ভিডিও কোয়ালিটি কমিয়ে দিয়েছে ফেইসবুকও

ছবি: ইন্টারনেট থেকে নেওয়া
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর: ইন্টারনেট সার্ভারগুলোর উপর চাপ পরিমিত রাখতে বিশ্বব্যাপী ভিডিও সার্ভিসগুলো কোয়ালিটি কমিয়ে দিচ্ছে। এই দলে সর্বশেষ যোগ হলো ফেইসবুক।

কোম্পানিটি তাদের ফেইসবুক ও ইন্সটাগ্রামের ভিডিও কোয়ালিটিকে কমিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বব্যাপী ব্যাপক লকডাউন অবস্থা সৃষ্টি হওয়ায় ভিডিও কনটেন্টের চাহিদা বেড়েছে ব্যাপক হারে। হঠাৎ এই বর্ধিত চাহিদার সঙ্গে খাপ খাওয়াতে এমন সিদ্ধান্ত নিচ্ছে কোম্পানিগুলো।

এর আগে ইউটিউব, নেটফ্লিক্স, অ্যাপল, গুগল, অ্যামাজন, ডিজনি, বিবিসিসহ বেশিরভাগ কনটেন্ট কোম্পানি তাদের ভিডিও কোয়ালিটিকে কমিয়ে আনে।

কোয়ালিটি কমাতে একেক কোম্পানি একেক পদ্ধতি অবলম্বন করছে। কেউ রেজুলেশাল কমিয়েছে। কেউ কমিয়েছে বিটরেট।

বর্তমানে অনলাইনে ফুল এইচডি অর্থাৎ ১০৮০ পিক্সেল ও ফোরকে রেজুলেশনের কনটেন্ট বহুল ব্যবহৃত। ইউটিউব তো এইট-কে অপশনও চালু করে রেখেছে। তবে কোম্পানিটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাদের সব ভিডিওতে সংকটকালীন সময়ে ডিফল্ট রেজুলেশন হবে ৪৮০পি। তবে ব্যবহারকারীরা চাইলে সেটিকে বাড়িয়ে নিতে পারবে।

ইউটিউবের এই পদক্ষেপ অনেক বড় একটি বিষয়। যেখানে বর্তমানে এইচডি অর্থাৎ ৭২০ পিক্সেলের ভিডিও কোয়ালিটিকে সেকেলে ভাবা হয় সেখানে ইউটিউব ডিফল্ট মুড রেখেছে তার প্রায় অর্ধেক।

এদিকে অ্যাপলের পদক্ষেপ হচ্ছে তারা বিটরেট কমিয়ে দিয়েছে। ঠিক রেখেছে রেজুলেশান।

বিটরেট হচ্ছে একটি ভিডিও চালানোর জন্য প্রতি সেকেন্ডে কত ডাটা ট্রান্সমিট করতে হয়। এই বিষয়টির উপর নির্ভর করে ভিডিও কতটা সুন্দর দেখা যাবে। ভিডিও চালানোর পর অনেক সময় যে ব্লক ব্লক খালি চোখে বুঝা যায় সেটিই হচ্ছে নিম্ন বিটরেট।

অ্যাপলের মতো একই পদক্ষেপ নিয়েছে নেটফ্লিক্স, অ্যামাজন ও ডিজনিও।

বিবিসি নিয়েছে একটু ভিন্ন পদক্ষেপ। নিজেদের সার্ভারের উপর চাপ কমাতে তারা ফোরকে টেস্টিং বন্ধ করে দিয়েছে।

সূত্র : বিবিসি, এমআর/মার্চ ২৫/২০২০/০৭৪৫

*

*

আরও পড়ুন