গুগল ছাড়ার পর কী করছেন এরিক স্মিথ?

গুগলের সাবেক সিইও এরিক স্মিথ। ছবি : ইন্টারনেট
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গুগলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে ২০০১ সাল থেকে ২০১১ পর্যন্ত করেছেন এরিক স্মিথ। গত বছর পর্যন্ত তিনি গুগলের বোর্ডে ছিলেন।

তিনি অবশ্য নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছেন প্রযুক্তির পরামর্শক হিসেবে এবং যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা কমিউনিটির বিনিয়োগকারী হিসেবে পরিচিত তিনি। 

যুক্তরাষ্ট্রের পত্রিকা দ্য নিউইয়র্ক টাইমস তার নতুন একটি প্রোফাইল প্রকাশ করেছেন। আপনি যদি গুগলের সাবেক এই প্রধান নির্বাহীর নতুন প্রোফাইল ও কাজকর্ম সম্পর্কে জানতে আগ্রাহী হোন তবে চলুন দেখি কী করছেন তিনি। 

 স্মিথ দীর্ঘদিন থেকেই প্রতিরক্ষা কাজে প্রযুক্তি এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার নিয়ে পরামর্শ দিয়ে আসছিলেন। এখন তিনি সরকারকেও সে বিষয়ে পরামর্শ দিচ্ছেন। একই সঙ্গে তিনি এই খাতে বিনিয়োগও করেছেন। 

নিউইয়র্ক টাইমসের মতে, তিনি এখন সরকারের দুটি বোর্ডের পরামর্শক হিসেবে কাজ করছেন। প্রতিরক্ষা বিভাগে প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানো এবং ব্যক্তিগতভাবে বিনিয়োগ করেছেন সামরিক খাতের প্রযুক্তি স্টার্টআপে।

সেসব প্রযুক্তির অনেকগুলোই বিতর্কিত। তিনি যখন গুগল ছাড়লেন, স্মিথ বিনিয়োগ করলেন রিবিলিয়ন ডিফেন্সে। এই স্টার্টআপটি ড্রোনের করা ভিডিও বিশ্লেষণ করে। এটি অনেকটাই বিতর্কিত প্রকল্প ম্যাভেনের মতোই। শ্যাভেন প্রকল্পের মাধ্যমে গুগল চেয়েছিল পেন্টাগনের সঙ্গে কাজ করতে। যেখানে যুদ্ধক্ষেত্রে ব্যবহার হয় এমন ড্রোনের ফুটেজ সফটওয়্যারের মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিশ্লেষণ করা প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করতে। তবে কর্মীদের চাপের ফলে গুগল পুনরায় চুক্তিতে না গিয়ে সেই প্রকল্প থেকে সরে আসতে বাধ্য হয়েছিল। 

ঠিক এই সময়ে গুগল ছেড়ে স্মিথের সরকারের সেসব উপদেষ্টা কমিটিগুলোতে সম্পৃক্ততা নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়েছে। একে গুগলের প্যারেন্ট কোম্পানি অ্যালফাবেট স্মিথের ‘কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্ট’ হিসেবে দেখছে। 

 স্মিথ যদিও গুগলের বোর্ড ছেড়ে এসেছেন কিন্তু তারপরও অ্যালফাবেটে তার শেয়ার রয়েছে ৫৩০ কোটি ডলারের। এছাড়াও তিনি কোম্পানিটির পরামর্শক হিসেবে কাজ করতে প্রতিবছর সম্মানী হিসেবে এক মার্কিন ডলার করে পান।

সমালোচকরা মনে করেন, সাবেক গুগল প্রধান তার ব্যক্তিগত প্রভাব কাজে লাগিয়ে অ্যালফাবেটের প্রযুক্তিগুলোকে সংগঠনর দিকে নিয়ে যেতে পারেন। কিন্তু স্মিথ বলেন, তিনি ‘কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্ট’ এড়িয়ে চলার নীতি গ্রহণ করেছেন।  

 স্মিথকে নিয়ে বিভিন্ন সময় কথা বলেছেন অনেকেই। তবে প্রযুক্তিতে এতো বড় মাপের প্রোফাইল আসলেই দুর্লভ। তিনি খুব দক্ষ ব্যবস্থাপক হিসেবেও পরিচিত। 

ইন্টারনেট অবলম্বনে ইএইচ/ মে০৫/২০২০/ ১৩১০

আরও পড়ুন – 

পেন্টাগনের এআই প্রজেক্ট থেকে সরে আসছে গুগল

গুগলের নীতিমালা থেকে উধাও ‘ডোন্ট বি ইভিল’ বাক্য

*

*

আরও পড়ুন