নায়িকাই ভিলেন : হ্যাশট্যাগে জনি ডেপকে সমর্থন ভক্তদের

জনি ডেপ ও অ্যাম্বার হার্ডের অডিও ফাঁসে সামনে এসেছে নতুন তথ্য। ছবি : ইন্টারনেট
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : হলিউডের রুপালি পর্দার সুন্দরী নায়িকা অ্যাম্বার হার্ড এখন ভক্তদের চোখে ভিলেনে পরিণত হয়েছেন।

সাবেক স্বামী জনি ডেপকে কয়েক বার বিভিন্ন অজুহাতে পেটানোতে তার বিচার চেয়ে পোস্ট দেন টুইটার ব্যবহারকারীরা। সংবাদ মাধ্যম দ্য ডেইলি মেইল ডেপ ও অ্যাম্বার হার্ডের কথোপকথন ফাঁস করলে #JusticeForJohnnyDepp ট্রেন্ড শুরু হয় টুইটারে।

টুইটে টিভি প্রডিউসার জেসি জুকম্যান লেখেন, পুরুষদের নির্যাতিত হওয়ার উদাহরণ এখন অনেক। জনির ব্যাপারটি বিচ্ছিন্ন কোনো ঘটনা নয়। ছেলে বা মেয়ে যেই হোক না কেনো শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন থেকে নিজেকে রক্ষা করার অধিকার সবার আছে।

ওয়েব সিরিজ নির্মাতা অ্যান্ড সিগনোর টুইটে বলেন, পুরো অডিও শুনলাম। তাদের কথায় বুঝলাম অ্যাম্বারই নির্যাতনকারী। এতোদিন মিডিয়ার সামনে সে পুরো সত্যি প্রকাশ করেনি।

অভিনেতা দাস ক্যানেডি উইলিয়াম লেখেন, জনি ডেপকে কখনো পুরোপুরি অবিশ্বাস করতে পারিনি। আমরা অনেকেই তার আঙ্গুলের ক্ষত দেখেছি। তাই কে দোষী তা নিয়ে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে চাইনি। তবে এখন অডিও ক্লিপ পেয়ে বোঝা গেলো আসলে কি ঘটেছিলো।

২০১১ সালে জনিডেপের সঙ্গে আম্বার হার্ডের পরিচয় হয় ‘দ্য রাম ডায়েরি’ ছবির সেটে। প্রেম শুরু হওয়ার পর দীর্ঘদিনের সঙ্গী ভেনেসা পারাদিসের সঙ্গে সম্পর্কের ইতি টানেন জনি ডেপ। অ্যাম্বারের সঙ্গে তার বিয়ে হয় ২০১৫ সালে। তিন মাস না পেরোতেই সংসারে শুরু হয় অশান্তি। প্রায়ই ছোট খাটো অভিযোগে জনিডেপকে মারতেন অ্যাম্বার। অথচ বিচ্ছেদের সময় অ্যাম্বার দাবি করেছিলেন, জনি ডেপ তাকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করেছেন।

অ্যাম্বারের এই অভিযোগের ফলে জনি ডেপকে পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ান সিনেমার জ্যাক স্প্যারো চরিত্রটি হারাতে হয়। আর্থিকভাবেও ক্ষতিগ্রস্ত হন। বিচ্ছেদ নিয়ে দ্য ওয়াশিংটন পোস্টে একটি আর্টিকেলও লেখেন অ্যাকুয়াম্যান ছবির নায়িকা অ্যাম্বার। এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে ৫০ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ চেয়ে মানহানির মামলা করেন ডেপ।

নিউজ উইক অবলম্বনে এজেড/ ফেব্রুয়ারি ০৩/২০২০/১১৪৫

আরও পড়ুন –

অ্যাম্বার হার্ড ও এলোন মাস্কের বিচ্ছেদ 

কমিকনে হাজির জনি ডেপ

*

*

আরও পড়ুন