তথ্যপ্রযুক্তির উন্নয়নে বাংলাদেশ অনুকরণীয় : ফিলিপাইনের মন্ত্রী

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে বাংলাদেশের উন্নয়নকে অনুকরণীয় বলে উল্লেখ করেছেন ফিলিপাইনের বাংসামারু’র ইন্টেরিয়র ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রী এটর্নি নাগীব সীনারিমবো।

তিনি বলেনছেন, গত কয়েক বছরে তথ্যপ্রযুক্তি ও সামাজিক ব্যবসার মাধ্যমে বাংলাদেশ অনেকদূর এগিয়ে গেছে। আমাদের মন্ত্রিপরিষদে আমি সব সময় বাংলাদেশের উদাহরণ দিয়ে থাকি। কারণ, তৃতীয় বিশ্বের একটি দেশের এমন উত্থান সত্যিই অনুকরণীয়।

বৃহস্পতিবার রাজধানীতে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সার্ভিস বাস্তবায়ন পরিকল্পনা সমন্বয়করণ ও ডিজাইন ল্যাবের সমাপনী অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

অনু্ষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এবং আরেক বিশেষ অতিথি ছিলেন ইউএনডিপি ফিলিপাইনের রেসিডেন্ট রিপ্রেজেন্টেটিভ টিটন মিত্রা। অনু্ষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আখতার হোসেন।

বক্তব্যে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আমরা এখন তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে সকল নাগরিকসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে কাজ করছি।  তারুণ্যের শক্তি বর্তমান সরকারের একটি অন্যতম এজেন্ডা।

তিনি বলেন, ক্রীড়াপ্রেমী প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের সকল খেলাকে আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন করার লক্ষ্যে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা করা ও তদানুসারে বাস্তবায়ন করার ক্ষেত্রে সদা সচেতন। এই ডিজাইন ল্যাবে ডিজাইনকৃত প্ল্যাটফর্মের আওতায় মোট ২২টি সেবাকে বিশ্লেষণ পূর্বক ৭টি সিস্টেম ডিজাইন করা হয় যা পরবর্তিতে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সমন্বিত সার্ভিস ডেলিভারি প্ল্যাটফর্মে রূপ নেবে।

প্রতিমন্ত্রী ইউএনডিপিকে দুই দেশের মধ্যে সেতুবন্ধ হিসেবে কাজ করার জন্য ধন্যবাদ দেন।

পলক পরে ফিলিপাইনের বাংসামারু’র ইন্টেরিয়র ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী এটর্নি নাগীব সীনারিমবোকে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর করার জন্য অনুরোধ করেন। এর মাধ্যমে দুই দেশই নিজেদের অভিজ্ঞতা ভাগাভাগি করে, একসাথে তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে অগ্রগতি আরও বাড়িয়ে তুলতে কাজ করতে পারবে বলে জানান।

ডিজিটাল সার্ভিস ডিজাইন ল্যাবে সাতটি গ্রুপের পর্যালোচনায় একটি ইন্টিগ্রেটেড ডিজিটাল সার্ভিস ডেলিভারি প্ল্যাটফর্মের বিষয় উঠে এসেছে। যার মধ্যে যুবকদেরকে সহজ শর্তে ঋণ প্রদান সিস্টেম, খেলাধুলার ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম, শারিরীক ও ক্রীড়া শিক্ষা ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম, স্পোর্টস ও যুব ক্লাব ম্যানেজমেন্ট, স্পোর্টস ইনফ্রাস্ট্রাকচার ম্যানেজমেন্ট ও ট্রেনিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম উল্লেখযোগ্য।

ডিজিটাল সার্ভিস রোডম্যাপ-২০২১ কর্মশালায় সনাক্তকৃত সিস্টেমসমূহ দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য এটুআই-এর ডিজিটাল সার্ভিস অ্যাক্সেলেরেটর টিমের সহযোগিতায় যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় গত ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে ৬ দিনব্যাপী ‘ডিজিটাল সার্ভিস ডিজাইন ল্যাব’ আয়োজন করেছে।

এই ল্যাবে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়-কেন্দ্রিক সকল গুরুত্বপূর্ণ সেবা প্রদান পদ্ধতি বিশ্লেষণের ক্ষেত্রে সেবা প্রদানের ধাপ, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, সেবা প্রাপ্তির সময় ও খরচ এবং সেবা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে বিদ্যমান সমস্যাসমূহ বিবেচনায় আনা হয়েছে। সেবাপ্রাপ্তিতে নাগরিকদের সময়, অর্থ এবং যাতায়াত হ্রাসের লক্ষ্যে সেবা প্রদান পদ্ধতি বিশ্লেষণের মাধ্যমে সেবাসমূহকে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে মোবাইল অ্যাপ বা ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন তৈরির পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

ডিজাইন ল্যাব কর্মশালায় যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ২৪ জন কর্মকর্তা, ৭ জন সরকারি-বেসরকারি ডিজিটাল সার্ভিস এনালিস্ট, ৮ জন এটুআই-এর কর্মকর্তা এবং ১৪ জন সংশ্লিষ্ট সেবাগ্রহীতা অংশগ্রহণ করেন।

সমাপনী অনুষ্ঠানে এটুআই-এর চিফ স্ট্রটেজিস্ট (ই-গভর্ন্যান্স) ফরহাদ জাহিদ শেখ ল্যাবে ডিজাইনকৃত ও পরিকল্পনাকৃত ডিজিটাল সার্ভিসগুলো সমন্বয় করে ‘ডিজিটাল সার্ভিস ডেলিভারি প্ল্যাটফর্ম’এর প্রস্তাবনা উপস্থাপন করেন। প্রস্তাবিত এই সমন্বিত প্ল্যাটফর্ম দ্রুত বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে এটুআই-এর প্রকল্প পরিচালক ড. আবদুল মান্নান, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ফাইজুল কবির এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, ইউএনডিপি ফিলিপিন, বাংসামারু, ফিলিপাইনের ইন্টেরিয়র ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ইএইচ/ সেপ্টে ২০/ ২০১৯/ ১০৫৫

*

*

আরও পড়ুন