নতুন প্রযুক্তির গড়পড়তা ফোন গ্যালাক্সি এ৮০

Evaly in News page (Banner-2)

রিয়াদ আরিফিন, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : চলতি বছরে স্যামসাংয়ের নজর বেশি ‘এ সিরিজে’। 

দক্ষিণ কোরিয় টেক জায়ান্ট স্যামসাং বাজারে এনেছে নিত্যনতুন প্রযুক্তি ও চমকপ্রদ ফিচারের বেশ কিছু মডেল। এরই ধারাবাহিকতায় তাদের এ সিরিজে নতুন যোগ হয়েছে চলতি বছরের ট্রেন্ড পপআপ ক্যামেরা ফোন, গ্যালাক্সি এ৮০।

সম্প্রতি দেশের বাজারে এই সিরিজের সর্বশেষ মডেল গ্যালাক্সি এ৮০ উন্মোচন করেছে স্যামসাং। 

যারা বেশি বাজেটে নতুন ফিচারের ফোন খুঁজেন, তাদের কথা মাথায় রেখে ফোনটির ভালো-মন্দ তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে রিভিউয়ে।

ফোনের ফিচারগুলো

  • ৬ দশমিক ৭ ইঞ্চির সুপার অ্যাামোলেড ডিসপ্লে, রেজুলেশন ১০৮০*২৪০০ পিক্সেল
  • ৮ গিগাবাইট র‍্যাম ও ১২৮ গিগাবাইট রম
  • স্নাপড্রাগন ৭৩০ অক্টাকোর প্রসেসর, অ্যান্ড্রিনো ৬১৮ জিপিউ
  • পপ-আপ ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ
  • ৩,৭০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি, ২৫ ওয়াট চার্জার
  • ডিসপ্লের নিচেই ফিঙ্গারপ্রিন্ট
  • অ্যান্ড্রয়েড ৯ পাই অপারেটিং সিস্টেম

মোড়ক খুললেই যা মিলবে

  • হ্যান্ডসেট
  • একটি ২৫ ওয়াট সক্ষমতার চার্জিং অ্যাডাপ্টর
  • ইউএসবি টাইপ সি টু সি ক্যাবল
  • একটি টাইপ সি ইয়ারফোন
  • সিম ইজেক্টর পিন
  • ইউজার ম্যানুয়াল

ডিজাইন

ফোনটিতে পপ-ক্যামেরা ব্যবহারের কারণে ডিজাইনে এক নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। ফোনটির একেবারে উপরের দিকে রয়েছে পপ-আপ ট্রিপল ক্যামেরার সেটআপ, যা বিশেষ মোটর দ্বারা চালিত।

মেটাল ফ্রেমের ফোনের বডি তৈরিতে থ্রিডি গ্লাস ব্যবহার করা হয়েছে। হালকা বেজেলের ফোনটির ডান ও বাম দিকে রয়েছে যথাক্রমে পাওয়ার বাটন ও ভলিউম রকার, যেগুলো মেটালের তৈরি। ডিসপ্লের নিচেই ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর থাকায় পেছনে কিংবা সাইডে নেই কোন ফিঙ্গারপ্রিন্ট।

ছবি : টেকরাডার

ডিসপ্লে

৬ দশমিক ৭ ইঞ্চির সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে ডিভাইসটিতে। ডিসপ্লের রেজুলেশন ১৮০*২৪০০ পিক্সেল। পিক্সেল ঘনত্ব ৩৯৩। ডিসপ্লের প্রটেকশন হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ৩।

সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লে হওয়ায় এটি দারুন অভিজ্ঞতা দেবে। সঙ্গে বেজেলের পরিমাণও বেশ কম, তবে একই স্ক্রিন সাইজের সমসাময়িক বেশ কিছু স্মার্টফোনের চাইতে এটি আকারে খানিকটা বড়। তাই এক হাতে ব্যবহার করতে খানিকটা বেগ পেতে হতে পারে। তবে চাইলে ওয়ান হ্যান্ড মোড ব্যবহার করে সমস্যা এড়ানো যাবে।

ডিসপ্লেতে কালার কম্বিনেশন বেশ সন্তোষজনক। রোদের আলোতে ব্যবহারের ক্ষেত্রেও খুব একটা অসুবিধা হবে না। এছাড়াও থাকছে ‘অলওয়েজ-অন-ডিসপ্লে বা এওডি’ ফিচার।

খারাপ দিক হলো এটিতে থাকছে না কোন নোটিফিকেশন এলইডি।

ক্যামেরা

এই স্মার্টফোনের সবচেয়ে আকর্ষনীয় ফিচার এর ক্যামেরা। ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপের একটি স্লাইডার ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে।যা ফ্রন্ট ও ব্যাক উভত ক্যামেরা হিসবেই ব্যবহার করা যাবে। ক্যামেরা অ্যাপ চালু করার সঙ্গে সঙ্গে এক ধরনের বিশেষ মোটর ক্যামেরাটিকে স্মার্টফোনের ভিতর থেকে বাইরে নিয়ে আসবে। প্রয়োজনে এটি দিক ও পরিবর্তন করতে পারবে সেলফি তোলা কিংবা সাধারণ ছবি তোলার জন্য।

