তরুণরা ঝুঁকছে স্ট্রিমিং সার্ভিসে

netflix-techshohor

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বেসরকারি চাকরিজীবী আরিয়ান নিরব। সিনেমার পোকা মাথায় নিয়ে ঘোরেন। দেখেন দেশী-বিদেশী সিনেমা।

একটা সময় তিনি নানান উপায়ে সিনেমা জোগাড় করতেন এবং দেখতেন। কিন্তু এখন সময় কিছুটা কম পান। যতটুকুই সময় পান চেষ্টা করেন সিনেমা দেখতে। এজন্য তিনি কয়েকটি স্ট্রিমিং সার্ভিস সাবস্ক্রাইব করেছেন।

নিরবের মতো অনেক তরুণ এখন ঝুঁকছেন স্ট্রিমিং সার্ভিসগুলোতে। সেখান থেকেই বিভিন্ন ওয়েব সিরিজ এবং সিনেমা দেখাছেন তারা।

বিশেষ করে দেশে গত বছর থেকেই স্ট্রিমিং সার্ভিস হিসেবে নেটফ্লিক্স খুব জনপ্রিয় হয়ে উেঠছে। এছাড়াও ভারতীয় স্ট্রিমিং সার্ভিস হইচই, জি প্লাসসহ আরও কিছু সাইট সাবস্ক্রাইব করছেন অনেকেই।

দেশীয় হিসেবে মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোনের বায়োস্কোপ সার্ভিসটি সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বিশেষ করে চলমান আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপের ম্যাচ দেখার জন্য অনেকেই সাবস্ক্রাইব করেছেন সার্ভিসটি। পাশাপাশি তারা সেখানে সিনেমা, নাটক, টেলিফিল্ম, ওয়েব সিরিজ দেখতে পান।

নেটফ্লিক্স

দেশের তরুণদের পছন্দেন তালিকায় সবার উপরে রয়েছে স্ট্রিমিং সার্ভিস নেটফ্লিক্স। দেশে এখন নেটফ্লিক্সের ব্যবহারকারী কত তার কোন সঠিক হিসাব না থাকলেও এটা ধারণা করা যায় যে, প্লাটফর্মটির ব্যবহারকারীই সবচেয়ে বেশি। সেজন্য প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশে নিজেদের ক্যাশ সার্ভার বসাতে চায়। যাতে আরও ভালো সেবা পায় গ্রাহকরা সেটাই উদ্দেশ্য বলে বলেছে নেটফ্লিক্স। পরে অবশ্য শর্ত সাপেক্ষে সেই অনুমতি পেয়েছে স্ট্রিমিং সাইটটি।

হইচই

চলতি বছরের এপ্রিলে দেশে কার্যক্রম শুরু করে হইচই। আগে থেকেই বাংলাদেশের তরুণরা হইচইয়ের সাবস্ক্রিপশন করলেও এরপর থেকে আরও বেড়েছে। অনলাইনে সাবস্ক্রিপশন ফি দেওয়ার পাশাপাশি ঢাকায় মীনাবাজারের ১৬টি আউটলেটেও পাওয়া যাচ্ছে ‘অফলাইন পেমেন্ট কার্ড’।

হইচই টেকনোলজিস বাংলাদেশ লিমিটেডের বিজনেস লিড সাকিব আর খান টেকশহরডটকমকে বলেন, বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে যাওয়া বাংলাভাষীদের জন্যে কনটেন্ট নির্মাণ করা ও স্থানীয় নির্মাতাদের সুযোগ দেয়াই হইচইয়ের লক্ষ্য।

তিনি বলেন, দেশের তরুণদের মধ্যে স্ট্রিমিং সার্ভিস সাবস্ক্রিপশনের পরিমাণ বেড়েছে। এর জন্য অবশ্য মানসম্মত কনটেন্ট তৈরি করতে হচ্ছে। আমরা সেদিকে নজর দিয়েছি বলেই জনপ্রিয়তাও বাড়ছে।

বায়োস্কোপ

দেশে মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোন চালু করে তাদের স্ট্রিমিং সার্ভিস বায়োস্কোপ। বর্তমানে দেশে স্মার্টফোন, কম্পিউটার ও অন্যান্য ডিভাইস মিলিয়ে সার্ভিসটিতে রয়েছেন ৬৫ লাখ ব্যবহারকারী। তবে এর মধ্যে সক্রিয় ব্যবহারকারী ৩৫ লাখ। আর প্রতিদিন এক লাখের মতো ব্যবহারকারী স্ট্রিমিং সার্ভিসটি ব্যবহার করছেন।

এই ব্যবহারকারীদের মধ্যে তরুণদের প্রাধান্য বেশি। ১৫ থেকে ৩৪ বছর বয়েসীরাই বেশি রয়েছে বায়োস্কোপ সার্ভিসে।

জিফাইভ

জিফাইভ স্ট্রিমিং সার্ভিসটি ভারতের। তবে চলতি মাসেই প্লাটফর্মটি বাংলাদেশে মোবাইল অপারেটর রবির সঙ্গে যুক্ত হয়ে যাত্রা করেছে। অন্যান্য স্ট্রিমিং সার্ভিসের সঙ্গে জিফাইভের একটি বড় পার্থক্য হলো, এটিতে রয়েছে বাংলায় বেশি কনটেন্ট। সার্ভিসটিতে পাওয়া যাবে বাংলা সিরিয়াল, রিয়েলিটি শো, বাংলা সিনেমা। এছাড়াও ভারত বাংলাদেশ যৌথ প্রযোজনায় জিফাইভে কনটেন্ট তৈরির কথা বলেছেন এর মালিকপক্ষ। দেখা যাবে জি বাংলা চ্যানেল।

গত তিন বছর থেকেই স্ট্রিমিং সার্ভিস সাবস্ক্রিপশন করে দেখছেন ফারহাত আহমেদ। তিনি টেকশহরডটকমকে বলেন, আমি নেটফ্লিক্সের একটি প্যাকেজ ব্যবহার করি। সবচেয়ে সুবিধার হলো, এতে করে আমি বিভিন্ন ধরনের কনটেন্ট খুব সহজেই পেয়ে যাই। যেগুলোর মান নিয়েও প্রশ্ন করার  সুযোগ থাকে না। এর জন্য খুব বেশি খরচও করতে হয় না। 

ইএইচ/ জুলাই ২৪/ ২০১৯/১২

*

*

আরও পড়ুন