অ্যাশটন কুচারের জীবন বাঁচান ইনস্টাগ্রামের সহ-প্রতিষ্ঠাতা

অভিনেতা অ্যাশটন কুচার। ছবি : ইন্টারনেট

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : হলিউড অভিনেতা অ্যাশটন কুচার অনেক আগে থেকেই বিভিন্ন প্রযুক্তি ব্যবসায় বিনিয়োগ করে আসছেন। এ পর্যন্ত বিভিন্ন স্টার্টআপে তার বিনিয়োগ ৩০০ কোটি ডলার।

স্পটিফাই, এয়ারবিএনবি ও পাথের মতো বড় বড় স্টার্টআপে তার বিনিয়োগ আছে। সে সূত্রেই ২০১১ সালে ইনস্টাগ্রামের সহ-প্রতিষ্ঠাতা কেভিন সিস্ট্রমের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। তখন ইনস্টাগ্রামের ব্যবহারকারী সংখ্যা ছিলো ১ কোটি।

ইনস্টাগ্রামের প্রতি আগ্রহ ছিলো কুচারের। তাই টুইটারের রিটুইটের মতো একটি ফিচার যুক্ত করতে বলেছিলেন কুচার। তবে এ ধরণের কোনো ফিচার ইনস্টাগ্রামে যুক্ত করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন সিস্ট্রম।

Techshohor Youtube

তবে এই ‘না’ শুনে সিস্ট্রমের সঙ্গ ত্যাগ করেননি কুচার। সাপ্তাহিক ছুটিতে স্কি করার জন্য  কয়েকজন প্রযুক্তি ব্যবসায়ী মিলে উটাহ যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল তার। সেখানে সিস্ট্রমকেও আমন্ত্রণ জানান তিনি আর এতে রাজি হন সিস্ট্রম।

ছুটি কাটানোর সময় তারা যে বাড়িতে উঠেেছিলেন সেখানে ভোর চারটার দিকে আগুন লাগে। অ্যাশটন কুচারের রুমে এসে সেই আগুন লাগার খবর দিয়েছিলেন সিস্ট্রম। এরপর সবাই মিলে ধোঁয়াচ্ছন্ন সেই বাড়িটি থেকে বের হয়ে আসেন।

এ ঘটনায় কুচার বুঝতে পারেন সিস্ট্রমের মধ্যে নেতৃত্বদানের দক্ষতা আছে। এ থেকেই তাদের বন্ধুত্ব তৈরি হয়।

পরবর্তীতে ইনস্টাগ্রামে হলিউড তারকাদেরকে অ্যাকাউন্ট খুলতে উদ্বুদ্ধ করেন অ্যাশটন কুচার। এতে ইনস্টাগ্রামের ফলোয়ার সংখ্যা ব্যাপক বৃদ্ধি পায়।

 অ্যাশটন কুচার ও কেভিন সিস্ট্রমের এই বন্ধুত্ব শুরু কাহিনী উঠে আসে ‘নো ফিল্টার : দ্য ইনসাইড স্টোরি অব ইনস্টাগ্রাম বইতে। বইটি লিখেছেন সারাহ ফ্রিয়ার।

ইন্টারনেট অবলম্বনে এজেড/ এপ্রিল ২০/২০২০

*

*

আরও পড়ুন