বিনামূল্যেও নিচ্ছে না বাংলালিংকের ০১৪!

Banglalink Store-techshohor
অনলাইন থেকে সংগৃহীত
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : এক বছর বিনামূল্যে বিলিয়েও বাংলালিংক তাদের ০১৪ নম্বর সিরিজের মাত্র ৬০ লাখ সিম বাজারে দিতে পেরেছে।

এসব সিমের মধ্যে আবার কার্যকর আছে সাড়ে ৪৯ লাখ। এমন পরিস্থিতিতে অপারেটরটিকে নতুন সিরিজের আরও এক কােটি নম্বরের ব্লক দেওয়ার আবেদন নাকচ করেছে বিটিআরসি।

গ্রাহক বিচারে তৃতীয় অপারেটরটি ২০১৮ সালের ২৯ নভেম্বর থেকে ০১৯ নম্বর সিরিজের সঙ্গে ০১৪ সিরিজ গ্রাহকদের দিতে শুরু করে।

শুরু থেকে বিনামূল্যে দেওয়ার পরও ২০১৯ সালের আগস্ট পর্যন্ত তারা সব মিলে ৬০ লাখ ২০ হাজার সিম বিলি করতে পেরেছে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) কাছে সম্প্রতি বাংলালিংক ০১৪ নম্বর সিরিজ থেকে আরও একটি ব্লক বরাদ্দের দাবি করলে এ তথ্যগুলো বেরিয়ে আসে।

২০১৮ সালের নভেম্বরে ০১৪ সিরিজ থেকে এক কোটি নম্বর বাজারে দেওয়ার জন্য অনুমোদন পায় তৃতীয় গ্রাহক সেরা অপারেটর বাংলালিংক।

মূলত প্রতিদ্বন্দ্বী দুই অপারেটর গ্রামীণফোন ও রবির সঙ্গে সামঞ্জস্য রাখতে গিয়ে প্রয়োজন না থাকলেও বাংলালিংককে ০১৪ সিরিজ থেকে এক কোটি সিমি বিক্রির অনুমোদন দেওয়া হয়।

এয়ারটেলসহজ রবি’র দুটি নম্বর সিরিজ এবং গ্রামীণফোনকে প্রথম নম্বর সিরিজ ০১৭-এর পর ০১৩-তে দুই কোটি সিম বিক্রির অনুমোদন দেওয়ার প্রেক্ষিতে এমন অনুমোদন দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন – বিদেশি ভয়েস কল খেয়ে ফেলছে হোয়াটসঅ্যাপ-ইমো

বাংলালিংক সম্প্রতি বিটিআরসিকে জানায়, তাদের ০১৪ সিরিজের এক কোটি নম্বর প্রায় শেষ। এ কারণে নতুন ব্লকের নম্বর ব্যবহারের অনুমোদন দিতে হবে।

বাংলালিংকের দেওয়া হিসাব অনুসারে, ০১৯ সিরিজে এখনো ৫১ শতাংশ সিম অব্যবহৃত রয়েছে। তাছাড়া নতুন নম্বর সিরিজ পাওয়ার পরও তাদের গ্রাহক সংখ্যা সেই হারে বাড়েনি।

বাংলালিংকের তথ্য মতে, ২০১৮ সালের আগস্ট থেকে ২০১৯ সালের অক্টোবর পর্যন্ত তাদের কার্যকর গ্রাহক ১৬ লাখ বেড়েছে। গ্রাহক বৃদ্ধির হার বেশি না হওয়ায় তাদের মার্কেট শেয়ারও কমে গেছে।

অক্টোবরের পর তাদের মার্কেট শেয়ার দাঁড়িয়েছে ২১ শতাংশ। এক বছর আগেও যা ২২ শতাংশ ছিল।

এসব আমলে নিয়ে শেষ পর্যন্ত বাংলালিংকের নতুন ব্লক পাওয়ার আবেদন নাকচ করে দেয় বিটিআরসি।

আরও পড়ুন –   

বাংলালিংকের ব্যবসায় ফের ধাক্কা 

কথা কমছে ডেটা বাড়ছে বাংলালিংকে

২ টি মতামত

  1. Imran Hossain said:

    তাদের চয়েস নাম্বার পাওয়া জায়না।নিজের মত করে নাম্বার চয়েস করা যায়না।তাদের কোনো স্পেশাল অফার থাকেনা,রেট কাটার এ ও তেমন সুযোগ সুবিধা নেই।যা অন্য টেলিকম দেখা যায়।
    তবে,,,
    ২০২০ এর মধ্যে টেলিটক বাংলালিংকে ছাড়িয়ে যাবে। শুভকামনা রইল টেলিটকের জন্যে।

  2. bd news said:

    মোডেম অথবা মোবাইলসহ বিনামূল্যে বাংলালিংক সিম দিলে অনেকেই উপকৃত হবে। টেকশহরের সাথে আছি আমরা।

*

*

আরও পড়ুন