স্থানীয় ই-কমার্স উদ্যোক্তারা সুরক্ষা চান

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ই-কমার্স নীতিমালা গেজেট হওয়ার পর আবারও সেটি সংশোধনীতে গেছে। ই-কমার্স খাতের উদ্যোক্তাদের সুরক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্টদের আহ্বান জানিয়েছেন উদ্যোক্তারা। 

সম্প্রতি টেকশহর ডটকমে ই-কমার্স নীতিমালা নিয়ে আলোচনায় এসে খাতটির উদ্যোক্তা ফাহিম মাসরুর এবং এটুআইয়ের রুরাল ই-কর্মাস টিম লিড ও ই-ক্যাব সহ-সভাপতি রেজওয়ানুল হক জামী এমন আহ্বান জানিয়েছেন নীতি নির্ধারকদের। 

আলোচনার শুরুতেই রেজওয়ানুল হক জামী বলেন, আমি মনে করি ই-কমার্স যে নীতিমালা করা হয়েছে সেটি বাংলাদেশের জাতীয় বিনিয়োগ নীতিমালার সঙ্গে সাংঘর্ষিক। জাতীয় বিনিয়োগ নীতিমালায় বলা আছে, বাংলাদেশে বিদেশী কেউ চাইলে ‘বিদেশি সরাসরি বিনিয়োগ’ (এফডিআই) করতে পারেন। কিন্তু ই-কমার্স নীতিমালা বলা আছে, এখানে শতভাগ বিনিয়োগ বিদেশী হতে পারবে না। 

ফলে এটাই সমাধানের জন্য নীতিমালাটি গেজেট হবার পর আবারও সংশোধন করতে পাঠানো হয়েছে।

ই-কমার্স খাতে বিদেশী সরাসরি বিনিয়োগ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে ফাহিম মাসরুর বলেন, সবার আগে দেখতে হবে কোনো উদ্যোক্তা কি বিদেশী বিনিয়োগ নিতে অস্বীকার করে কিনা। কারণ, ই-কমার্স ব্যবসা করতে গেলে একটা বড় ধরনের বিনিয়োগ করতে হয়। ফলে সবাই চায় তার ব্যবসায় বিনিয়োগ আসুক।

তিনি বলেন, অন্য দেশগুলোর দিকে যদি আমরা খেয়াল করি তবে দেখতে পাবো, সেখানে স্থানীয় উদ্যোক্তাদের সুরক্ষা দিতে তারা নানান ধরনের নীতিমালা করে থাকে। এখন কেউ যদি স্থানীয় কোন প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করে এবং সেটার শতভাগ মালিকানা তার অধীনে চলে যায় তবে দেশীয় যে উদ্যোক্তা, তার তো আর কিছুই থাকবে না। কারণ তখন সে আর উদ্যোক্তা থাকছে না। 

আলোচনায় ফাহিম মাসরুর বলেন, বাংলাদেশের যে ই-কমার্স নীতিমালা করা হয়েছে সেখানে অবশ্যই যেন দেশীয় উদ্যোক্তাদের সুরক্ষার বিষয়টি থাকে। সেটি না থাকলে দেশে উদ্যোক্তা তৈরি হবে না বলেও জানান তিনি। 

এছাড়াও ই-কমার্স নীতিমালা নিয়ে বিভিন্ন প্রেক্ষাপটে আলোচনা হয়েছে ওই অনুষ্ঠানে। 

পুরো আলোচনা শুনতে হলে ভিডিওটি দেখতে পারেন। 

ইএইচ/ সেপ্টেম্বর ১৫/ ২০১৯/ ১৫০০

*

*

আরও পড়ুন