গ্রাফিক নভেলে বঙ্গবন্ধু

গ্রাফিক নভেল মুজিবের সপ্তম পর্বের প্রচ্ছদ। ছবি : ইন্টারনেট
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ছোটদেরকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে জানাতে তার ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ অবলম্বনে তৈরি করা হয়েছে গ্রাফিক নভেল ‘মুজিব’।

নভেলটির সাতটি পর্ব প্রকাশ হয়েছে। গ্রাফিক নভেলটি প্রকাশ করেছে আওয়ামী লীগের গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই)।

বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী অবলম্বনে গ্রাফিক নভেলের কাজটি শুরু হয় ২০১৪ সালে। কাজটিতে যুক্ত থেকেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গ্রাফিক নভেলটি মূলত ১২ পর্বে তৈরির পরিকল্পনা করা হয়।

প্রথম পর্ব ‘মুজিব-১’ প্রকাশিত হয় ২০১৫ সালের ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে। এরপর সেই সিরিজের আরও ছয়টি বই প্রকাশ হয়। 

প্রথম তিনটি পর্বের আলাদা কোন নাম না দিয়ে মুজিব-১, ২ ও ৩ দেওয়া হয়। তবে এর পরের প্রত্যেকিটি পর্বের একটা করে আলাদা নাম দেওয়া হয়।

প্রথম পর্বে বঙ্গবন্ধুর খেলাধুলা, পড়াশোনা, ডাক্তারের কাছ থেকে পালানো, প্রথমবারের মতো কারাবরণের মতো বিভিন্ন কৌতূহলোদ্দীপক কাজের পাশাপাশি দেশের প্রতি তরুণ বয়স থেকেই নিজের বিশ্বাসের পক্ষে দৃঢ় অবস্থান নিতে দেখা যায় কিশোর শেখ মুজিবকে।

দ্বিতীয় পর্বে বঙ্গবন্ধুর রাজনীতির হাতেখড়ির পাশাপাশি তার প্রেরণা হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে ওঠার বিষয়টি উঠে এসেছে। 

মুজিব-৩ এ বঙ্গবন্ধুর স্কুল ও কলেজের শিক্ষাজীবনের পাশাপাশি সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড, দুর্ভিক্ষের সময় মানবিক ভূমিকার বিষয় উঠে আসে।

এর পর চতুর্থ পর্বের নাম দেওয়া হয়েছে দিল্লি অভিযান। যেখানে বঙ্গবন্ধুর দিল্লিতে অল ইন্ডিয়া মুসলিম লীগ কনফারেন্সে যোগদান, এ সময় তার ছাত্র রাজনীতির দুই সহযোদ্ধা মাখন ও নূরুদ্দিনের সঙ্গে গড়ে ওঠা সখ্যতা, অর্থের অভাবে এক টিকেটে তিনজনের ভ্রমণসহ আরো বেশ কিছু মজাদার বিষয় যুক্ত করা হয়েছে।

এ ছাড়াও কলকাতার ইসলামিয়া কলেজের রাজনীতিতে তৎকালীন সময় শেখ মুজিবুর রহমানের জনপ্রিয়তা অর্জন, দলের স্বার্থে শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক গুরু হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর সঙ্গে তর্ক এবং তারপরও গুরুর কাছ থেকে স্নেহ ভালোবাসা লাভের বিষয়গুলো উঠে এসেছে ‘মুজিব গ্রাফিক নোভেল ৪: দিল্লি অভিযান’ পর্বে।

পঞ্চম পর্বের নাম দেওয়া হয়েছে ‘বড়বাজারে গণ্ডগোল’। যেখানে ১৯৪৫ সালে অত্যন্ত জনপ্রিয় হওয়া স্বত্বেও শেখ মুজিবুর রহমানকে কিভাবে ছাত্রলীগের পদ থেকে বঞ্চিত করা হয়, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ এবং যুদ্ধকে কেন্দ্র করে কিছু স্বার্থান্বেষী মহলের কালোবাজারি এবং দেশের কিছু এমএলএ এবং খান বাহাদুরদের স্বার্থের টানাপোড়েনের কারণে ব্রিটিশ গভর্নরের কাছে ক্ষমতা চলে যাওয়ার কথা বর্ণনা করা হয়। এ সবকিছু দারুণভাবে নাড়া দিয়েছিল তরুণ শেখ মুজিবকে।

খাজা নাজিমউদ্দীনের নানা কূটকৌশল ও তার ষড়যন্ত্র, সেগুলোর বিরুদ্ধে শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিবাদ এবং কর্মকৌশল নিয়ে তৈরি করা হয়েছে গ্রাফিক নভেলের ষষ্ঠ পর্ব। তাই এর নাম দেওয়া হয়েছে ‘মুজিব ৬ : খাজার কারসাজি’। 

সপ্তম পর্বের নাম দেওয়া হয়েছে ‘মুজিব ৭ : অ্যাকশন ডে’। যেখানে স্থান পেয়েছে তৎকালীন দুর্ভিক্ষের চিত্র। আর সেখানে মানুষগুলোর অবয়ব পরিবর্তন করে রুগ্ন ও শীর্ণ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, যেমনটা দুর্ভিক্ষের সময় ছিল। শুধু তাই নয় বইটির সূক্ষ্ম থেকে সূক্ষ্মতর ভুলগুলো খুঁজে বের করে তা ঠিক করে দেন প্রধানমন্ত্রী।

গ্রাফিক নভেলটি প্রকাশে তত্ত্বাবধান করছেন বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র, শেখ রেহানার ছেলে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক। 

গ্রাফিক নভেল বই মেলার সময় সিআরআইয়ের স্টলে পাওয়া যায়। এছাড়াও অনলাইনে বইটি রকমারি ডটকম থেকে কেনা যাবে। 

ইএইচ/ মার্চ ১৭/২০২০/ ১৭০০

আরও পড়ুন – 

মুজিব ১০০ ওয়েবসাইটে বঙ্গবন্ধু

গ্রাফিক নভেল মুজিবের চতুর্থ পর্ব উন্মোচন

গেইমগুলো সব মুক্তিযুদ্ধের

*

*

আরও পড়ুন