Techno Header Top

ইন্টারনেটে কোন কাজের জন্য কেমন ডাউনলোড স্পিড দরকার?

যে কাজে চাই যেমন ইন্টারনেট গতি। ছবি : ইন্টারনেট
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ইন্টারনেটের ইতিহাসে এক গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত চলছে এখন। করোনাভাইরাস মহামারিতে বিশ্বব্যাপী এর কদর বেড়েছে বহুগুণ। 

এখন অন্য কারো সঙ্গে দেখা করার প্রধান মাধ্যম হয়ে উঠেছে ইন্টারনেট। গত সপ্তাহে বেশ কয়েকটি জরিপ প্রকাশ করা হয়েছে যেখানে ইন্টারনেটের গতির কথা উঠে এসেছে। বিশেষ করে এখন বাসা থেকে কাজ করতে ইন্টারনেটের কেমন গতি হওয়া উচিত সেসব। তেমন একটি দিক নির্দেশনামূলক জরিপ করেছে ব্রডব্যান্ডনাও।  

আমরা বাসা থেকে নানা ধরনের কাজ করে থাকি। এর মধ্যে রয়েছে সাধারণ ওয়েবব্রাউজ, অনলাইনে গেইম খেলা, স্ট্রিমিং সার্ভিস, ভিডিও আপলোডসহ নানা বিষয়। সেসব ক্ষেত্রে ইন্টারনেটের গতি কেমন হওয়া দরকার তা নিয়েই প্রতিবেদন। 

সাধারণ ওয়েবব্রাউজিং ও অন্যান্য

সাধারণ যেসব কাজ করা হচ্ছে বাসা থেকে তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে প্রতিদিন অসংখ্য মেইল পাঠানো, ক্ষেত্র বিশেষ ভিডিও কলে কথা বলা। ভিডিও কলের কথায় আমরা পরে আসছি। এসব সাধারণ ব্যবহারের জন্য ইন্টারনেটের খুব বেশি গতি প্রয়োজন হয় না। 

ব্রডব্যান্ডনাও এর জন্য একটা সাধারণ গাইডলাইন প্রকাশ করেছে। সেখানে তারা বলছে, এমন সাধারণ ব্যবহারে ১ থেকে ৫ এমবিপিএস গতির ইন্টারনেট হলেই উপযুক্ত বলা যায়। মেইল আদান-প্রদানে কোনো ফাইল অ্যাটাস করতে হলে একটু সময় হয়তো নেবে। কিন্তু অন্যান্য ব্রাউজিং স্বাচ্ছন্দ্যে করতে পারবেন।

ওয়াইফাইতে ব্যবহারের সময় অবশ্যই আপনার পুরাতন রাউটার হলে গতি একটু কম পেতে পারেন, একই সঙ্গে অনেক ডিভাইস যুক্ত হলেও গতি একেবারে কমে যেতে পারে। তাই সেসব বিষয় নজরে রাখতে হবে।

স্ট্রিমিং সার্ভিস ও টেলিভিশন

বিশ্বে গতকয়েক বছর থেকে বিশ্বব্যাপী অনলাইন স্ট্রিমিং সার্ভিসগুলো জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। একই সঙ্গে অনলাইন টিভিও জনপ্রিয় হয়েছে। আর ঠিক এই মুহূর্তে তার কদর আরও বেড়েছে। নেটপ্লিক্স, অ্যামাজন প্রাইম, অ্যাপলটিভি প্লাস, হুলুসহ বেশ কিছু স্ট্রিমিং সার্ভিস জনপ্রিয়। 

স্ট্রিমিং সার্ভিস ও টিভিতে রেকর্ডেড কোনো কিছু দেখার জন্য সর্বনিম্ন ৩ এমবিপিএস ইন্টারনেট প্রয়োজন। তবে সেক্ষেত্রেও বাফারিং হবার আশঙ্কা থাকে। তাই সবচেয়ে ভালো হয় এই স্পিড যদি ১৫ থেকে ২৫ এমবিপিএস হয়।

