Header Top

এসএমএস ব্যবসায় কড়াকড়ি

এসএমএসে কড়াকড়ি করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন। ছবি : টেকশহর

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : চাইলেই ব্যবসার উদ্দেশ্যে এখন এক সঙ্গে অনেক এসএমএস বা ক্ষুদে বার্তা পাঠানো যাবে না। এ জন্য আগে থেকে নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদন নিতে হবে।

মূলত নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই এমন নিয়ম চালু করা হয়েছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো।

ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনের সময় যখন অনেক বড় অংকের বাল্ক এসএমএস আদান-প্রদানের সুযোগ এসেছে এ বিষয়ক সেবাদাতাদের সামনে, তখন অনুমোদনের এই কড়াকড়ি এলো। এতে নির্বাচনের এ সময়টাতে বাড়তি ব্যবসার সুযোগ কমবে বলে মনে করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এসএমএসের কনটেন্ট থেকে অনুমোদন নেওয়ার নিয়ম চালু করা হয়েছে।

কমিশন গত ১৫ জানুয়ারি থেকে নিয়মটি কার্যকর করেছে। এ নিয়ম না মানলে অপারেটরদেরকে দায়ি করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও নির্দেশনায় জানানো হয়।

কিছুদিন আগে নিষিদ্ধ ঘোষিত একটি সংগঠনের নামে এক সঙ্গে অনেক এসএমএস পাঠানো হয়। এর প্রেক্ষিতেই সম্প্রতি বিটিআরসি সংশ্লিষ্ট অপারেটরদের কাছে এ বিষয়ে চিঠি পাঠিয়েছে বলে জানা গেছে।

এক্ষেত্রে এসএমএস পাঠানোর ১০ দিন আগে নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছ থেকে এর অনুমোদন নিতে হবে বলে নিদের্শনায় বলা হয়েছে।

দেশে মূলত মোবাইল ফোন অপারেটর এবং ইন্টারনেট টেলিফোনি অপারেটরদের মাধ্যমে এসএমএস পাঠানো হয়।

তবে অপারেটরগুলো এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছে। তারা বলছে, এটি এক ধরনের চাপিয়ে দেওয়া সিদ্ধান্ত।

তাদের বক্তব্য হলো-কেউ তাদের কাছ থেকে একটি সিম কিনে নিয়ে সেটা দিয়ে অপরাধমূলক কোনো কাজ করলে, সে জন্য অপারেটর দায়ি হতে পারে না।

একইভাবে তাদের সেবা ব্যবহার করে কেউ অন্যায় কিছু করলে বা নিয়ম প্রতিপালন না করলে সেটির দায় অপারেটরের ওপর চাপানো ঠিক নয়।

জেডএ/আরআর/জানুয়ারি ২০/২০২০/ ১৪৩৬

আরও পড়ুন – 

বাংলার পর ইংরেজি এসএমএস হবে ২৫ পয়সা 

মন্দ ছন্দে দ্বন্দ্বে বছর গেল টেলিকমের

*

*

আরও পড়ুন