সৌদি যুবরাজই হ্যাকার!

ছবিটি ২০১৮ সালের মার্চে তোলা। মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে জেফ বেজস। ছবি : দ্য গার্ডিয়ান
Evaly in News page (Banner-2)

টেকশহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সৌদি আরব সরকার অ্যামাজন সিইও জেফ বেজসের ফোন হ্যাক করেছে সে খবর আগেই জানা গেছে। এবার জানা গেল, খোদ সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান হ্যাকিংয়ের কাজটি করেন।

হ্যাকিংয়ের আগে জেফ বেজস ও মোহাম্মদ বিন সালমানের মধ্যে বেশ কয়েকবার হোয়াটসঅ্যাপে ম্যাসেজ আদান প্রদান হয়। এরপর ২০১৮ সালে বেজসের হোয়াটসঅ্যাপ ক্ষতিকর একটি ভিডিও ফাইল পাঠান সৌদি যুবরাজ। এই ভিডিও ফাইল বেজসের ফোনে কবজা করে তথ্য হাতিয়ে নেয়। ঠিক কী পরিমাণ তথ্য হ্যাক করা হয় বা কী ধরণের তথ্য নেওয়া হয় তা জানা যায়নি।

বেজস মালিকানাধীন সংবাদ মাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্ট সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের বিরুদ্ধে বেশ সরব ছিলো। তার সমালোচনা করায় ২০১৮ সালের অক্টোবরে  ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে খুন হন ওয়াশিংটন পোস্টের কলাম লেখক জামাল খাশোগি।

বেজসের ফোন হ্যাকের পাঁচ মাস পর এ ঘটনা ঘটে। গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএর ভাষ্য, মোহাম্মদ বিন সালমানের নির্দেশেই খুন হন খাশোগি।

এই হ্যাকের পর ফক্স টিভির উপস্থাপিকা লরেন স্যানচেজের সঙ্গে জেফ বেজসের সম্পর্কের কথা প্রকাশ্যে আসে। এরপর স্ত্রী ম্যাকেঞ্জির সঙ্গে দীর্ঘ ২৫ বছরের সংসারের ইতি টানেন বেজস।

আরও পড়ুন

প্রতিশোধ নিতে বেজসের ফোন হ্যাক করে সৌদি সরকার

ডিজিটাল ট্রেন্ড অবলম্বনে এজেড/ জানুয়ারি ২২/২০২০/১৪৩৪

*

*

আরও পড়ুন