বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের ৪২% ক্ষমতার ব্যবহার

Bangabandhu-1 Satellite-TechShohor

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের প্রথম স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১ এর ক্ষমতার ৪২ শতাংশ এরই মধ্যে ব্যবহার হয়ে গেছে।

এমন তথ্য জানিয়েছে রাষ্ট্রায়াত্ত্ব কোম্পানি কমিউনেকশন স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেড (বিসিএসসিএল)।

তারা বলছে, গত বছর মে মাসে বঙ্গবন্ধু-১ এর যাত্রা শুরু করার পর মাত্র দেড় বছরেরও কম সময়ের মধ্যে ক্ষমতার এতোটা ব্যবহার করে ফেলা নিঃসন্দেহে বড় একটি অর্জন।

জানা গেছে, এরই মধ্যে বেশ কয়েকটি স্যাটেলাইট টেলিভিশন বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মাধ্যমেই তাদের সম্প্রচার কার্যক্রম পরিচালনা করছে। তাছাড়া ডিটিএইচ কোম্পানি আকাশও বঙ্গবন্ধু-১ এর কাছ থেকে ছয়টি ট্রান্সপন্ডার ভাড়া নিয়েছে। এর বাইরে বেশ কয়েকটি ব্যাংকও বিসিএসসিএল-এর সঙ্গে চুক্তি করেছে।

তবে ৪২ শতাংশ ক্ষমতা ব্যবহারের ক্ষেত্রে কোন কোম্পানি কতোটা নিয়েছে বা এ থেকে বিসিএসসিএল-এর আয় কতো সে সম্পর্কে কোনো তথ্য দেয়নি কোম্পানিটি।

জানা গেছে, গত মে মাস থেকে যমুনা টিভি, দীপ্ত টিভি, সময় টিভি, মাই টিভি এবং বাংলা টিভির সঙ্গে চুক্তি করে বিসিএসসিএল।

এর আগে সোনালী ব্যাংকের সঙ্গেও চুক্তি হয় তাদের। যাতে ব্যাংকটি ব্রাঞ্চ-টু-ব্রাঞ্চ যোগাযোগ ও এটিএমে সেবা দেবে। পরে চুক্তি হয়েছে ডাচ-বাংলা ব্যাংক এবং আকাশের সঙ্গেও।

তারও আগে নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় এবং সরকারের আরও কয়েকটি মন্ত্রণালয়ও বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট ব্যবহারের বিষয়ে বিসিএসসিএল-এর সঙ্গে সমঝোতা স্বারক স্বাক্ষর করেছে।

স্যাটেলাইটটিতে ৪০টি ট্রান্সপন্ডার ক্যাপাসিটির মধ্যে প্রথমে ২০টি বিদেশে বিক্রি করার পরিকল্পনা করা হলেও এখন আর সেখানে নেই সরকার।

এ বিষয়ে বিসিএসসিএলের চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বলেন, তাদের কোম্পানি প্রত্যাশার চেয়ে ভালো করছে।

কতো টাকা আয় হল না হল তার চেয়ে বড় কথা হল দেশের ভেতরেই যে স্যাটেলাইটের এতোটা চাহিদা আছে সেটিও তো অনেকে জানাতেন না। সেই বিষয়টিও বঙ্গবন্ধু-১ সেবা কার্যক্রম শুরু করার পর জানা গেছে, বলেন তিনি।

তিনি জানান, প্রতিদিনই তারা নতুন নতুন প্রস্তাব পাচ্ছেন। তাতে অল্প দিনের মধ্যেই দেশের প্রথম এই কমিউনিকেশন স্যাটেলাইটের ক্ষমতার পুরোটা ব্যবহারহয়ে যাবে।

এদিকে প্রথম স্যাটেলাইটে সফল হওয়ার পর সরকার বঙ্গবন্ধু-২ স্যাটেলাইটের নিয়েও কাজ শুরু করছে। চলত মাসের শুরুতে এ বিষয়ে একটি কনসালটেশন বৈঠকও হয়েছে।

বলা হচ্ছে, অভ্যন্তরীণ বাজার থেকেই আট বছরের মধ্যে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের খরচ হওয়া টাকার পুরোটাই উঠে আসবে।

এর আগে গত বছর ১১ মে ফ্লোরিডা থেকে উৎক্ষেপণের ছয় মাস পর বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের ফরাসি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান থ্যালেস অ্যালেনিয়ার কাছ থেকে স্যাটেলাইটের রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালনার দায়িত্ব বুঝে পায় বাংলাদেশ। মূলত তার পর থেকেই এর বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

মহাকাশে বঙ্গবন্ধু-১ পাঠাতে সব মিলে সরকারের খরচ হয়েছে দুই হাজার ৭৬৫ কোটি টাকা।

জেএ/ইএইচ/ সেপ্টে ২০/ ২০১৯/ ১৪৩০

আরও পড়ুন –

বঙ্গবন্ধু-২ স্যাটেলাইটে হবে প্রত্যন্ত এলাকার ডিজিটালাইজেশন : পলক

বিদেশি স্যাটেলাইটের ডাউনলিংক ফি সাড়ে ৩ কোটি টাকা

*

*

আরও পড়ুন