বাড়তি চাপেও স্বাভাবিক থাকবে ইন্টারনেট সেবা

internet-techshohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : করোনা পরিস্থিতিতে হোম অফিস এবং মানুষের বাসায় অবস্থানের কারণে ইন্টারনেট ব্যবহার বেড়েছে।

দেশের মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো জানিয়েছে গত কয়েকদিন হতেই ইন্টারনেটের বাড়তি ব্যবহার দেখছেন তারা। ব্রডব্যান্ড সেবাদাতারাও বলছেন তাই। মানুষ ই-কমার্সসহ অনলাইনে বিভিন্ন সেবা নিচ্ছেন বেশি।

তবে এই বাড়তি ব্যবহারের কারণে ব্যান্ডউইথের ঘাটতি বা ধীর গতি বা সেবায় কোনো প্রভাব পড়বে না বলে বলছেন তারা। 

বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স কোম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল) এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ রফিকুল মতিন টেকশহরডটকমকে জানান, চাহিদা অনুযায়ী সব পর্যায়ের গ্রাহকদের নিরবিচ্ছিন্ন ইন্টারনেট সেবা দিতে তারা প্রস্তুত। বাড়তি ব্যবহারে কোনো ঘাটতি হবে না।

রবির চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার সাহেদ আলম টেকশহরডটকমকে জানান, তাদের ফোরজি ইন্টারনেট সেবা ১০ জিপিপিএস সংযোগের। ইন্টারনেটের ব্যবহার আরও বাড়লেও রবি নিরবিচ্ছিন্ন  ও মানসম্মত সেবা দিয়ে যেতে থাকবে।   

গ্রামীণফোনের হেড অব এক্সটার্নাল কমিউনিকেশন কর্মকর্তা মুহাম্মদ হাসান টেকশহরডটকমকে জানান, তারা ইন্টারনেটের বাড়তি ব্যবহার লক্ষ্য করেছেন তবে এটি স্বাভাবিক। আর ব্যবহার আরও বাড়লেও সেবা দিতে কোনো সমস্যা হবে না।

ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারদের সংগঠন আইএসপিএবির সভাপতি আমিনুল হাকিম টেকশহরডটকমকে বলেন, হোম ইউজেসে চাহিদা বাড়লেও সাধারণত ব্যান্ডউইথের কোনো সমস্যা হবে না। এছাড়া কর্পোরেট অফিসগুলো বন্ধ রয়েছে সেখানে যে ব্যান্ডউইথ ব্যবহার হতো সেটি হোমে চলে আসবে।

দেশে এখন ১৪০০ জিবিপিএসের মতো ব্যান্ডউইথ ব্যবহার হচ্ছে বলছে এ সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো। এরমধ্যে  দ্বিতয়ি সাবমেরিন ক্যাবলে ৭০০ এর মতো (ক্যাবলটির ক্ষমতা ১৫০০ জিবিপিএস), ইন্টারন্যাশনাল টেরেস্ট্রিয়াল ক্যাবল কোম্পানিগুলো আমদানি করছে ৩০০ এর মতো আর প্রথম সাবমেরিন ক্যাবলে আসছে ৪০০ জিবিপিএস।

আইএসপিএবি নেতারা জানান তাদের মাধ্যমে দেশে প্রায় ৯০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ ব্যবহার হচ্ছে।

এডি/২০২০/মার্চ২৩/২১০০

*

*

আরও পড়ুন