এছাড়াও এসব সার্ভিসে ফোরকে ভিডিও পাওয়া যায়। সেসব ভিডিও দেখতে অবশ্যই গতি ২৫ এমবিপিএস হওয়া উচিত বলে জানিয়েছে ব্রডব্যান্ডনাও। ক্ষেত্র বিশেষে এই গতি ৪০ মেগাবাইট পর্যন্ত হতে পারে বলেও তাদের পরামর্শ। 

অনলাইন গেইমিং

অনলাইনে গেইম খেলতে অবশ্যই একটু ভালো গতির ইন্টারনেট প্রয়োজন হয়। কারণ কিছু গেইম যেমন ‘অ্যানিমেল ক্রসিং’, ‘কল অব ডিউটি’, ‘পাবজি’ খেলার জন্য অবশ্যই ভালো গতি থাকতে হবে। তাছাড়া ল্যাগ থাকার আশঙ্কা থাকে। আর এসব গেইম খেলতে গিয়ে ল্যাগ থাকার কোনো অবকাশই নেই। 

এসব অনলাইন গেইম খেলার জন্য ইন্টারনেট গতি ৪০ থেকে ৫০ মেগাবাইট পার সেকেন্ড হওয়া উচিত বলে প্রতিষ্ঠানটি বলেছে। একই সঙ্গে খেলার সময় এর গতি মাঝে মাঝে মেপে দেখাও পরামর্শ ব্রডব্যান্ডনাওয়ের।

ভিডিও কলিং

এখন বাসা থেকে কাজ করতে গিয়ে ভিডিও কল করার পরিমাণ কয়েকগুণ বেড়েছে। সেজন্য অনেকেই ম্যাসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপ, ভাইবারের মতো অ্যাপ ব্যবহার করেন। তবে কাজের ক্ষেত্রে অন্যান্য ভিডিও কনফারেন্সি সফটওয়্যার বেশি ব্যবহার হয়। 

জুম ভিডিও কনফারেন্সিং সফটওয়্যার ব্যবহার করলে ইন্টারনেটের গতি ৩ এমবিপিএস হওয়া উচিত। তাহলে কল করার ক্ষেত্রে কোনো বাফারিং থাকবে না। তবে খুব ভালো অভিজ্হতা পেতে হলে অবশ্যই গতি ১০ থেকে ২০ এমবিপিএস হওয়া উচিত। 

ভিডিও আপলোডিং

এই সময়ে পেশাগত চলচ্চিত্র নির্মাতারা টের পাচ্ছেন তাদের কতটা ভালো ইন্টারনেট প্রয়োজন। কারণ, তাদের বিভিন্ন ধরনের ভিডিও আপলোড করতে হয়। তাই ইন্টারনেটের গতিও হতে হয় অনেক। সব ইন্টারনেটেই ডাউনলোড গতির চেয়ে আপলোডের গতি খুব কম হয়। তাই এক্ষেত্রে যতোটা সম্ভব ভালো গতির ইন্টারনেট সংযোগ প্রয়োজন। কারণ, ইউটিউবে আপলোড গতি যা হয়, অন্যান্য সাইটে তার চেয়ে কম হয়। তাই এক্ষেত্রে নিজের বিবেচনা ও সময়ের উপর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে গতিটা কত নেবেন। 

আমরা এমন একটা সময়ে বাস করছি যেখানে জীবনের অধিকংশ কাজ এখন ইন্টারনেট নির্ভর হয়ে হয়ে গেছে। তবে আশার বিষয় হচ্ছে অনেক দেশ ইতোমধ্যে ফাইভজি সংযোগ চালু করতে শুরু করেছে। তাতে আমাদের জীবনে আরও বড় পরিবর্তন আসবে ইন্টারনেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে। 

সূত্র : ইন্টারনেট, ইএইচ/মার্চ২৮/২০২০/১২০০

আরও পড়ুন – 

স্ট্রিমিং সার্ভিসের পাসওয়ার্ড শেয়ারে কড়াকড়ি আসছে 

তরুণরা ঝুঁকছে স্ট্রিমিং সার্ভিসে

সিনেমা হলেও দেখা যাবে অ্যাপল প্লাসের কনটেন্ট

ইন্টারনেটের গতি কমায় যেসব ডিভাইস

এই সমাধানগুলো জানা থাকলে অনলাইন গেইমে আপনিই ‘জয়ী’!

*

*

আরও পড়ুন