ম্যাসল্যাবের প্রযুক্তিময় শারদ

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : চতুর্থ শিল্প বিপ্লব মোকাবেলায় একটা শারদ উৎসব কেমন হতে পারে? সেই একটি চিন্তা থেকে এবার শাদর উৎসবকে প্রযুক্তিময় করবে মাকসুদুল আলম সায়েন্স ল্যাবরেটরি (ম্যাসল্যাব)।

উৎসবে থাকছে শারদীয় বিজ্ঞান বক্তৃতা, শারদীয় গণিত যজ্ঞ, শারদীয় রোবট হাঙ্গামা, শারদীয় স্ক্র্যাচ যাত্রা এবং শারদীয় বিজ্ঞান ভ্রমণ।

রোববার  বিকেলে রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডের দীপনপুরে এই বিজ্ঞান বক্তৃতার আয়োজ করা হয়েছে। এর মাধ্যমেই শুরু ম্যাসল্যাব শারদ উৎসব।

বক্তৃতার শিরোনাম-‘জিন প্রকৌশল : আরেক ফ্রাঙ্কেনস্টাইন?’ বক্তব্য রাখবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জিন প্রকৌশল ও জীবপ্রযুক্তি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এসএম মাহবুবুর রশিদ।

জিন প্রকৌশল এমন এক অধ্যায় যেখানে প্রাণীর জিনের নকশা পরিবর্তন করা যায়। প্রাণীর সকল বৈশিষ্টের ধারক ও বাহক হল জিন। কেমন হতে চলছে জিন প্রকৌশল নিয়ে আমাদের ভবিষ্যৎ? আসলেই কি জিন প্রকৌশল ফ্র্যাঙ্কেস্টাইনের মতো কিছুর দিকে যাচ্ছে নাকি বাস্তবতা এর থেকে ভিন্ন? এসব নিয়েই শারদীয় বিজ্ঞান বক্তৃতা অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়া আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর শুরু হবে শারদীয় গণিত যজ্ঞ। সমাজে দুর্গতি তৈরি করে এমন লোকের সংখ্যা কম নয়। তাদের নাশ করতে হলে যে কয়টি স্কিল লাগবে তার একটি হল গণিত। এই যজ্ঞের বিষয় তাই গণিত। মোট আটটি সেশন হবে। ক্লাস শুরু হবে সকাল ৯টা থেকে।

এর বাইরে গত জুলাই মাসে অনুষ্ঠিত সামার স্কুল অব রোবটিক্সে যারা অংশ নিয়েছিলো, তাদের নিয়ে শুরু হচ্ছে শারদীয় রোবটিক্স হাঙ্গামা। এটি একটি এক্সটেনশন ক্যাম্প, সামার স্কুল যেখানে শেষ হয়েছিল, তারপর থেকে শেখানো শুরু করা হবে। এটি হবে দুইদিন, সারা দিনব্যাপী।

কিভাবে আইআর সেন্সর থেকে প্রাপ্ত ডেটা বিশ্লেষণ করে কোডে লজিক যুক্ত করা যায়, যেন লাইন ফলোয়ার রোবট সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়ে সামনের রাস্তায় এগিয়ে যেতে পারে। লাইন ফলোয়ার রোবটটির সঙ্গে কিভাবে সোনার সেন্সর ও সারভো মোটর যুক্ত করে রবোটিক আর্ম নিজ হাতে বানানো যায়।

বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াডে ব্যবহৃত রোবট গেদারিং প্রতিযোগিতার জুনিয়র ও চ্যলেঞ্জ উভয় ক্যাটাগরির ট্র্যাক সলভ করাই এই ক্যাম্পের মূল উদ্দেশ্য।

আগামী ২০২০ সাল থেকে আন্তর্জাতিক স্ক্র্যাচ অলিম্পিয়াডে যোগদানের প্রস্তুতি শুরু হবে এখনই। সেই সঙ্গে ২০১৯ এর স্ক্র্যাচ অলিম্পিয়াডের আলোচনা। স্ক্র্যাচ অলিম্পিয়াডের প্রস্তুতির শুভসূচনা হবে এই শরতে। স্ক্র্যাচের এ সকল প্রস্তুতি নিয়েই সাজানো হয়েছে শারদীয় স্ক্র্যাচ যাত্রা। উৎসবের শেষ হবে ঢাকার আশেপাশে কোন এক কাশবনে সকালে দুপুর ঘুরে বেড়ানোর মাধ্যমে। ম্যাসল্যাবের ক্ষুদে শিক্ষাত্রীরা শরতের আকাশ দেখবে, দেখবে কাশবন। এই শারদীয় বিজ্ঞান ভ্রমণের মাধ্যমেই শেষ হবে ম্যাসল্যাব শারদ উৎসব।

পুরো আয়োজনে সহযোগিতা করছে ইন্টারনেট সোসাইটি বাংলাদেশ চ্যাপ্টার।

ইএইচ/ সেপ্টে২২/ ২০১৯/ ১৮২৪

*

*

আরও পড়ুন