মাইক্রোসফটের সুপার কম্পিউটার তৈরি করবে বুদ্ধিমান এআই

সুপারকম্পিউটার তৈরি করেছে মাইক্রোসফট। ছবি : ইন্টারনেট
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : এআইয়ের উন্নতি ঘটাতে সুপারকম্পিউটার তৈরি করেছে মাইক্রোসফট। এটি তৈরি করতে মাইক্রোসফট অংশীদারিত্ব করে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স তৈরির স্টার্টআপ ওপেন এআইয়ের সঙ্গে।

মঙ্গলবার বিল্ড ২০২০ ডেভেলপার সম্মেলনে মাইক্রোসফট জানিয়েছে, বিশ্বের সেরা ৫০০ সুপারকম্পিউটারের মধ্যে তাদেরটি র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষ ৫ এ জায়গা করে নিয়েছে। মাইক্রোসফটের ১ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগে তৈরি সুপারকম্পিউটারটিতে আছে ২ লাখ ৮৫ হাজার কোর, ১০ হাজার জিপিইউ। প্রতিটি জিপিইউ সার্ভারের নেটওয়ার্ক কানেক্টিভিটি সেকেন্ডে ৪০০ গিগাবিটস। সুপারকম্পিউটারটি কানেক্টেড থাকবে মাইক্রোসফটের ক্লাউড প্ল্যাটফর্ম আজুরের সঙ্গে।

কী কাজ করবে?

মেশিন লার্নিং প্রযুক্তি তৈরি করা হয় আলাদা ও ছোট এআই মডেলের উপর ভিত্তি করে। একটি কাজ শেখাতে অনেক ডেটা প্রবেশ করাতে হয় সফটওয়্যারে। যেমন ভাষা অনুবাদ, কোনো জিনিস চেনানো বা বিশাল ইমেইল থেকে নির্দিষ্টি কিছু অংশ খুঁজে বের করতে ছোট এআই মডেল ব্যবহার করা হয়।

তবে এখন এই কাজগুলো আরও দ্রুত ও দক্ষতার সঙ্গে করার জন্য সিঙ্গেল ম্যাসিভ মডেল তৈরি করেছেন গবেষকরা। এই ধরণের মডেল কয়েকশ’ কোটি পেইজ যাচাই বাছাই করে ভাষাগত দক্ষতা বৃদ্ধি করতে পারে। ভাষা জ্ঞান যত বাড়তে থাকবে তত বেশি বুদ্ধিমান হবে এআই। যেমন অতি সূক্ষ্ম ব্যাকরণগত পার্থক্য, কোন প্রসঙ্গে কী কাজ করা হচ্ছে ও কনসেপ্ট সম্পর্কে বুঝতে পারে।

সুপার কম্পিউটারে বড় এআই মডেল ব্যবহারের মাধ্যমে সার্চ ইঞ্জিন বিংসহ অন্যান্য সেবার মানোন্নয়ন ঘটাতে চাচ্ছে মাইক্রোসফট।

বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী কম্পিউটিং মেশিন হলো সুপার কম্পিউটার। ভবিষ্যতের জলবায়ু কেমন হবে, কোন অঞ্চলে গ্যাস ও তেলের মতো খনিজ পদার্থ আছে তার ম্যাপ তৈরীর কাজ করে থাকে সুপার কম্পিউটার। বর্তমানে করোনাভাইরাসের ওষুধ আবিষ্কারে একে কাজে লাগানো হচ্ছে।

ইন্টারনেট অবলম্বনে এজেড/মে ২১/২০২০/১২৩০

*

*

আরও পড়ুন