রোহিঙ্গাদের মোবাইল সুবিধা বন্ধে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর নির্দেশ

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের শুরু থেকেই মোবাইল সুবিধা প্রদান না করতে সকল মোবাইল অপারেটরসহ সংশ্লিষ্ট সংস্থাসমূহকে নির্দেশনা প্রদান করে সরকার।

তার সত্ত্বেও ক্যাম্পে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর হাতে সিম ও রিম ব্যবহৃত হচ্ছে বলে বিভিন্ন মাধ্যমে জানা যায়।

এ বিষয়ে জরুরী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বিটিআরসিকে নির্দেশ দিয়েছেন।

বিটিআরসি সেই পরিপ্রেক্ষিতে আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কোনো প্রকার সিম বিক্রি, রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী কর্তৃক সিম ব্যবহার বন্ধ তথা তাদেরকে মোবাইল সুবিধা প্রদান না করার বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য সকল মোবাইল অপারেটরকে রোববার জরুরী নির্দেশ প্রদান করেছে।

২০১৭ সালে মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে দেশটির সেনাবাহিনী রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর গণহত্যা ও জাতিগত নিধন শুরু করলে সে বছর ২৫ আগস্ট বাংলাদেশ সীমান্ত খুলে দেয় সরকার। তখন দেশে নতুন করে অন্তত সাত লাখ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী বাংলাদেশে শরনার্থী হিসেবে আশ্রয় নেয়। 

আশ্রয় নেবার পর বাংলাদেশের পক্ষ থেকে তাদের সব ধরনের সহযোগিতা করলেও শুরু থেকেই তাদের কাছে কোন প্রকার মোবাইল সিম যেন অপারেটররা বিক্রি না করে তার জন্য সেবছর সেপ্টেম্বরে নির্দেশনা দিয়েছিলেন তৎকালীন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী। 

ওই নির্দেশ অমান্য করে কোন অপারেটর যদি সংযোগ দেয় তবে তাকে শাস্তির আওতায় নিয়ে আসার কথাও জানান তিনি। এরপর ২০১৮ সালের অক্টোবরেও রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় মোবাইল অপারেটরদের নেটওয়ার্ক বন্ধ রাখার জন্য অপারেটরদের নিদের্শ দিয়েছিল বিটিআরসি। 

বর্তমানে কক্সবাজারের কুতুপালং, বালুখালী ক্যাম্পসহ কয়েকটি ক্যাম্পে অন্তত ১১ লাখ রোহিঙ্গা শরনার্থী রয়েছে। 

এডি/এজেড/ সেপ্টেম্বর ০২/২০১৯/১৩৩৩

আরও পড়ুন – 

রোহিঙ্গা এলাকায় বন্ধ হচ্ছে মোবাইল নেটওয়ার্ক

রোহিঙ্গাদের কাছে সিম বিক্রি করলে অপারেটরদের শাস্তি

সোয়া ১ লাখ রোহিঙ্গার বায়োমেট্টিক নিবন্ধন

*

*

আরও পড়ুন