নদীতে ভাসলো জাহাজী

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নদীতে ভাসলো এক নতুন স্বপ্ন। দুই তরুণের সেই স্বপ্নের নাম জাহাজী। 

তথ্যপ্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে দেশের অভ্যন্তরে লাইটার জাহাজে পণ্য পরিবহণে জাহাজ ভাড়া করা, তার অবস্থান জানা, পণ্য বিক্রি করার মতো সব সুবিধা নিয়ে পথচলা শুরু করলো জাহাজী উদ্যোগটি।

সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে একটি মোবাইল অ্যাপ উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা করলো জাহাজী। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, দেশে নৌরুটে পণ্য পরিবহণ সহজ করতে এবং খাতটিকে ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে অন্য খাতের উন্নয়ন ধারা অব্যাহত রাখতে কাজ করবে জাহাজী। 

নৌ পরিহণ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী প্রধান অতিথি থেকে অ্যাপটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। 

তিনি বলেন, দেশের নৌরুটে পণ্য পরিবহণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখলেও এই খাতে এখনো বলার মতো কোন প্রযুক্তির ছোঁয়া চোখে পড়ে না। জাহাজী সেই সাহস করেছে, এগিয়ে এসেছে।

খালিদ মাহমুদ বলেন, খাতটিতে দেশের তরুণদের উদ্ভাবনী ধারণা নিয়ে এগিয়ে আসতে চাইলে আমি তাদের স্বাগত জানাবো। আমিও মনে প্রাণে চাই, জাহাজীর মতো এমন শত শত উদ্যোগ তৈরি করে তরুণরা দেশটাকে এগিয়ে নিয়ে যাক। 

বিশেষ অথিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ কার্গো ভেসেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি, বীর বিক্রম মাহবুব উদ্দিন আহমেদ বলেন, এই তরুণরা যখন আমার কাছে এসে তাদের জাহাজী উদ্যোগটির কথা বলে তখনই আমি বুঝেছি এটা কতটা সময়োপযোগী। জাহাজী অ্যাপ খাতটিতে একটা নতুন বার্তা এনেছে। 

তিনি বলেন, আসলে খাতটিতে সবাই মিলেই তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার করতে হবে। তাহলে আমরা সহজেই ব্যবসায়িক বলি আর তথ্যপ্রযুুক্তি বা ডিজিটালাইজেশন বলি, সবক্ষেত্রেই এগিয়ে যাবো।

প্রযুক্তি পরামর্শক ও রাজনীতিবিদ নাইমুজ্জামান মুক্তা বলেন, সত্যিই আমাদের দিন বদলেছে। একটা সময় জনগণ সেবা পাবার জন্য সরকারের দ্বারে দ্বারে যেত। এখন জনগণের দ্বারে দ্বারে এমনকি হাতের মুঠোয় স্মার্টফোনের মাধ্যমে সেবা পাচ্ছেন। 

তিনি বলেন, নৌ পরিবহণে বিশেষ করে লঞ্চে এখন কিছুটা হলেও ডিজিটালাইজেশন হয়েছে। খাতটিতে যেনো পুরোটাই ডিজিটাল করা হয় তার জন্য নৌ পরিবহণ প্রতিমন্ত্রীকে অনুরোধ জানান তিনি। 

এছাড়াও তরুণরা উদ্ভাবনী যেকোন ধারণা নিয়ে যদি নৌ পরিবহণে কাজ করতে চায় তাহলে সরকারের পক্ষ থেকে সহায়তা করারও অনুরোধ জানান তিনি। 

জাহাজীর সহ-প্রতিষ্ঠাতা অভিনন্দন জোতদার বলেন, আমরা উদ্যোগটিকে সামনে এখন হাজির করলেও এটি নিয়ে কাজ শুরু হয়েছে ২০১৫ সাল থেকেই। আমরা ব্যাকএন্ডে অনানুষ্ঠানিক হলেও জরিপ করেছি বিষয়টি নিয়ে। বছরে দেশে তিন হাজার কোটির বেশি টাকার অভ্যন্তরীণ পণ্য পরিবহণ হয় নৌরুটে। যা একটা বড় খাত। 

আমাদের চেষ্টা থাকবে জাহাজীর মাধ্যমে এই পণ্য পরিবহণ সহজ করা। 

জাহাজীর আরেক সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী কাজল আবদুল্লাহ বলেন, দেশে ঠিক কত পরিমাণ জাহাজে পণ্য পরিবহণ হয় তার সঠিক হিসাব কারও কাছেই নেই। আমরা যে জরিপ চালিয়েছি তাতে দেখা যায় দেশে অন্তত ৩০ হাজার লাইটার জাহাজে পণ্য পরিবহণ হয়। যা অনেক বড় একটা খাত। 

কাজল বলেন, আমরা এই খাতটিকেই ডিজিটাল করতে চাই। সে জন্য উদ্যোগটি নিতে সাহস করেছি। আর এক দিনেই সেটি করা সম্ভব নয়। তবে জাহাজী অ্যাপে শতভাগ বিশ্বস্ত তথ্যসহ জাহাজ ভাড়া করা, তার অবস্থান জানার পাশাপাশি খাত সংশ্লিষ্টদের যত ধরনের কর্মকাণ্ড তা রাখার চেষ্টা থাকবে।  

বর্তমানে শুধু অ্যান্ড্রয়েড সংস্করণেই অ্যাপটি উন্মোচন করা হয়েছে প্লেস্টোরে। তবে খুব অল্প দিনের মধ্যে এর আইওএস সংস্করণ আনার কথাও জানান তিনি। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাহাজ মালিক বাহাউদ্দিন রূপকসহ আরও অনেকেই।

ইএইচ/ সেপ্টে ০৮/ ২০১৯/ ১৭১৩

*

*

আরও পড়ুন