যে টুইটের প্রশংসা করলেন সুন্দর পিচাই

CEO-Sundar-Pichai-techshohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : এখন অনেকক্ষেত্রে স্কুল কলেজে ভালো নম্বর অর্জনকেই সাফল্য বলে ধরে নেওয়া হয়।

যারা ভালো নম্বর পান না, ধরে নেওয়া হয় জীবনে তারা ভালো কিছু করতে পারবে না। তবে এই হিসাব সব সময় মেলে না। স্কুল কলেজে মাঝারি মানের নম্বর পেয়েও জীবনে উন্নতি করা লোকের উদাহরণ ভুরি ভুরি।

এই যেমন সারাফিনা ন্যান্স। টুইটে জানিয়েছেন, চার বছর আগে কোয়ান্টাম ফিজিক্সে তিনি শূন্য পেয়েছিলেন। ভয়াবহ ফলাফল বিপর্যয়ের কারণে শিক্ষকের সঙ্গে কথা বলে মেজর পরিবর্তন করতে চেয়েছিলেন। অথচ আজ তিনি ফিজিক্সেরই পিএইচডি শিক্ষার্থী। ইতোমধ্যে তারা দুটি গবেষণাপত্রও প্রকাশ হয়েছে। সাইন্স, টেকনলোজি, ইঞ্জিনিয়ারিং ও ম্যাথমেটিক্স সবার জন্যই কঠিন। কম নম্বর পাওয়ার অর্থ এই নয় যে, সে এই বিষয়গুলো পড়ার যোগ্য নয়।

অতি সাধারণ এই টুইটের বার্তা বেশ অনুপ্রেরণাদায়ক। তাই টুইটকারীর প্রসংশা করে টুইটটি নিজের ভেরিফাইড অ্যাকাউন্টে শেয়ার করেছেন গুগলের প্রধান নির্বাহী সুন্দর পিচাই।

শিক্ষা বিষয়ে এর আগেও নিজের মনোভাব জানিয়েছেন সুন্দর পিচাই। গত বছর এনবিসি পত্রিকায় তিনি লেখেন, অতীতে মানুষ পড়াশোনা শেষ করে চাকরির জন্য দক্ষতা অর্জন করতো। সারা জীবন এই পড়াশোনা ও দক্ষতা কাজে লাগিয়েই পার করা যেত। কিন্তু এখন সময় বদলেছে। প্রযুক্তি প্রতিনিয়ত বদলাচ্ছে। নতুন নতুন চাকরি ক্ষেত্র তৈরি হচ্ছে। প্রচলিত চাকরির ধরন বদলে যাচ্ছে। তাই সবার জন্যই শিক্ষা একটি চলমান প্রক্রিয়া হওয়া উচিত। সব সময় নতুন কিছু শেখা উচিত।

গ্যাজেটস নাউ অবলম্বন পিএন/ এজেড/ নভেম্বর ২৫/২০১৯/১৫০০

*

*

আরও পড়ুন