আমাদের ডিজিটাল স্পেসকে নিরাপদ করতে হবে : পলক

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আমাদের গত ১১ বছরে যেসব উন্নয়ন সেগুলো টেকসই করার জন্য ডিজিটাল স্পেসকে নিরাপদ করে তুলে হবে বলে জানান তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। 

পলক বলেন, যদি আমরা নিরাপদ করে তুলতে না পারি তাহলে কিন্তু আমরা হারিয়ে যাবো। আমাদের সামনে উদাহরণ আছে ইরাক, সিরিয়া তারা কিন্তু ধ্বংস হয়ে গেছে শুধুমাত্র তাদের সচেতনতার অভাবে। সেখানে সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গীকবাদের উত্থান হয়েছে। 

তৃতীয় জাতীয় ডিজিটাল দিবস উপলক্ষ্যে দেশব্যাপী শুরু হওয়া সোশ্যাল মিডিয়া প্যারেড আয়োজনের প্রথম মতবিনিময় সভায় রোববার চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) এসব কথা বলেন জুনাইদ আহমেদ পলক। 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা যদি আমাদের ডিজিটাল স্পেসটাকে নিরাপদ করতে না পারি তাহলে যে আজ ১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী-শিক্ষকদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেশন সেন্টার উপহার দিলেন সেটির কিন্তু কোনো কার্যকারিতা থাকবে না। 

যদি আমরা ডিজিটাল স্পেসে সচেতন না হই, তাহলে যতো কিছু আয়োজন-স্টার্টআপ বাংলাদেশের, স্টার্টআপ ফ্যাসেলিটিস, কিংবা আমাদের সফটওয়্যার ডেলেলপমেন্ট কোম্পানির জন্য ইনসেনটিভ এগুলোর কোনো কিছুই কাজে লাগবে না। কারণ আমরা দেখেছি, একের পর এক সহিংস ঘটনা কিভাবে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়া যায়, বলেন পলক। 

দেশে এখন ইন্টারনেট ব্যবহারকারী প্রায় ১০ কোটি। এটা খুবই ইতিবাচক দিক। তবে সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারের দিক থেকে সবাইকে সতর্ক থাকার কথা বলেন তিনি।  

পলক বলেন, দেশে এখন ফেইসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা তিন কোটি ছাড়িয়ে গেছে। এখন প্রতি এমবিপিএস ইন্টারনেট পাওয়া যায় ৩০০ টাকায়। যা দশ বছর আগে দাম ছিল ৭৮ হাজার টাকা। দাম যদি আগের মতোই থাকতো তাহলে এখন আমাদের মতো মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারতাম না। 

বক্তব্যের পর প্রতিমন্ত্রী চুয়েটের শিক্ষার্থীদের সামনে ‘সোস্যাল মিডিয়ার ইতিবাচক ব্যবহারে সচেতনতা বৃদ্ধি এবং উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন সংস্কৃতি তৈরি’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় একটি প্রেজেন্টেশন তুলে ধরেন। 

সেখানে তিনি সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারের ক্ষেত্রে করণীয় ও বর্জনীয় বিষয়গুলো তুলে ধরেন। একই সঙ্গে কিভাবে ইন্টারনেটে মিথ্যা সংবাদ গুজব আকারে ছড়িয়ে দেয় একটি মহল সে বিষয়ে আলোচনা করেন। 

এসব বিষয়কে গুরুত্ব দিয়েই তৃতীয়বারের মতো পালন করতে যাওয়া জাতীয় ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘সত্য-মিথ্যা যাচাই আগে, ইন্টারনেটে শেয়ার পরে’। 

যেকোনো তথ্য ইন্টারনেটে শেয়ার করার ক্ষেত্রে সত্য-মিথ্যা যাচাই করার পরামর্শ দেন প্রতিমন্ত্রী। 

আলোচনা সভার আগে প্রতিমন্ত্রী চুয়েটে ১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেশন সেন্টার স্থাপন প্রকল্পের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। 

এসময় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, চুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম, স্থানীয় সংসদ সদস্য এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী, অধ্যাপক মশিউল আলম, আইডিয়া প্রকল্পের পরিচালক মুজিবুল হকসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। 

ইএইচ/ ডিসে ০৮/ ২০১৯/ ১৬২০

*

*

আরও পড়ুন