ভাইরাল হওয়া 'চাঁদে নভোচারী' ভিডিওটি ভারতের

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রথম দেখাতেই মনে হবে কোনো নভোচারী চাঁদের বুকে পা রেখেছেন। এরপর এক পা, দু পা করে সামনে আগাচ্ছেন তিনি।

কিন্তু চাঁদের মাটি ও সেখানকার যে ছবি আমাদের গোচরে এসেছে দীর্ঘদিন থেকেই, তাতে একটু হলেও ভাটা পড়বে নভোচারী রূপী সেই মানুষটির পাশ দিয়ে একটি সিএনজি চালিত অটোরিক্সা যেতে দেখলে।

এরপর কৌতুহল কেটে যাবে, দেখা যাবে শুধু অটোরিক্সা নয়, তার পাশ দিয়ে প্রাইভেট কার এবং অন্যান্য যানবাহনও চলাচল করছে।

এমন একটি এক মিনিটের ভিডিও ছড়িয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক, ইনস্টাগ্রাম, ইউটিউবে। অনেকেই আবার ভিডিওটি হোয়াটসঅ্যাপেও শেয়ার করেছেন।

বাংলাদেশের অনেক ফেইসবুক ব্যবহারকারী ভিডিওটিকে বাংলাদেশী বলে লিখেছেন। কিন্তু এটি আসলে বাংলাদেশের নয়। এটি ভারতের।

দেশটির কর্ণাটক রাজ্যের বেঙ্গালুরু জেলার হিরোহাল্লি এলাকার একটি বেহাল সড়ক। কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই ভিডিওটি তৈরি করেছেন বাদল নানজুন্দস্বামী। তিনিই এর শিল্প নির্দেশক হিসেবে কাজ করেছেন।

রাস্তার ওই বেহাল অবস্থার কারণে সেখানে বসবাসরতরা প্রতিবেশী শহরগুলোতে যাতাযাতও সীমিত করে ফেলেছেন বলে অভিযোগ করেছেন অনেকেই। কারণ, পুরো রাস্তাটি আর চলাচল উপযোগী নেই।

সেই রাস্তাতেই গত শনিবার রাতে এলাকার লোকজন হঠাৎ দেখতে পান, নভোচারীর পোশাকে কেউ হাঁটছেন। অনেকেই কৌতুহল ধরে রাখতে না পেরে আশেপাশে জমা হোন। এমন অনেকেই আবার বাসার বারান্দা থেকেও উঁকি দেন।

বাদল নানজুন্দস্বামী শূরত একজন শিল্পী। তিনিও রাস্তাটি নিয়ে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় কর্তৃপক্ষের কাছে। কিন্তু ফল পাননি।

বাদল বলেন, আমি চেয়েছি এই বেহাল অবস্থা একটা ক্যানভাসে তুলে আনতে। যাতে খুব সহজেই মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা যায়। এমনকি এর মাধ্যমে কর্তৃপক্ষকে একটা বার্তা দিতে চেয়েছি। কী অবস্থায় আমরা আছি সেটা তারা জানুক।

ইতোমধ্যে ভাইরাল সেই ভিডিওটি বাংলাদশের অনেক ফেইসবুক ব্যবহারকারী তাদের টাইমলাইন, বিভিন্ন গ্রুপ এমন কি ম্যাসেঞ্জারেও শেয়ার করে বাংলাদেশের বলে দাবি করছে।

ইএইচ/ সেপ্টে০৩/ ২০১৯/ ১৫৪০

*

*

আরও পড়ুন