Samsung IM Campaign_Oct’20

ম্যাকের ৭ অজানা ফিচার

ম্যাকবুক এয়ার। ছবি : ইন্টারনেট
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অ্যাপলের ম্যাক কম্পিউটারে এমন অনেক ফিচার আছে যেগুলো বেশ কাজের। তবে এই ফিচারগুলো সম্পর্কে অনেকের ধারণা নেই।

ফলে বছরের পর বছর ধরে এগুলো অব্যবহৃতই থেকে যায়। এসব অচেনা ফিচার নিয়েই সাজানো হলো এবারের আয়োজন।

ইমোজি

আইফোনের মতো ম্যাক কম্পিউটারেও আছে ইমোজি কিবোর্ড। এই ইমোজিগুলো পেতে কিবোর্ডের কয়েকটি বাটন চাপতে হবে। Control+Command+Space bar চাপলেই ইমোজির ভাণ্ডার সামনে চলে আসবে। চাইলে সার্চ বারে গিয়েও খোঁজা যাবে পছন্দের ইমোজি।

 ম্যাকে ডার্ক মোড

আইফোন ও আইপ্যাডে ডার্ক মোড যুক্ত হওয়ার অনেক আগে থেকেই ম্যাকে ফিচারটি রয়েছে। ম্যাকে ডার্ক মোড অন করলে সব অ্যাপের ইন্টারফেইস কালো হয়ে যাবে। রাতের বেলা এই ফিচারটির ব্যবহার চোখকে আরাম দেবে।

ম্যাকে ডার্ক মোড অন করতে প্রথমে System Preferences ওপেন করতে হবে। এরপর General এ ক্লিক করতে হবে। সেখানে Light, Dark ও Auto এই ৩ অপশন দেখা যাবে। অটো অপশনটি বেছে নিলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে দিনে Light ও রাতে Dark মোড সেট হয়ে যাবে।

পরিবর্তনশীল ওয়ালপেপার

ম্যাকে চাইলে সকাল, বিকাল ও রাতে ৩টি ভিন্ন ওয়ালপেপার ব্যবহার করা যাবে। পরিবর্তনশীল ওয়ালপেপার পেতে প্রথমে System Preferences ওপেন করে Desktop & Screen Saver অপশনে ক্লিক করতে হবে। এরপর যেকোনো ৩টি ছবির একটি বেছে নেওয়া যাবে। ডাইনামিক ডেক্সটপ পিকচারস হিসেবে পরিচিত ছবিগুলো সারাদিন ধরেই পরিবর্তন হতে থাকবে। সময় অনুযায়ী যাতে পরিবর্তন হয় তা নিশ্চিত করতে কম্পিউটারকে লোকেশন জানাতে হবে। এতে করে সকালে দ্বীপের ছবি, সন্ধ্যায় সূর্যাস্তের ছবি ও রাতে আকাশের ছবি দেখা যাবে।

সহজে স্ক্রিনশট নেওয়ার উপায়

ম্যাকে কয়েকটি কিবোর্ড শর্টকাট ব্যবহার করেই স্ক্রিনশট নেওয়া যায়। যেমন CMD+Shift+3 বাটন চাপলে পুরো ডিসপ্লের পুরোটাই স্ক্রিনশট হিসেবে সেইভ করা যাবে।CMD+Shift+4 বাটন চাপলে যতটুকু প্রয়োজন ঠিক ততটুকু জায়গার স্ক্রিনশট নেওয়া যাবে। CMD+Shift+5 বাটন প্রেস করলে স্ক্রিনশট নেওয়া ক্ষেত্রে আরও বেশি নিয়ন্ত্রণ পাওয়া যাবে। কারণ এই শর্টকাট ব্যবহারের সঙ্গে সঙ্গে একটি টুলবার চলে আসবে।

ডকুমেন্ট সাইন

ম্যাকে থার্ড পার্টি অ্যাপ দিয়ে ডকুমেন্ট সাইন করার প্রয়োজন নেই। কারণ ম্যাকে বিল্ট ইন হিসেবে আছে প্রিভিউ অ্যাপ। এতে প্রথমে ডকুমেন্টটি ওপেন করে পেন আইকনে ক্লিক করতে হবে। signature box এ ক্লিক করে Signature তৈরি করতে হবে। কাজটি করতে সাদা একটি কাগজে সিগনেচার দিয়ে তা ম্যাক ক্যামেরার সামনে ধরতে হবে। সিগনেচারটির ছবি উঠলে তা ড্র্যাগ করে ডকুমেন্টে বসানো যাবে। চাইলে আইফোনের  স্ক্রিনে সিগনেচার করেও তা ডকুমেন্টে বসানো যাবে।

ফাইলের নাম পরিবর্তন

একসঙ্গে অনেক ফাইলের নাম পরিবর্তন করা বেশ সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। তবে ম্যাকে কাজটি খুব সহজেই করা যায়।

যে ফাইলগুলোর নাম পরিবর্তন করতে চান সেগুলোর ফোল্ডার প্রথমে ওপেন করতে হবে। ফাইলগুলো সিলেক্ট করতে প্রথম ফাইলে ক্লিক করে shift বাটন চেপে ধরে শেষ ফাইলটিতে ক্লিক করতে হবে।

এরপর হাইলাইটেড হওয়া ফাইলগুলোর উপরে রাইট বাটন ক্লিক করে সিলেক্ট করতে হবে Rename x Files। এরপর ৫টি বক্সের তথ্য পূরণ করে Rename বাটনে ক্লিক করলেই ফাইলগুলোর নাম পরিবর্তন হয়ে যাবে।

সেকেন্ড ডিসপ্লে আইপ্যাড

আইপ্যাডকে ম্যাকের সেকেন্ড ডিসপ্লে হিসেবে ব্যবহারের সুবিধা দিতে গত বছর সাইডকার ফিচার আনে অ্যাপল। এই ফিচার দিয়ে তার ছাড়াই ম্যাক ও আইপ্যাডের সংযোগ ঘটানো যায়। ফিচারটি ব্যবহার করতে ম্যাকওএস ক্যাটালিনা ইনস্টল্ড থাকতে হবে ম্যাকে। আইপ্যাডে ইনস্টল্ড থাকতে হবে আইপ্যাডওএস ১৩।

আইপ্যাডকে সেকেন্ড ডিসপ্লে হিসেবে ব্যবহার করতে মেনু বারে গিয়ে এয়ারপ্লে আইকনে ক্লিক করতে হবে। এরপর আইপ্যাড connect এর অপশনে ক্লিক করতে হবে। এতে ম্যাকের ডিসপ্লে আইপ্যাডে দেখা যাবে।

ইন্টারনেট অবলম্বনে এজেড/ মে ০৫/২০২০/ ১২৫৫

আরও পড়ুন –

উইন্ডোজ ও ম্যাকওএসে এলো ম্যাসেঞ্জার অ্যাপ

ম্যাক প্রো যখন চিজ গ্রেডার

*

*

আরও পড়ুন