মুক্তিযুদ্ধকে অ্যানিমেশনে আনছেন ওয়াহিদ

টেকশহরের সঙ্গে হলিউডের সিনেমায় ভিএফএক্স কাজ করা বাংলাদেশী ওয়াহিদ ইবনে রেজা। ছবি : টেকশহর
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের মুক্তিযুদ্ধকে বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে অ্যানিমেশন স্বল্পদৈর্ঘ্যের সিনেমা তৈরি করছেন ওয়াহিদ ইবনে রেজা। 

অস্কার মনোনয়নপ্রাপ্ত ডক্টর স্ট্রেঞ্জ, গার্ডিয়ান্স অব দ্যা গ্যালাক্সি ভলিউম টু, ব্ল্যাক প্যান্থার ও অ্যাভেঞ্জার্স : ইনফিনিটি ওয়ারসহ দুনিয়া মাতানো বেশ কিছু সিনেমার ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস সমন্বয়ক বাংলাদেশী ওয়াহিদ ইবনে রেজা। 

সম্প্রতি তিনি টেকশহরের অতিথি হয়ে এসে এক আলোচনায় নিজের অনেক পরিকল্পনা এবং দেশের তরুণদের ভিএফএক্সে কাজের সুযোগ-সুবিধার কথা জানান। 

ওয়াহিদ ইবনে রেজা বলেন, আমি একটা অ্যানিমেটেড শর্ট ফিল্ম করছি ‘সারভাইভিং ৭১’। সেই শর্ট ফিল্মটার ফান্ডিং কনফার্ম করা, সাউন্ড রেকোর্ড করা, আর্ট টিমটাকে লঞ্চ করে দেওয়া। এর টিজার লঞ্চ হয়েছে এই বিজয় দিবসের আগে। অনেকেই এর প্রসংশা করেছেন। এখন চাইছি ফান্ডিংটা চূড়ান্ত করতে। 

 মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে এমন সিনেমা তৈরিতে আগ্রহী হওয়ার অন্যতম কারণ একটি দুঃখজনক ঘঠনা থেকে। তিনি জানান, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে যদি গুগল করা হয় তবে প্রথম আসে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ। দ্বিতীয়তেও আসে ভারত পাকিস্তান যুদ্ধ। তৃতীয়টায় আসে বাংলাদেশের কথা। যেখানে ৩০ লাখ লোক মারা গেছে, এক কোটি লোক উদ্বাস্তু হয়ে ছিল তাদের কথা আসে না। এটা একটা দুঃখজনক কথা।

তিনি জানান, তার বাবাও একজন মুক্তিযোদ্ধ। তিনি সেসময় পাক বাহিনীর হাতে ধরা পড়েন এবং যখন গুলি করা হবে ঠিক তার আগেই তিনি সেখান থেকে লাফ দিয়ে পালিয়ে বাঁচেন। তিনি একজন সাধারণ মুক্তিযোদ্ধা, তার মুখ থেকে শোনা সেই কাহিনি এবং আরও অনেক মুক্তিযোদ্ধার কথা তুলে আনার কথা মুভিতে থাকবে। 

অস্কার মনোনিত চারটি সিনেমার ভিএফএক্স কাজ করা ওয়াহিদ জানান, আমরা চাই সারাবিশ্বে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে একটা নতুন নাড়া দিতে। আমি যে ফিল্মটা করেছি সেটা তরুণ একেবারে কিশোরদেরও মুক্তিযুদ্ধের বিষয়গুলো জানাতে। 

দেশে এখনো ভিজ্যুয়াল ইফেক্ট নিয়ে খুব বেশি কাজ হয় না জানিয়ে ওয়াহিদ বলেন, দেশে এখনো ৫০ জন ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস নিয়ে ভালো কাজ করে এমন খুঁজে পাওয়া যাবে না। যেটা এখন ভারতে অনেক বেশি। কারণ, বিশ্বের বড় বড় সব ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস নিয়ে কাজ করা কোম্পানির হাব হয়ে গেছে। তারা অনেক এগিয়ে যাচ্ছে বলে জানান তিনি। 

তবে এটা এমন একটা কাজ যেটা নিজের প্রচেষ্টাতেই বেশি সফল হওয়া যায় বলে জানান তিনি। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এই সেক্টরে কাজ দিয়েই নির্বাচিত হতে হয়। এখানে ব্যক্তি কতটা পড়াশোনা করেছে, কি সার্টিফিকেট রয়েছে এমন বিষয় গুরুত্বপূর্ণ না। এখানে মূল বিষয় কাজ। 

দেশের তরুণদের এখন খাতটিতে কাজের সুযোগ রয়েছে বলে জানানন তিনি। আর এটি শুরু করার সব কিছুই গুগলে পাওয়া যায় বলেও জানান। 

এছাড়াও ওয়াহিদ ইবনে রেজা কথা বলেন তার ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস নিয়ে কাজ করা সিনেমা, কাজের অভিজ্ঞতা এবং এসব কাজে কেমন খরচ করে হলিউড সেসব বিষয় নিয়ে। 

নিচের ভিডিওতে তার পুরো আলোচনা শুনতে পাবেন। এছাড়াও টেকশহরের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করে আরও আলোচনা শুনতে ও দেখতে পারবেন। 

 ইএইচ/ ডিসে ৩০/ ২০১৯/ ১৮৪০

*

*

আরও পড়ুন