শতাধিক উদ্যোক্তাকে ফান্ডিং করা হবে : পলক

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের শতাধিক উদ্যোক্তাকে ফান্ডিং করার কথা জানিয়েছেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

তিনি বলেছেন, ২০২০ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী। সেই জন্ম শতবার্ষিকী স্মরণীয় করে রাখার জন্য আমরা তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ থেকে একটা হান্ড্রেড প্লাস স্ট্র্যাটেজি নিয়েছি।  সেখানে ১০০ ই-সেবা, অন্তত ১০০ মিলিয়ন মানুষের জন্য।  আমরা আশা করছি এর মধ্যে ১০০ প্লাস ইনোভেটর বা অন্ট্রাপ্রেনরকে ফান্ডিং করবো।  তারা এসব উদ্যোগ দিয়েই বাংলাদেশে একশো বিলিয়ন ডলারের অপরচুনেটি তৈরি করবে আগামী দশ-কুড়ি বছরের মধ্যে।

আমরা এখন যে সময়ের মুখোমুখি হচ্ছি সেখানে ইমার্জিং টেকনোলজিগুলো জানার কোনো বিকল্প নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা এই নতুন প্রযুক্তির জন্য কাজ করতে দেশে উদ্যোক্তাও তৈরি করতে চাই।

শুক্রবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারের জনতা টাওয়ার সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে প্রথমবারের মতো ‘ডিজিটাল ডিভাইস অ্যান্ড ইনোভেশন এক্সপো-২০১৯’ আয়োজন উপলক্ষ্যে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

আগামী ১৪ থেকে ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত তিন দিনব্যাপী এক্সপোটি রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি বলেন, আমরা ওই আয়োজন থেকে একটি ‘বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ড বা বিআইজি’ এই নামে একটা ইনোভেশন চ্যালেঞ্জ আমরা শুরু করবো।  যেটা আগামী দিনে চলমান থাকবে।  যেখানে ন্যূনতম দশ লাখ টাকা থেকে পাঁচ কোটি টাকা পর্যন্ত ফান্ড ও ভেঞ্চার ক্যাপিটাল বিনিয়োগ পাবে।

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী তার বক্তব্যে দেশে রোবটিক্সের ওপর জোর দেবার কথা জানিয়ে বলেন, ২০১৭ সালে আমরা আমন্ত্রণ করে এনেছিলাম বিশ্বের প্রথম হিউমানিয়েড রোবট সোফিয়াকে।  তার নির্মাতা ডেভিড হ্যানসনকে।  সেটার উদ্দেশ্য ছিল, দেশের তরুণরা যেন সেখান থেকে উদ্বুদ্ধ হয়।

এমনকি সেখান থেকে উদ্বুদ্ধ হয়ে সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচ তরুণ কিন্তু লি নামের সোফিয়ার মতো রোবট তৈরি করেছে।  সেটাই আমাদের সফলতা।  আমরা চাই এমন হাজার হাজার রোবট দেশে ডিজাইন হবে, তৈরি হবে এবং বিদেশে রপ্তানি করা হবে, বলেন পলক।

দেশের বেসরকারি খাতকে রোবট তৈরিতে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

ইএইচ/ সেপ্টে ১৩/ ২০১৯/ ‌১৫০০

*

*

আরও পড়ুন