসারি ডেলিভারি কার্বন নিঃসরণ কমায় ৪৩% : বেজস

অনলাইনেই হবে বিয়ে

অনলাইন বিজনেসের জন্য ফেইসবুক শপ চালু

*

*

আরও পড়ুন