মোবাইল ব্যাংকিংয়ে সর্বোচ্চ লেনদেনের রেকর্ড

mobile-banking-techshohor
Evaly in News page (Banner-2)

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বছরের প্রথম চার মাস ব্যবহারকারীর সংখ্যা টানা কমলেও পঞ্চম মাসে রীতিমতো বিস্ময় উপহার দিয়েছে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের লেনদেন।

একক মাস হিসেবে মে মাসে রেকর্ড লেনদেন হয়েছে মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সেবা (এমএফএস) খাতে। ওই মাসে মোট লেনেদেন হয়েছে ৪২ হাজার ২৩৬ কোটি টাকা। আগের মাসের তুলনায় যা ২০ দশমিক ৮০ শতাংশ বেশি এবং এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ।

বাংলাদেশ ব্যাংক গত রোববার এমএফএসের সর্বশেষ মাসিক প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এতে দেখা গেছে, মে মাসে বিকাশ-রকেটেসহ বাকি সব প্রতিষ্ঠানের লেনদেনে ব্যাপক উল্লম্ফন হয়েছে। এর বাইরে ডাক বিভাগের মোবাইল ব্যাংকিং সেবা নগদের মাধ্যমেও বড় অংকের অর্থ স্থানান্তর হয়েছে। ওই হিসাব বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যানে যুক্ত হয় না।

লেনদেন সীমা বৃদ্ধি এবং রোজা ও ঈদের কারণে লেনদেন আগের সব সীমা ছাড়িয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

প্রতিবেদন বলছে, এমএফএসের সব রকমের সূচকেই মে মাসে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধি হয়েছে। নিবন্ধিত গ্রাহক বাড়া থেকে শুরু করে কার্যকর ব্যবহারকারী, লেনেদেনের সংখ্যা ও পরিমান বৃদ্ধি এবং রেমিটেন্স আসা অথবা যে কোনো বিল প্রদান বা কেনাকাটা– সবখানেই সাম্প্রতিক সময়ের যে কোনো এক মাসের হিসাবে সেরা ফল এবার।

ওই মাসের শেষে দেশে নিবন্ধিত এমএফএস অ্যাকাউন্ট দাঁড়িয়েছে সাত কোটি ৫ লাখ, এর মধ্যে তিন কোটি ২১ লাখ অ্যাকাউন্ট কার্যকর আছে।

এপ্রিলের শেষে নিবন্ধিত অ্যাকাউন্ট ছিল ছয় কোটি ৮২ লাখ, এর মধ্যে কার্যকর ছিল দুই কোটি ৯১ লাখ।

এসএফএসের মাধ্যমে কর্মীদের বেতন দেওয়ার পরিমাণ মে মাসের শেষে চলে এসেছে এক হাজার ২৪৩ কোটি ৬৭ লাখ টাকায়। এর আগে যা কখনো এক মাসে হাজার কোটি টাকা পেরোয় নি।

মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সেবার মাধ্যমে এখন সরকারি পর্যায়ের লেনেদনও হচ্ছে বেশ। এপ্রিলে মাসে যেখানে এমন লেনদেন হয়েছে ২০৯ কোটি টাকা, সেটি ৫৪ শতাংশ বেড়ে মে মাসে দাঁড়িয়েছে ৩২৩ কোটি টাকা।

একইভাবে এমএফএসের মাধ্যমে মে মাসে সেবা সংক্রান্ত বিল প্রদান করা হয়েছে ৪৮২ কোটি ৯১ কোটি টাকার।

বাংলাদেশ ব্যাংক ও এমএফএস অপারেটরগুলোর কর্মকর্তারা বলছেন, আগের চেয়ে সেবার পরিধি অনেক বৃদ্ধি এবঙ একই সঙ্গে আগের মাসে গ্রাহকপ্রতি লেনদেনের সীমা আগের চেয়ে বাড়ানোর ইতিবাচক ফল পড়েছে সার্বিক লেনেদেনে।

তাছাড়া জুনের প্রথম সপ্তাহে ঈদ হওয়ায় গোটা মে মাস জুড়ে যে কোনো মাসের তুলনায় বেশি লেনদেন ও কেনাকাটা হয়েছে, যে কারণে লেনদেন বিপুল পরিমাণ বেড়েছে।

ডাক বিভাগের নগদ ছাড়াও দেশে এখন ১৬ প্রতিষ্ঠানের এমএফএস লাইসেন্স আছে। নগদ বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে লাইসেন্স প্রাপ্ত নয় বলে তাদের হিসাব এখানে অন্তর্ভূক্ত হয়নি।

নগদের লেনদেনের সীমা সাধারণ এমএফএস থেকে অনেক বেশি। তাই ওই অংক যুক্ত হলে দেনদেনের পরিমাণ আরও অনেক বড় হতো বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

জেডএ/আরআর/৩ জুলাই/২০১৯

*

*

আরও পড়ুন