এনওসি বন্ধে জিপির প্রতিবাদ

Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : পাওনা আদায়ে এনওসি বন্ধের পদক্ষেপকে জবরদস্তি উল্লেখ করে প্রতিবাদ জানিয়েছে গ্রামীণফোন।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে এক সংবাদ সম্মেলনে গ্রামীণফোনের সিইও মাইকেল ফোলি বলেন, ‘ক্রটিপূর্ণ অডিটের দাবিকৃত অর্থ আদায়ে বিভিন্নপ্রকার অনুমোদন ও অনাপত্তিপত্র (এনওসি) স্থগিতকরণের কৌশল জবরদস্তিমূলক। এর প্রতিবাদ জানাচ্ছে গ্রামীণফোন।’

‘ব্যবসায়িক কোন্দল নিরসনের উপায় হিসেবে কখনই গ্রাহকদের স্বার্থ, জাতীয় অর্থনীতি কিংবা দেশের ভাবমূর্তিকে জিম্মি করা উচিত নয়। নিয়ন্ত্রক সংস্থার এমন কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে অন্যান্য পক্ষের উপর যে প্রভাব পরেছে তা সত্যিই দু:খজনক’ বলেন ফোলি।

সংবাদ সম্মেলনে অপারেটরটি জানায়, এনওসি বন্ধের এই সিদ্ধান্ত কোনোভাবেই গ্রাহকদের স্বার্থ বিবেচনা করে নেয়া হয়নি। বরং এ সিদ্ধান্তে গ্রাহকদের স্বাধীনভাবে সেবা গ্রহণের সুবিধা থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। এই সিদ্ধান্তের ফলে গ্রাহকদের নিরবিচ্ছিন্নভাবে মানসম্পন্ন ফোন-কল, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, ডিজিটাল মিডিয়া ও সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারের অধিকারকে খর্ব করছে।

ফোলি বলেন, ‘এনওসির স্থগিতের সিদ্ধান্তে ইতোমধ্যে নেয়া পরিকল্পনা অনুযায়ী নেটওয়ার্ককের বিস্তার কার্যক্রম ব্যাপকভাবে ব্যাহত হবে। একটি সামগ্রিক ব্যবস্থার অংশ হিসাবে এমন সিদ্ধান্তে টেলিযোগাযোগের অবকাঠামোগত সহযোগী, ডিজিটাল সেবার উদ্যোক্তা এবং আইসিটি ফ্রিল্যান্সাররাও ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।’

গ্রামীণফোনের ভারপ্রাপ্ত চিফ কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স অফিসার ও হেড অব রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স হোসেন সাদাত বলেন, ‘নীতিগতভাবে, পদ্ধতিগতভাবে এবং বস্তুনিষ্ঠতার আলোকে এই অডিটের প্রতিবাদ করার আইনত অধিকার গ্রামীনফোনের রয়েছে। নিয়ন্ত্রক সংস্থার এই বলপূর্বক টাকা আদায়ের কৌশল নজিরবিহীন এবং এমন আচরণ এই বিরোধপূর্ণ অডিটের উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন তোলে।’

পুন:নিরীক্ষার পর বিটিআরসি গ্রামীণফোনের কাছে ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকা পাওনা রয়েছে বলে দাবি করে।

এই দাবি আদায়ে এর আগে ৪ জুলাই পাওনা আদায়ে গ্রামীণফোনের মোট ব্যবহার করা ব্যান্ডউইথের ৩০ শতাংশের ওপর ক্যাপিং আরোপ করে কমিশন।

তবে ব্যান্ডউইথ ব্যবহার সীমিত করায় সেটি গ্রাহকের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে–বিবেচনায় আগের সিদ্ধান্ত বাতিল করে এনওসি বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়।

গত সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নির্দেশনায় ব্যান্ডউইথ ব্লকের সিন্ধান্ত তুলে নেয় বিটিআরসি।

ব্যান্ডউইথ সীমিত করায় গ্রাহকদের মোবাইল নেটওয়ার্ক ব্যবহারে সমস্যা হওয়ায় এ সিদ্ধান্ত তুলে দিতে বলেন জয়।

এডি/জুলাই২৫/২০১৯/১৮০০

আরও পড়ুন – 

অডিটের ‘ত্রুটি’ তুলে ধরলো জিপি

এনওসি বন্ধে গ্রাহক সেবায় ভোগান্তির আশংকা জিপি-রবির

*

*

আরও পড়ুন