Samsung IM Campaign_Oct’20

যেসব অ্যাপে ফ্রিতে গান শোনা যায়

spotify-techshohor
মিউজিক স্ট্রিমিং অ্যাপ স্পটিফাই। ছবি : ইন্টারনেট
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অনেকে মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিসই এখন ফ্রিতে সেবা দেয়। তবে বিজ্ঞাপনবিহীন, বিশাল গানের ভাণ্ডার ও গানের বিটরেট বাড়ানোর সুযোগ চাইলে পেইড সেবাই নিতে হবে।

অ্যামাজন প্রাইম মিউজিক, স্পটিফাই ফ্রি, ইউটিউব মিউজিক, প্যান্ডোরা, লাইভএক্সলাইভ ও ডিজার অ্যাপ দিয়ে আইওএস ও অ্যান্ড্রয়েড প্ল্যাটফর্মে ফ্রিতে গান শোনা যায়।

তবে লাইভএক্সলাইভ ছাড়া কোনোটাতেই বাংলাদেশ থেকে সাইন আপ করার সুযোগ নেই। তবে টেকশহরের প্রবাসী পাঠকরা চাইলে অ্যাপগুলো দিয়ে গান শুনতে পারেন।

অ্যামাজন প্রাইম মিউজিক

অ্যামাজনের শুধু প্রিমিয়ার গ্রাহকরাই ফ্রিতে এই সেবা পেয়ে থাকেন। এতে প্রায় ৫ কোটির বেশি গান রয়েছে। প্রাইম ব্যবহারকারীরা চাইলে ২০ লাখ গান শুনতে পারবেন। অফলাইনেও গানগুলো শোনা যাবে। গান শোনার সময় কোনো বিজ্ঞাপনের যন্ত্রনা পোহাতে হবে না।

স্পটিফাই ফ্রি

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় স্ট্রিমিং সার্ভিস এটি। রক, পপ, মেলডি, নতুন, পুরানো সব মিলিয়ে এর ভাণ্ডারে রয়েছে সাড়ে চার কোটি গান।

গানের মান কেমন হবে তা নির্ধারণে ৫টি ভিন্ন ক্যাটেগরি বেছে নেওয়া যায়। এগুলো হলো লো, নরমাল, হাই, ভেরি হাই ও অটোমেটিক (ইন্টারনেটের স্পিডের উর নির্ভর করে)।

ইউটিউব মিউজিক

হাই কোয়ালিটির গান স্মার্টফোনে শোনার জন্য সেরা অ্যাপ এটি। কারণ সার্চ করে এতে সহজেই গান খুঁজে পাওয়া যায়। নানান দেশের গান থাকলেও এর প্রধান সমস্যা মাত্রারিক্ত বিজ্ঞাপন।

প্যান্ডোরা

অ্যাপটি থেকে থিম অনুযায়ী গান বেছে নেওয়ার সুযোগ আছে। গায়কদের নামের তালিকা বেছে নিলে অ্যাপটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্যবহারকারীর পছন্দ বুঝে গান সাজেস্ট করে। অ্যাপটিতে নিয়মিত বিজ্ঞাপন দেখানো হয়। এতে গান রয়েছে ৩ কোটির বেশি।

লাইভএক্সলাইভ

এতে টিকেট  কিনে লাইভ কনসার্ট শোনার ব্যবস্থা রয়েছে। চাইলে এখানে ভিডিও দেখা যায়। আগে অ্যাপটির নাম ছিল স্ল্যাকার অ্যাপ। পরে ২০১৭ সালে স্ল্যাকারকে অধিগ্রহণ করে লাইভএক্সলাইভ। ফলে অ্যাপটির নাম পাল্টে যায়।

ডিজার

প্যারিসভিত্তিক কোম্পানিটির ভাণ্ডারে রয়েছে ৫ কোটি ৬০ লাখ গান। প্রতি ঘণ্টায় এতে ৫টি করে গান স্কিপ করা যায়। এমপিথ্রি অডিও গানের মান ১২৮ কেবিপিএস।

ইন্টারনেট অবলম্বনে এজেড/মে ১৮/২০২০/১২৩০

আরও পড়ুন –

অনলাইন স্ট্রিমিংয়ের ৯ অ্যাপ

মিউজিক স্ট্রিমিংয়ের বিপক্ষে ব্লু!

মিউজিক অ্যাপে বেঁচে থাকলো আইটিউন

*

*

আরও পড়ুন