প্রবাদ বাক্যকে অচল করে দেওয়া উদ্যোগ জাহাজী

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আদার ব্যাপারীর আবার জাহাজের খবর! প্রবাদটি সবার মুখে মুখেই প্রচলিত। তবে তিন তরুণ এক উদ্ভাবনী উদ্যোগ ‘জাহাজী’ সেই প্রবাদকেই হুমকীতে ফেলেছে। 

আদার ব্যাপারী যে জাহাজের খবর রাখতে পারে সেটি প্রমাণ দিয়েছেন সেই তরুণরা। এমনকি চাইলে ব্যাপারী জাহাজ (পণ্যবাহী) ভাড়াও করতে পারবেন বিশ্বের যেকোনো জায়গায় বসে। তাই চাইলেও আদার ব্যাপারী বলে  তাকে আর তুচ্ছ জ্ঞান করার কোন হেতু পাবেন না।

যেভাবে শুরু 

একটি সমস্যা থেকেই জাহাজীর কথা মাথায় আসে উদ্যোক্তাদের। জাহাজীর সহপ্রতিষ্ঠাতা এবং পরিচালক অভিনন্দন জোতদার করেন সাপ্লাইয়ার ব্যবসা। তিনি নদী পথে পাথরম বালি, কয়লার মতো পণ্য চাহিদার ভিত্তিতে বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের কাছে সরবরাহ করেন। কিন্তু অনেক সময় পণ্যবাহী জাহাজ ভাড়া করা, সেটা সঠিক সময়ে পাওয়া, সঠিক সময়ে পণ্য নিয়ে গন্তব্যে পৌঁছাচ্ছে কিনা এমন খোঁজ পাওয়া দায় হয়ে যায়। এমন সমস্যার সম্মুখীন হওয়ার পর সমাধানের পথ খুঁজতে থাকেন তিনি। 

জাহাজীর আরেক সহপ্রতিষ্ঠা এবং প্রধান নির্বাহী কাজল আবদুল্লাহ সম্প্রতি টেকশহরডটকমের অতিথি হয়ে আলোচনায় অংশ নিয়ে উদ্যোগটি সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেন। 

কাজল আবদুল্লাহ বলেন, সমস্যায় পড়ার পর অভিনন্দন আমার সঙ্গে আলাপ করেন। সেটাও কিন্তু ২০১৭ সালে। আমরা তখন খুলনায়। প্রতিদিন সন্ধ্যা বা রাতে কাজ শেষে আমরা আড্ডা দিতাম। আর সেই সমাধানের পথ খুঁজতাম। এরপর আমরা পুরো ব্যবস্থাকে একটা ডিজিটালাইজেশনের মধ্যে নিয়ে আসতে চাইলাম। 

তিনি জানান, এরপর তারা আনঅফিসিয়াল কিছু জরিপ কাজ শুরু করেন। দেখতে চান দেশে আসলে কতগুলো পণ্যবাহী জাহাজ চলাচল করছে। তারা সরকারি নিবন্ধিত সাড়ে ছয় হাজারের মতো জাহাজ দেখতে পান। তবে এর সঠিক পরিমাণ তারা ৩০ হাজারের বেশি বলে জরিপে দেখতে পান। 

তখন তারা কিছু জাহাজ মালিকের সঙ্গে কথা বলেন। তারা সমস্যাগুলো নিয়ে খুলনার জাহাজ মালিক বাহাউদ্দিন রূপকের সঙ্গে বসেন। তিনিও উদ্যোগটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা। এরপর তারা জাহাজী অ্যাপ আনার ব্যাপারে সম্মত হোন ও কাজ শুরু করেন। 

আর সবকিছু করে গত ৮ সেপ্টেম্বর অ্যাপটি উন্মোচন করেন এবং জাহাজীর আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করেন। 

