দেশে সংযোজিত অপো স্মার্টফোন আসছে নভেম্বরে

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশে স্থাপিত সংযোজন কারখানা হতে শুরুর দিকে বছরে ১২ লাখ স্মার্টফোন বাজারে ছাড়তে চাইছে অপো। 

স্মার্টফোনে নতুন নতুন প্রযুক্তি এনে চমক দেয়া ব্র্যান্ডটির এখানে কারখানা স্থাপনেও এক রকম চমক দিয়েছে। চলতি বছরেই কয়েক মাসের সিদ্ধান্তে এমন বড় পরিসরে কারখানা স্থাপন, লোকবল নিয়োগ, উৎপাদন প্রক্রিয়া শেষে এখন বাজারজাতের জন্যও তৈরি হয়ে গেছে তারা।

অপোর এই কারখানা গাজীপুরের ভোগড়া বাইপাস এলাকায়। স্থানীয়ভাবে অপো হয়ে এই কারখানা করেছে বেনলি ইলেক্ট্রনিক এন্টারপ্রাইজ কোম্পানি। 

কারখানাটিতে প্রথমে প্রতি মাসে ১ লাখ স্মার্টফোন সংযোজন করা হচ্ছে।

অপো বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডেমন ইয়াং টেকশহরডটকমকে বলেন, বাংলাদেশে স্থাপিত এই সংযোজন কারখানায় উৎপাদিত স্মার্টফোন সেরা গুণগত মানের সঙ্গে কমদামে পাবেন গ্রাহকরা।  

‘পাঁচ বছর ধরে বাংলাদেশে কার্যক্রম চালাচ্ছে অপো। এই সময়ে দেশের স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের জন্য নানা স্পেসিফিকেশনের স্মার্টফোন এনেছেন তারা। পাঁচ বছরের অভিজ্ঞতায় বাংলাদেশে স্মার্টফোন সংযোজন কারখানা করা হয়েছে। যেখান থেকে বিশ্বমানের অপো স্মার্টফোন সংযোজন করে স্বল্প দামের মধ্যে গ্রাহকদের হাতে দেয়া হবে’ বলেছিলেন তিনি।  

এছাড়াও বড় এই কর্মক্ষেত্রে দক্ষ লোকবলের কর্মসংস্থানও তৈরি হবে বলে উল্লেখ করেন ডেমন ইয়াং। 

সোমবার সংযোজনের প্রথম লট বাজারজাত করার লক্ষ্য রয়েছে অপো। তবে এটি কৌশলগত কারণে যদি পেছায় তারপরও নভেম্বরের মধ্যেই পণ্য বাজারে চলে যাবে বলে নিশ্চিত করেছেন কোম্পানিটির উর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা। 

ইতোমধ্যে এই কারখানায় ২৫০ জনের মতো কর্মী কাজ করছেন। এটি আরও বাড়বে বলে জানায় কোম্পাটির কর্মকর্তারা।

২০১৮ সালে দেশে কারখানা স্থাপন করে সেখানে সংযোজিত হ্যান্ডসেট বাজারে এনেছে ওয়ালটন, সিম্ফনি, স্যামসাং, আইটেল-ট্র্যানসান ও ফাইভস্টার।

এই পাঁচ কোম্পানির পরে লাভা, ওকে মোবাইল, উইনস্টার, ভিভো দেশে কারখানা করে। 

এছাড়া উই ও ফরমি নামে দুটি ব্র্যান্ড কারখানা স্থাপনের কার্যক্রম শুরু করলেও তাদের উল্লেখযোগ্য কোনো অগ্রগতি নেই।  

এডি/২০১৯/অক্টো২৫/২১০০

আরও পড়ুন – 

দেশে মোবাইল কারখানা করছে ভিভো

দেশে স্মার্টফোন আমদানি বন্ধ করবে স্যামসাং 

দেশে সম্ভাবনাময় খাত সেমিকন্ডাক্টর শিল্প 

দেশে হ্যান্ডসেট সংযোজনে সাত আবেদন

*

*

আরও পড়ুন