করোনার সময়ে ডিজিটাল চোরেরা হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি টাকা

ছবি: ইন্টারনেট থেকে নেওয়া

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: করোনাভাইরাসে মানুষ যখন ঘরবন্দি তখন হ্যাকাররা হাতিয়ে নিচ্ছে পয়সা। মানুষের লকডাউনের সুযোগ নিয়ে ব্যাপকহারে বেড়েছে অনলাইনে ফিশিং ও স্ক্যামিং।

ইমেইল ও ভুয়া ই-কমার্স ওয়েবসাইটের মাধ্যমে মানুষকে বোকা বানিয়ে মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার হাতিয়ে নিচ্ছে এসব হ্যাকাররা। কেবল যুক্তরাজ্যে এসব পদ্ধতিতে হ্যাকাররা হাতিয়ে নিয়েছে ২১ লাখ ২০ হাজার পাউন্ড। যুক্তরাষ্ট্রে এই সংখ্যা এক কোটি ২০ লাখ ডলার।

যুক্তরাজ্যের অ্যাকশন ফ্রড জানিয়েছে তারা এ সংক্রান্ত তিন হাজার ছয়শ অভিযোগ পেয়েছেন। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ট্রেড কমিশন চলতি বছরে এমন অভিযোগ পেয়েছে ১৬ হাজার ৮০০টি।

Techshohor Youtube

ইমেইলে ফিশিং সম্পর্কে পূর্বেও সতর্ক করা হয়েছে। পরামর্শ দেওয়া হয়েছে যে, যতই নির্ভরযোগ্য ইমেইল অ্যাড্রেস হোক না কেন, করোনাভাইরাস সম্পর্কিত কোনও ইমেইল অ্যাটাচমেন্ট (ডক বা পিডিএফ বা ইমেজ) ডাউনলোড বা ওপেন করবেন না।

এর বাহিরে এখন অনলাইনে পিপিই ও মাস্ক বিক্রয়ের নামে ফাঁদ পেতে বসে আছে হ্যাকারের দল। যদি কোনও ওয়েবসাইট এসব কাজের জন্য কার্ডের তথ্য চায় দেবেন না।

বিভিন্ন সুপারশপের ভাউচার নিয়েও হচ্ছে কারসাজি। অনলাইনে অপরিচিতি ব্যাক্তির কাছ থেকে শপিং ভাউচার নেবেন না। কদিন আগে নেটফ্লিক্সের দুই মাসের সাবস্ক্রিপশন ফ্রি নামে একটা মেসেজ দেখে থাকতে পারেন। এমন স্ক্যাম এখন অহরহ হচ্ছে। তাই ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের নিজেদের নিরাপদ রাখতে ইন্টারনেট ব্যবহারে দায়িত্বশীল হওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সূত্র : ইন্টারনেট, এমআর/এপ্রিল ১৮/২০২০/০৯৫৯

আরও পড়ুন –

দিনে ১ কোটি ৮০ লাখ স্ক্যাম মেইল ব্লক করছে গুগল

করোনা টেস্ট সেন্টারেও আক্রমণ করছে হ্যাকাররা

করোনাভাইরাস : আরেক বিপদের নাম গুজব

*

*

আরও পড়ুন