Samsung IM Campaign_Oct’20

টেলিনরের উকিল নোটিশের জবাব দিয়েছে সরকার

BTRC-techshohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : মহামান্য রাষ্ট্রপতিকে দেয়া টেলিনরের উকিল নোটিশের জবাব দিয়েছে  সরকার।

অডিট আপত্তির ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা পাওনা আদায়ে সরকারের উদ্যোগের বিপরীতে এ বিষয়ে আরবিট্রেশনের জন্য ওই উকিল নোটিশ দিয়েছিল গ্রামীণফোনের এই মূল কোম্পানি।

জবাবে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যেহেতু বিষয়টি এখন আদালতে বিচারাধীন রয়েছে সুতরাং এখনই এটি নিয়ে আরবিট্রেশন বা বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তিতে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

জবাব দেয়ার বিষয়টি বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেন।

বিটিআরসির আইনগত বিষয়ের সঙ্গে যুক্ত এক কর্মকর্তা বলেন, গত ১৮ নভেম্বর উকিল নোটিশের কথা উচ্চ আদালতের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে আদালতও বলেছিলেন, যেহেতু বিষয়টি স্থানীয় আইনী প্রক্রিয়ার মধ্যে ঢুকে গেছে সে কারণে এখনই তাদেরকে আর বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তিতে না যাওয়ার জন্যে।

গত ৩০ অক্টোবর সিঙ্গাপুরের অ্যালেন অ্যান্ড ওভারি এলএলপি নামের একটি আইনি সংস্থা ২০০৪ সালে বাংলাদেশ এবং সিঙ্গাপুরের মধ্যে স্বাক্ষর হওয়া দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তির বিষয়টি উল্লেখ করে এ উকিল নোটিশ পাঠায় টেলিনর এশিয়া।

টেলিনর এশিয়া মনে করছে, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তির মধ্যেই আলোচনার অডিট আপত্তির বিষয়টি নিস্পত্তি করা সম্ভব।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে টেলিকম সাংবাদিকদের সংগঠন টিআরএনবির সঙ্গে এক বৈঠকে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার উকিল নোটিশের বিষয়টি সামনে আনেন।

ওই বৈঠকে মন্ত্রী বলেন, সিঙ্গাপুরের আইনি সংস্থার মাধ্যমে রাষ্ট্রপতিকে দেওয়া এ উকিল নোটিশ গ্রহণযোগ্য না।

‘বাংলাদেশে ব্যবসা করবে আবার তারা বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতিকে উকিল নোটিশ দেবে, আরবিট্রেশনের জন্য চাপ দেবে, এটা এত সহজে গ্রহণ করার মত অবস্থা না। যে নোটিস দেওয়া হয়েছে, সেটি নিয়ে সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায় পর্যন্ত অবহিত রয়েছে’ বলেন মন্ত্রী।

এই উকিল নোটিশ নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই উল্লেখ করে মোস্তাফা জব্বার বলেন, আদালতে মামলা চলাকালীন অবস্থায় আরবিট্রেশন করার ‍সুযোগ নাই। আদালত যদি হুকুম দেয় তাহলে করতে পারব। আর যে দেশে বিজনেস করে সেখানকার আইন আদালত অমান্য করে দুনিয়ার কোনো জায়গায় গিয়ে অন্য বিচার পাওয়ার সম্ভবনা নেই।

এদিকে মন্ত্রীর বক্তব্যের পরে এ বিষয়ে মুখ খুলেছে টেলিনর গ্রুপের এশিয়া রিজিয়নের কমিউনিকেশন্স পরিচালক ক্যাথরিন স্ট্যাং লন্ড।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে নিজেদের সম্পদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা টেলিনর গ্রুপের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ।

‘অডিট আপত্তির বিষয়টি স্বচ্ছভাবে নিষ্পত্তি করার উদ্দেশ্যে একটি গঠনমূলক সমাধানের লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আলোচনার আহবান জানাতেই এই নোটিশ প্রদান করে টেলিনর।’

তিনি বলেন, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তির মধ্যেই আলোচনার মাধ্যমে বিরোধ নিষ্পত্তির বিষয়টি রয়েছে। টেলিনর গ্রুপ বিশ্বাস করেএকটি স্বচ্ছ ও গঠনমূলক সমাধান নিশ্চিত করতে কর্তৃপক্ষ এবং অপারেটর এক যোগে কাজ করতে সম্মত হওয়াই এই অডিট বিরোধ নিষ্পত্তির সর্বোত্তম পন্থা।

জেডএসআই/এডি/২০১৯/ডিসে২১/২১০০

আরও পড়ুন –

রাষ্ট্রপতিকে উকিল নোটিশ দিয়েছে জিপির মূল কোম্পানি টেলিনর 

আবার এসএমপিতে আটকাচ্ছে জিপি

বিটিআরসির পাওনা টাকা জনগণের বলতে নারাজ জিপি

*

*

আরও পড়ুন