তবে ক্যামেরাটির স্লাইডিং সময় কিছুটা বেশি নেয় অর্থাৎ কিছুটা স্লো ধাঁচের।

তিন ক্যামেরার মধ্যে প্রধান ক্যামেরাটি ৪৮ মেগাপিক্সেলের, এর অ্যাপার্চার এফ ২.০।  এর সঙ্গে এফ ২.২ অ্যাপার্চারের ৮ মেগাপিক্সলের আল্ট্রা ওয়াইড লেন্স এবং এফ ২.২ অ্যাপার্চারের আরেকটি থ্রিডি লেন্স সংযুক্ত রয়েছে।

দিনের আলোতে এটির ছবির মান ভালো, তবে মৃদু আলোতে কিংবা রাতের বেলা ছবি মান বাজেট অনুযায়ী সন্তোষজনক নয়।

ইন্টারনেট থেকে প্রাপ্ত এই ফোনের ক্যামেরায় তোলা কিছু ছবির স্যাম্পল

পারফরমেন্স  ও ইউজার ইন্টারফেস

অ্যান্ড্রয়েড পাই অপারেটিং সিস্টেমকে ভিত্তি করে তৈরি করা স্যামসাংয়ের নিজস্ব ওয়ান ইউআইতে চলবে ফোনটি। ভালো পারফরমেন্স নিশ্চিতে এটিতে থাকছে ৮ গিগাবাইট র‍্যাম এবং স্নাপড্রাগন ৭৩০ মডেলের প্রসেসর।

তবে বাজেট অনুযায়ী এই ফোনে মধ্যম মানের প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে।

মাল্টিটাস্কিং, গেইমিং কিংবা সাধারণ ব্যবহারে এটি ভালো পারফরমেন্স দেবে।

স্যামসাং ওয়ান ইউআইয়ের নিজস্ব ফিচারগুলোও ব্যবহার করা যাবে এতে। থাকবে নাইট মোডের মত কার্যকরী ফিচার।

ডিভাইসটির ডিসপ্লের নিচেই ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে। তবে এটির পারফরমেন্স কিছুটা হতাশাজনক। বায়োমেট্রিক তথ্য দিয়ে ফোনটি আনলক করতে কিছুটা ধীরগতিকে কাজ করে স্মার্টফোনটি।

পারফরমেন্স যাচাইয়ের অ্যাপ গিকবেঞ্চে এটির স্কোর এসেছে ৬৯৩৪ (মাল্টি-কোর) ও ২৫১৬ (সিঙ্গেল-কোর)।

ব্যাটারি লাইফ

এই ফোনে ৩ হাজার ৭০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার সক্ষমতার ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। মাঝারি মানের ব্যবহারে অনায়েসে একদিন ব্যবহার করা গেলেও মাল্টি টাস্কিং কিংবা গেইমিংয়ের ক্ষেত্রে দিনে ২ বার ও চার্জ করতে হতে পারে।

ফোনের সঙ্গে থাকা ২৫ ওয়াট সক্ষমতার চার্জার দিয়ে ব্যাটারি সম্পূর্ণ চার্জ করতে মোটামুটি ১ ঘণ্টা ৪০ মিনিটের মত সময় লাগে।

অডিও ও কল কোয়ালিটি

যারা মিউজিক ভালোবাসেন তারা ফোনটির সাউন্ড কোয়ালিটি নিয়ে হতাশ হবেন না। স্মার্টফোনটির লাউড স্পিকারের সাউন্ড কোয়ালিটি বেশ ভালো।

এছাড়াও কথা বলার জন্য ইয়ারপিসের মানও বেশ ভালো। কথা বলার সময় কোন ইকো বা নয়েজ পাওয়া যায়নি।

তবে ডিভাইসটিতে নেই ৩.৫ মিমি অডিও জ্যাক। তাই ব্যবহার করতে হবে টাইপ সি পোর্টের ইয়ারফোন কিংবা ওয়ারলেস ইয়ারফোন। অবশ্য চাইলে ৩.৫ মিমি কনভার্টার ব্যবহার করে যেকোন ইয়ারফোন ব্যবহার করা যাবে।

দাম ও ওয়ারেন্টি

ফোনটির দাম ৭৪ হাজার ৪৯০ টাকা। অফিসিয়াল যে কোনো চ্যানেল থেকে স্মার্টফোনটি কিনলে এক বছরের বিক্রয় পরবর্তী সেবা পাওয়া যাবে।

এক নজরে ভালো

  • ভালো মানের ডিসপ্লে
  • নতুন ক্যামেরা প্রযুক্তির ব্যবহার
  • দ্রুত চার্জিং

এক নজরে খারাপ 

  • বাজেট অনুযায়ী ছবির মান খারাপ
  • নোটিফিকেশন এলইডি না থাকা
  • ধীরগতির ফিঙ্গারপ্রিন্ট

আরএ/ইএইচ / আগস্ট ২৫/ ২০১৯/ ১৫৩০

*

*

আরও পড়ুন