চার মাসে ফাইভজির পূর্ণাঙ্গ প্রস্তাব নীতিমালা

5G-techshohor

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশে ফাইজি চালুর রুপরেখা, স্পেকট্রাম ব্যান্ড ও দাম, টাইম লাইনসহ পূর্ণাঙ্গ প্রস্তাব- নীতিমালা তৈরিতে পুরোদমে কাজ শুরু করেছে সরকার।

মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত কমিটির প্রথম বৈঠকে ফাইভজি প্রস্তাব ও নীতিমালা তৈরিতে চার মাসের এক কর্মপরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। ২০২০ সালের ৩১ জানুয়ারির মধ্যে এসব করে বিটিআরসির চেয়ারম্যানের কাছে জমা দেয়া হবে।

বৈঠকে সব মিলে ৮টি সাব কমিটি করা হয়েছে। এই কমিটিগুলো ১৩ অক্টোবরের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন চূড়ান্ত করে ওই দিন মূল কমিটির বৈঠকে উপস্থাপন করবে।

সাব কমিটগুলো মূলত স্পেকট্রামের মূল্য নির্ধারণ, কোন ব্যান্ডে ফাইভজি চালু করা করা উচিৎ, নিরাপত্তা, সরকার কি কি সেবা নিতে পারে এসব বিষয়ে কাজ করবে।

বৈঠকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, বিটিআরসি, তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ, আইএসপিএবি, বুয়েট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, অ্যামটব, টেলিটক, আমর্ড ফোর্সেস ডিভিশনের প্রতিনিধিত্বে ১৩ সদস্যদের মূল কমিটিতে এটুআই ও এনটিটিএন প্রতিনিধিদের যুক্ত করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

বৈঠকের শুরুতে ২৮ গিগাহার্জ ব্যান্ডে ফাইভজি সেবার উপর ডেমোনেস্ট্রেশন দেখায় হুয়াওয়ে ও এরিকসন।

বিটিআরসি জানায়, বর্তমানে ২.৬ গিগাহার্জ, ৩.৫ গিগাহার্জ ইত্যাদি ব্যান্ডসমূহ ফাইভজি সার্ভিসের জন্য জনপ্রিয় ব্যান্ড হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। ফাইভজি সার্ভিস প্রদানের ক্ষেত্রে ২.৬ গিগাহার্জ, ৩.৫ গিগাহার্জ ব্যান্ডের সাথে অন্যান্য ব্যান্ডের বিষয়ে ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে অনুষ্ঠিতব্য ওয়ার্ল্ড রেডিও কনফারেন্সে সিদ্ধান্ত দেয়া হবে।

তবে আইটিইউ হতে ২৫০০-২৬৯০ মেগাহার্জ, ৩৩০০-৪২০০ মেগাহার্জ, ২৬-২৮ গিগাহার্জ, ৩২ গিগাহার্জ, ৩৮ গিগাহার্জ, ৪০ গিগাহার্জ এবং ৪৩ গিগাহার্জ ব্যান্ডসমূহে ফাইভজি প্রযুক্তির জন্য তরঙ্গ বরাদ্দ প্রদানের পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলে জানায় নিয়ন্ত্রণ সংস্থাটি।

ফাইভজি পরীক্ষাকারী বিশ্বের প্রথম কয়েকটি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ একটি।

২০১৮ সালের জুলাইয়ে রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে বাংলাদেশ ফাইভ জি সামিটে ওই পরীক্ষার উদ্বোধন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

সেখানে দেশে ফাইভজি প্রযুক্তির পরীক্ষায় গতি উঠেছিল ৪ দশমিক ১৭ জিবিপিএস।

সরকার ২০২১ হতে ২০২৩ এর মধ্যে দেশে ফাইভজি চালু করার কথা ইতোমধ্যে ঘোষণা দিয়েছে। এ জন্য সব রকম প্রস্তুতিতে  প্রযুক্তিগত সক্ষমতা তৈরি, কৌশলগত পরিকল্পনায় দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে পারস্পরিক সহযোগিতা ও সমন্বয়ে জোর দেয়া হচ্ছে।

আইজেডএস/এডি/২০১৯/সেপ্টেম্বর৩/ ১৬০০

আরও পড়ুন –

ফাইভজি ফোনের সরবরাহ ২০ কোটি ছাড়াবে

ফাইভজিতে গতি কেমন?

বাংলাদেশে হুয়াওয়ের ফাইভজি মিশন

*

*

আরও পড়ুন