ই-কমার্সে ভ্যাট সেবা মূল্যে, এসআরও জারি

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ই-কমার্স বা অনলাইনকেন্দ্রিক কেনাকাটার ওপর আরোপিত মূল্য সংযোজন কর (মূসক) বা ভ্যাট স্পষ্ট করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড।  

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড রোববার একটি এসআরও দিয়ে বিষয়টি স্পষ্ট করেছে। যেখানে আর ই-কমার্স কেনাকাটায় দ্বৈত মূসক থাকছে না। সেবা কোড এস০৯৯৬০ এর আওতায় ‘অনলঅইনে পণ্য বিক্রয়’ নামের ওই এসআরও জারি করেছে রাজস্ব বোর্ড। 

চলতি অর্থ বছরের বাজেটে মোট বিক্রয় মূল্যের ওপর কর আরোপ করা হলেও এবার তা কমিয়ে কমিশন বা সার্ভিস চার্জের ওপর ধার্য করা হয়েছে। এতে করে ব্যবসায়ী ও ভোক্তা উভয়েই প্রান্তিক পর্যায়ে দ্বৈত কর আর দিতে হবে না। 

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের ব্যাখ্যা অনুযায়ী, অনলাইনে পণ্য বিক্রয় অর্থ ইলেক্ট্রনিক নেটওয়ার্ক ব্যবহারের মাধ্যমে সেই সকল পণ্য ও সেবার ক্রয়-বিক্রয়কে বোঝাবে যা ইতোপূর্বে কোনো উৎপাদনকারী বা সেবা প্রদানকারীর কাছ থেকে মূসক পরিশোধপূর্বক গৃহীত হয়েছে এবং যাদের নির্দিষ্ট কোনো সেবা কেন্দ্র নেই।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের প্রথম সচিব (মূসক আইন ও বিধি) হাছান মুহম্মদ তারেক রিকাবদার সাক্ষরিত ওই চিঠিতে অনলাইনে পণ্য বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠানকে একটি ‘বিক্রয় মাধ্যম’ হিসেবে গণ্য করে এসব প্রতিষ্ঠান পণ্যের মূল সরবরাহকারী ও উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান থেকে কমিশন, ফি, সার্ভিস চার্জ, রেভিনিউ শেয়ারিং বা অন্যবিধভাবে সেবামূল্য গ্রহণ করে থাকে যুক্তিতে এসব প্রতিষ্ঠানকে পুনরায় সম্পূর্ণ পণ্য মূল্যের ওপর মূসব পরিশোধ করতে হবে না। 

বলা হয়ছে, গ্রাহক পর্যায়ে অনলাইনে পণ্য-সেবা পৌঁছে দেয়ায় প্রাপ্ত সেবা মূল্যের বিপরীতে এসব প্রতিষ্ঠানকে ৫ শতাংশ মূসক দিতে হবে।

ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশে (ই-ক্যাব) সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মাদ আব্দুল ওয়াহেদ তমাল জানান, তাদের যৌক্তিক দাবির প্রতি সমর্থন দিয়ে রাজস্ব বোর্ড এমন একটি নির্দেশনা দিয়েছে। এজন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

বিষয়টি নিয়ে বাজেট পেশের পর থেকেই দাবির পক্ষে কাজ করে আসছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকসহ আরও অনেকেই। 

ইএইচ/ সেপ্টে ২২/ ২০১৯/ ২০৫০

আরও পড়ুন – 

ই-কমার্সে ভ্যাট থাকলো ৫ শতাংশ

নীতিমালা বদলাচ্ছে, ই-কমার্সে শতভাগ এফডিআইর সুযোগ আসছে

*

*

আরও পড়ুন