Techno Header Top and Before feature image

অন্ধদের পড়ে শোনাবে ফিঙ্গার রিডার

Finger-reader-TechShohor

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অন্ধ এবং দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের পড়ার সুবিধার্থে এমআইটি গবেষকরা নিয়ে এসেছেন থ্রিডি প্রিন্টেড ‘ফিঙ্গার রিডার’। যার মাধ্যমে ব্রেইল পদ্ধতি ছাড়াই যে কোনও প্রিন্ট করা টেক্সট পড়া যাবে।

গবেষকরা জানিয়েছেন, এই যন্ত্রটি অনেকটা আংটির মতো, যার সাথে একটি ক্যামেরা ফিট করে দেওয়া আছে। এই ক্যামেরাটি লেখার উপর দিয়ে আঙ্গুল ঘোড়ালেই তা স্ক্যান করবে এবং জোরে জোরে তার বাহককে পড়ে শোনাবে।

Finger-reader-TechShohor

‘ফিঙ্গার রিডার’ ওয়েবসাইটের মতে, এটি অন্ধ ও দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য এটি একটি টুলস, যা তাদের প্রয়োজনীয় প্রিন্টেড টেক্সটগুলো পড়ে শোনাবে। এমনকি একজন সাহায্যকারী অনুবাদক হিসেবেও কাজ করবে।

নির্মাতারা জানিয়েছেন, ফিঙ্গার রিডার ল্যাপটপ এবং মোবাইলের সাথেও সংযুক্ত করা যাবে। যার মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা ১২ ফন্ট থেকে বড় যে কোনও টেক্সট পড়তে পারবেন। এমনকি মূল টেক্সট থেকে হাত সরে গেলে এটি কম্পনের (ভাইব্রেট) মাধ্যমে ব্যবহারকারীকে সতর্ক করে দিবে।

এমআইটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর এবং এই যন্ত্রটি তৈরির শুরু থেকে সম্পৃক্ত পেটি মায়েস এর মতে, এটি একটি নতুন অভিজ্ঞতা, যা অনেকটা যাদুকরের মতো আঙ্গুলের ঠোট দিয়ে পড়বে। এই মুহুর্তে এর চেয়ে বিকল্প আর কোনও সমাধান নেই। এটি ব্যবহার করাও খুব সহজ।

যন্ত্রটি তৈরির আরেক কারিগর রয় শিলক্রট বলেছেন, গতিশীলতা এবং কার্যকারিতার দিক দিয়ে ফিঙ্গার রিডার অন্যান্য যন্ত্র যেমন ‘টেক্সট ডিটেকটিভ’ এবং ‘সে টেক্সট’ এর চেয়েও ইউনিক। কেননা এটিই একমাত্র পরিধেয় যন্ত্র, যা অন্ধ এবং দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের আঙ্গুলের ইশারাতেই তার দরকারি টেক্সট পড়ে শোনাবে।

এমআইটির বাজার গবেষণায় দেখা গেছে, সারা বিশ্বের জনসংখ্যার ৩ শতাংশ দৃষ্টি প্রতিবন্ধী। তাই তাদের সহায়তার কথা বিবেচনা করেই এ যন্ত্রটি আবিস্কার করা হয়েছে। এটি সবচেয়ে বেশি উপকারে আসবে শিশু, ভাষা শিক্ষার্থী এবং পর্যটকদের জন্য।

নির্মাতারা আরও জানান, এই ডিভাইসটি তিন বছরের গবেষনার ফসল। ভালো বিনিয়োগকারীর হাত ধরে পণ্যটি শিগগিরই বাজারে নিয়ে আসা হবে। সাধারণের হাতে পৌঁছে দিতে এর দামও সহনীয় রাখার সদিচ্ছা আছে তাদের।

– ম্যাশেবল অবলম্বনে ফখরুদ্দিন মেহেদী

*

*