Techno Header Top and Before feature image

দেশে স্মার্টফোন আমদানি বন্ধ করবে স্যামসাং

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশে নিজেদের চাহিদার সব স্মার্টফোনই স্থানীয়ভাবে উৎপাদন করতে চায় স্যামসাং। 

আগামী ছয় মাসের মধ্যে সব প্রস্তুতি নিয়ে এর পর হতে দেশে আর কোনো স্মার্টফোন আমদানি করবে না তারা। 

শনিবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানায় বিশ্বখ্যাত কোম্পানিটি।

দেশে হ্যান্ডসেট সংযোজন কারখানা স্থাপনের এক বছর পূর্তি উপলক্ষে এই সংবাদ সম্মেলন করেছিল স্যামসাং বাংলাদেশ এবং প্রতিষ্ঠানটির দেশীয় অংশীদার ফেয়ার ইলেক্ট্রনিক্স।

এতে বক্তব্য রাখেন ফেয়ার ইলেক্ট্রনিক্সের চেয়ারম্যান রুহুল আলম আল মাহবুব, স্যামসাং বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার স্যাংওয়ান ইয়ুন।

রুহুল আলম আল মাহবুব জানান, নরসিংদীতে স্যামসাংয়ের কারখানায় এখন সাড়ে ৭ হাজার হতে ৪০ হাজার টাকা দামের স্মার্টফোন সংযোজন হয়। যা দেশে স্যামসাংয়ের চাহিদার ৯৬ শতাংশ। 

‘স্যামসাং ৪০ হাজার টাকা দামের বেশি ফ্লাগশিপ স্মার্টফোনগুলো এখন আমদানি করছে। পরবর্তী কোয়াটার হতে এখানে এই ফ্লাগশিপগুলোও সংযোজন শুরু হবে। ২০২০ সালের মার্চের পর তারা আর স্মার্টফোন আমদানি করবেন না’ বলছিলেন তিনি। 

রুহুল আলম আল মাহবুব বলেন, এখন দেশে বছরে ১৫ লাখ স্মার্টফোন তৈরি করছে স্যামসাং। ২০২০ সালে এটি ২০ লাখে নিয়ে যাওয়া তাদের লক্ষ্য। 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন স্যামসাং মোবাইল বাংলাদেশের সিনিয়র ডিরেক্টর এইচ ডি লি, জেনারেল ম্যানেজার বোমিন কিম, হেড অব মার্কেটিং আশিক হাসান, হেড অব প্রোডাক্ট টিম ফজলুল মুশাইর চৌধুরী এবং অ্যাসিসট্যান্ট ম্যানেজার (মার্কেটিং কমিউনিকেশনস) প্রিয়াম হাসনাত, ফেয়ার গ্রুপের চিফ মার্কেটিং অফিসার মেসবাহ উদ্দিন, হেড অব মার্কেটিং জে এম তাসলিম কবির এবং ডেপুটি ম্যানেজার (মার্কেটিং) রাজেশ শর্মা।

স্যামসাংয়ের কারখানায় বর্তমানে ৫০ জন প্রকৌশলীসহ এক হাজার কর্মী রয়েছেন। যেখানে ২৫ শতাংশ নারী কর্মী ।  

এডি/২০১৯/অক্টো১২/১৯০০

*

*

আরও পড়ুন