কাজ চলছে

আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের আগে থেকেই জাহাজী অ্যাপের পরীক্ষামূলক ব্যবহার শুরু হয়েছে গত মাস ছয়েক আগে থেকে স্বরূপকাঠি অঞ্চলে। আর সবকিছু ঠিক করেই প্রতিষ্ঠানটি আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করেছে। এখন কাজ চলছে অ্যাপে আরও বেশি করে পণ্যবাহী জাহাজ নিবন্ধন করতে। 

অ্যাপে কী করা যায়

মোবাইল অ্যাপ জাহাজীতে রয়েছে পণ্যবাহী জাহাজ ভাড়া করার অপশন। জাহাজের ভাড়া কত হবে সেটিও দেখা যাবে। ভাড়া করার পর থেকে জাহাজটি ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে তার অবস্থান জানতে পারবেন ব্যবসায়ীরা। কতদিনে গন্তেব্যে পৌঁছাতে পারে সেটিও সময় দেখে ধারণা পাবেন তারা। অ্যাপের মাধ্যমেই ব্যবসায়ীরা চাইলে জাহাজে থাকা পণ্য যেমন পাথর, বালি, কয়লা, সিলেট কিনতে পারবেন বা বেচতে পারবেন। এজন্য অবশ্য জাহাজী পণ্যের মান ঠিক আছে কিনা সেটির সনদও দেবে পরীক্ষা করার পর। সেটিও পাওয়া যাবে ওই অ্যাপেই। সনদ দেবার জন্য যে পরীক্ষা প্রয়োজন তার জন্য জাহাজীর ল্যাবও রয়েছে বলে জানান কাজল আবদুল্লাহ। 

এজন্য তিনটি অপশন রয়েছে অ্যাপে। জাহাজ ভাড়া, ট্র্যাকিং এবং মার্কেটপ্লস। 

অ্যাপ ডাউনলোড

মোবাইলে জাহাজী অ্যাপ ডাউনলোড করতে চাইলে গুগলের প্লে স্টোরে যেতে হবে। সেখানে জাহাজী লেখে সার্চ করলে পাওয়া যাবে জাহাজী লিমিটেডরে অ্যাপটি। এরপর সেটি ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন। 

ব্যবসায়ীরা অ্যাপটি ব্যবহারের ক্ষেত্রে তাদের কোম্পানির নাম, নিজের নাম এবং মোবাইল নম্বর দিয়ে নিবন্ধন করতে পারবেন। রয়েছে হটলাইন নম্বর যেকোনো প্রয়োজনে নম্বরে যোগাযোগ করে তাৎক্ষণিক সমস্যার সমাধান নিতে পারবেন যে কেউ। বা নিতে পারবেন পরামর্শ। 

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা

জাহাজী শুধু একটা প্লাটফর্ম নয়, এটি একটি স্বপ্ন বলে উল্লেখ করেন কাজল আবদুল্লাহ। তিনি বলেন, আমরা অভ্যন্তরীন নদী পথে পণ্য পরিবহণের এই বিশৃঙ্খল অবস্থাকে একটা শৃঙ্খলাবদ্ধ করতে চাই। ব্যবসায়ীরা যেন তার ভাড়া করা জাহাজ সঠিক সময়ে পান, তার পণ্য যেন সঠিক সময়ে তার ক্রেতার কাছ পৌঁছে দিতে পারেন সেই নিশ্চয়তা আমরা দিতে চাই। 

অ্যাপটির মাধ্যমে আমরা এই খাতটিকে ডিজিটালাইজেশনের আওতায় আনতে চাই। সেই লক্ষ্যেই কাজ করছি এবং করবো, বলেন কাজল আবদুল্লাহ।

জাহাজী নিয়ে বিস্তারিত পরিকল্পনা এবং তাদের কাজ সম্পর্কে জানতে নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন। সেখানে টেকশহরের সঙ্গে নিজেরে পরিকল্পনা এবং কাজের কথা জানিয়েছেন প্রধান নির্বাহী কাজল আবদুল্লাহ। 

ইএইচ/ সেপ্টেম্বর ১৪/ ২০১৯/ ১৫১৬

 

*

*

আরও পড়ুন