অ্যামাজনের সিদ্ধান্তে ইলন মাস্কের আপত্তি

ইলন মাস্ক ও জেফ বেজস। ছবি : ইন্টারনেট
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অ্যামাজনের সঙ্গে সম্পর্ক ত্যাগের সময় এসেছে বলে মন্তব্য করেছেন টেসলার প্রতিষ্ঠাতা ইলন মাস্ক।

ঘটনা শুরু হয় এক লেখককে ঘিরে। লেখক অ্যালেক্স ব্যারেনসনের বই থেকে কিছু অংশ বাদ দেয় অ্যামাজনের ই-বুক প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান কিন্ডেল।

বইটি লেখা হয়েছে করোনাভাইরাস নিয়ে। এর কিছু অংশ কাটছাঁট করায় মনঃক্ষুণ্ন হয়ে টুইট করেছিলেন ব্যারেনসন। তিনি লেখেন, বইটি লেখা হয়েছে সরকার প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদন ও তথ্যের ভিত্তিতে। করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব নেই বা ভাইরাসটির কারণে মানুষের মৃত্যু হয় না এমন কিছু বইটিতে লেখা নেই। টুইট তিনি অ্যামাজনের বার্তা সম্বলিত একটি স্ক্রিনশটও দেন। সেখানে লেখা, প্যান্ডামিক নিয়ে লেখা বইটি তাদের নীতিমালার শর্ত পূরণ করেনি। 

এই স্ক্রিনশট ইলন মাস্কের চোখে পড়ে। এরপরই তিনি ব্যারেনসনের পক্ষ নেন। টুইটে অ্যামাজনের সিইও জেফ বেজসকে ট্যাগ করে লেখেন, অস্বাভাবিক সিদ্ধান্ত। অ্যামাজন থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার সময় এসেছে।

অ্যামাজনের ভাষ্য, বইটিতে ভুল তথ্য ছিল, তাই ওই অংশগুলো বাদ দেওয়া হয়। তথ্য সংশোধনের পর সেগুলো বইয়ে যুক্ত করা হবে।

ইলন মাস্ক ও জেফ বেজস দুজনেরই মহাকাশ যান নির্মাণের কোম্পানি আছে। সে কারণে তারা একে অপরের প্রতিদ্বন্দ্বী। ২০০২ সালে ইলন মাস্ক স্পেসএক্স প্রতিষ্ঠা করেন। এর দুই বছর পর ব্লু অরিজিন প্রতিষ্ঠা করেন জেফ বেজস।

গত বছর মঙ্গল গ্রহে কলোনি স্থাপন বিষয়ে মাস্কের সমালোচনা করেন বেজস। তিনি বলেন, কে কে মঙ্গলে বসতি গড়তে চান? এক কাজ করুন, মাউন্ট এভারেস্টের একদম চূড়ায় এক বছর কাটিয়ে আসুন। দেখুন থাকতে ভালো লাগে কিনা। এটা কিন্তু মঙ্গল গ্রহের তুলনায় স্বর্গ।

বিবিসি অবলম্বনে এজেড/ জুন ০৭/২০২০/১০৪০

*

*

আরও পড়ুন