ডেটা ও ভয়েসে আয় বেড়েছে রবির

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর :  বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে মাত্র ১ কোটি ২০ লাখ টাকা মুনাফা করেছে রবি।

যদিও অপারেটরটি বলছে, ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে আর্থিক ক্ষেত্রে আইএফআরএস সিক্সটিন বাস্তবায়ন করায় এই মুনাফাতেও ৩২ কোটি ২০ লাখ টাকার লোকসান গুণতে হয়েছে তাদের ।

রবির দ্বিতীয় প্রান্তিকের হিসাবে দেখা যায়, গত প্রান্তিকের তুলনায় ভয়েস থেকে রাজস্ব বেড়েছে ২ দশমিক ৮ শতাংশ। আর গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় এটি বেড়েছে ৯ দশমিক ৭ শতাংশ।

ডেটায় যে রাজস্ব বেড়েছে তা গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় ২৮ দশমিক ৯ শতাংশ বেশি। আবার গত প্রান্তিকের সঙ্গে তুলনায় এটি বেশি ২ দশমিক ৫ শতাংশ।

রবির ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, রাজস্বের উপর ন্যূনতম ২ শতাংশ কর, ডিজএলাওয়েন্সেসের (এক্সেস পারকুইজিট এবং অন্যান্য) এবং বিদ্যমান প্রতিকূল টেলিযোগাযোগ নীতিমালার কারণে এ বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে রবির আর্থিক ফলাফলে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

তিনি বলছেন, সিম কর দ্বিগুণ করা এবং সম্পূরক শুল্ক বাড়ানো রবির আর্থিক পরিস্থিতিকে সামনের দিনগুলোতে আরও ঝুঁকিতে ফেলবে। এ প্রান্তিকে রবির রাজস্ব অর্জন সন্তোষজনক হলেও পরিবর্তিত কর ব্যবস্থা বাজারের প্রচলিত চ্যালেঞ্জগুলোর চেয়ে বড় প্রতিবন্ধক হিসেবে দেখা দিয়েছে।

এবার রবির রাজস্ব গত প্রান্তিকের তুলনায় ১ দশমিক ৬ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে, যা টাকার অঙ্কে ১ হাজার ৮৫৮ দশমিক ৭ কোটি টাকা। গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় রাজস্ব বৃদ্ধি পেয়েছে ১২ দশমিক ৪ শতাংশ।

এ বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে গ্রাহক সংখ্যা ১ দশমিক ৩ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ৪ কোটি ৭৯ লাখে দাঁড়িয়েছে যা দেশের মোট মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর ২৯ দশমিক ৬ শতাংশ। গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে ৭ দশমিক ২ শতাংশ।

এখন দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে অপারেটরটির ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর গ্রাহকের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ১ লাখে যা মোট গ্রাহকের ৬২ দশমিক ৮ শতাংশ।

আইএফআরএস সিক্সটিনর ফিন্যান্সিয়াল ইমপ্লিকেশনগুলো বিবেচনায় না নিয়ে ৩৫ দশমিক ৬ শতাংশ মার্জিনসহ ২০১৯ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকে রবির ইবিআইটিডিএ দাঁড়িয়েছে ৬৬২ দশমিক ৬ কোটি টাকায়। একই হিসেবে পার্সেন্টেজ পয়েন্টে (পিপি) রবির ইবিআইটিডিএ মার্জিন প্রবৃদ্ধি গত প্রান্তিকের তুলনায় বেড়েছে ৬ দশমিক ৬ পিপি । গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় তা বেড়েছে ১১ দশমিক ০ পিপি।

আর আইএফআরএস সিক্সটিন বিবেচনায় নিলে ২০১৯ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে  রবির ইবিআইটিডিএ দাঁড়ায় ৮৪৯ দশমিক ৯ কোটি টাকায়।

এ বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে রবির মূলধনী বিনিয়োগ গত প্রান্তিক থেকে ১১ দশমিক ৭ শতাংশ কমে ২৬৯ কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে। দেশজুড়ে ফোরজি নেটওয়ার্কের বিস্তৃতি এবং অন্যান্য নেটওয়ার্কের আধুনিকায়নের জন্য এ মূলধনী বিনিয়োগ করা হয়েছে।

দেশজুড়ে ৮ হাজার ৮০টি সক্রিয় ফোরজি সাইট রয়েছে রবির। কার্যক্রম শুরুর পর থেকে ২০১৯ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিক পর্যন্ত রবির মোট মূলধনী বিনিয়োগের পরিমাণ ২৩ হাজার ৭২০ কেটি টাকা। এই একই সময়ে রবি তার শেয়ারহোল্ডারদের লভ্যাংশ হিসেবে প্রদান করেছে মাত্র ২৯০ কোটি টাকা।

দ্বিতীয় প্রান্তিকে রবি রাষ্ট্রীয় কোষাগারে ৬৭৯ দশমিক ৭ কোটি টাকা জমা দিয়েছে যা এ প্রান্তিকের মোট রাজস্বের ৩৫ দশমিক ৬ শতাংশ। কার্যক্রম শুরুর পর থেকে এই প্রান্তিক পর্যন্ত রাষ্ট্রীয় কোষাগারে ২৫ হাজার ১৯০ কোটি টাকা জমা দিয়েছে রবি।

এডি/২০১৯/আগস্ট২৯/১৭০০

আরও পড়ুন – 

করের দাপটে অস্তিত্ব সংকটে পড়বে রবি

টেলিকম সেবার মান নিয়ে প্রশ্ন : সমাধান কোন পথে

*

*

আরও পড়ুন